corona virus btn
corona virus btn
Loading

Coronavirus: হিন্দু বলে রেশন নয়, করোনা সংকটেও অমানবিক ছবি পাকিস্তানে

Coronavirus: হিন্দু বলে রেশন নয়, করোনা সংকটেও অমানবিক ছবি পাকিস্তানে
টেলিভিশন বার্তায় ইমরান আরও দাবি করেছেন, লকডাউন করে করোনা সংক্রমণ যতটা নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে বলে ভাবা হয়েছিল, বাস্তবে তা ততটা ফলপ্রসূ হয়নি৷ PHOTO- ANI

করোনা সংকটের জেরে ভারতের মতো পাকিস্তানেও জনজীবন স্তব্ধ৷সাধারণ মানুষের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে যে খাদ্য সামগ্রী দেওয়া হচ্ছে তা হিন্দু বা খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের মানুষকে তা দেওয়া হচ্ছে না৷

  • Share this:

#করাচি: করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে একজোট গোটা বিশ্ব৷ জাতি, বর্ণ, ধর্ম বা দেশের সীমানার ঊর্ধ্বে উঠে মানুষ মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে৷ পরিস্থিতি যখন এতটাই কঠিন তখন ফের একবার পাকিস্তানে সংখ্যালঘু হিন্দু এবং খ্রিস্টানদের সঙ্গে অমানবিক ব্যবহারের অভিযোগ সামনে এলো৷ করোনা সংকটের জেরে ভারতের মতো পাকিস্তানেও জনজীবন স্তব্ধ৷ ভারতের মতো সেখানেও চলছে লকডাউন৷ অভিযোগ, সাধারণ মানুষের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে যে খাদ্য সামগ্রী দেওয়া হচ্ছে তা কেবলমাত্র মুসলিমরাই পাচ্ছেন৷ হিন্দু বা খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের মানুষকে তা দেওয়া হচ্ছে না৷

করাচির বাসিন্দা এক হিন্দু ব্যক্তি আক্ষেপের সুরে বলেন, 'প্রশাসন আমাদের সঙ্গে কোনও রকম সহযোগিতা করছেন না৷ লকডাউনের মধ্যে যে রেশন দেওয়া হচ্ছে তা আমরা হিন্দু বলে পাচ্ছি না৷'

করাচির রেহরি ঘোট এলাকায় সাধারণ মানুষকে চাল, ডালের মতো অত্যাবশ্যকীয় পণ্য বন্টন করা হচ্ছে৷ সেখানেই ভিড় করেছিলেন বহু হিন্দু এবং খ্রিস্টান৷ অভিযোগ, তাঁদের মুখের উপরে বলে দেওয়া হয়েছে যে হিন্দু হওয়ার কারণেই তাঁরা রেশন পাবেন না৷

হিন্দু সম্প্রদায়ের আর এক ব্যক্তিও বলেন, 'আমাদের প্রতিবেশীরা সবাই রেশন পাচ্ছেন৷ আমার ছেলে রিকশা চালায়৷ এখন তাঁর কোনও কাজ নেই৷ আমাদের হাতে টাকাও নেই, কোনও খাবারও নেই৷ রেশন নিতে এলে আমাদের বলা হয়েছিল যে আলাদা ট্রাকে করে আমাদের জন্য রেশন পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে৷ কিন্তু বাস্তবে কিছুই হয়নি৷'

পাকিস্তানের মোট জনসংখ্যার চার শতাংশ মতো হিন্দু ধর্মাবলম্বী৷ কিন্তু বছরের পর বছর তাঁরা বৈষম্য এবং অত্যাচারের শিকার হন বলে অভিযোগ৷ আন্তর্জাতিক চাপের কাছে নতিস্বীকার করে গত বছর ইমরান খান সরকার চারশো হিন্দু মন্দির সংস্কারের উদ্যোগ নেয়৷ কিন্তু এক বছর পেরিয়ে যাওয়ার পরেও সেই প্রকল্প দিনের আলো দেখেনি৷ টেনেটুনে বারোটি মতো মন্দির পুনরায় খুলে দেওয়া হয়েছে৷

পাকিস্তানের আরও এক হিন্দু নাগরিক অভিযোগ করেছেন, এক সপ্তাহ ধরে তাঁদের বাড়িতে কোনও চাল- ডাল নেই৷ অথচ রাস্তায় বেরোলেই তাঁদের পুলিশ তাড়া করছে৷ করোনার বিপদের মধ্যে পাক প্রশাসনের অমানবিক আচরণ সেদেশের হিন্দুদের সংকট আরও বাড়িয়ে দিয়েছে৷

 
Published by: Debamoy Ghosh
First published: April 1, 2020, 4:30 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर