'২ বছর ধরে চাপ দিচ্ছে আমেরিকা', হাফিজ সইদ গ্রেফতারিতে ট্যুইট ট্রাম্পের

'২ বছর ধরে চাপ দিচ্ছে আমেরিকা', হাফিজ সইদ গ্রেফতারিতে ট্যুইট ট্রাম্পের
  • Share this:

#আমেরিকা: হাফিজ সইদের গ্রেফতারিতে ট্যুইট করলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। লেখেন, '' মুম্বই হামলার মাস্টারমাইন্ডকে গ্রেফতারে ১০ বছর ধরে তল্লাশি চলছে। গত দু’বছরে আমেরিকা সেই চাপ আরও বাড়িয়েছে। অবশেষে গ্রেফতার হয় হাফিজ সইদ।''

fefefefee

পাক প্রধানমন্ত্রীর আমেরিকা সফরের আগে তৎপর পাকিস্তান। লস্কর-এ-তৈবা ও জামাত-উদ-দাওয়ার প্রধান হাফিজ সইদ গ্রেফতার। ২৬/১১ মুম্বই হামলা সহ একাধিক নাশকতার মাস্টারমাইন্ড হাফিজ। সন্ত্রাসে অর্থ যোগানোর অভিযোগে দায়ের হওয়া একটি এফআইআর-এর ভিত্তিতেই এই গ্রেফতারি। আপাতত ৭ দিনের জন্য পুলিশ হেফাজতে থাকতে হবে হাফিজকে।

২৬/১১ হামলার মাস্টার মাইন্ড হাফিজ সইদ আপাতত পুলিশের হাতে। গ্রেফতার হওয়ার পর জামাত-উদ-দাওয়া প্রধানকে গুজরানওয়ালার জেলে নিয়ে যাওয়া হয়। হাফিজ সইদকে সাতদিন বিচারবিভাগীয় হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। এমাসের প্রথমেই হাফিজ সইদ-সহ ১৩ শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করে পাক প্রশাসন। তার মধ্যে একটি মামলাতেই এই গ্রেফতারি।

মোট ২৩টি মামলা ঝুলছে হাফিজের বিরুদ্ধে। একটি মামলায় জামিনের আবেদন করতে যাচ্ছিলেন। পাক-পঞ্জাবের গুজরানওয়ালা থেকে গ্রেফতার করা হয়। আগামী সপ্তাহে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠকের আগে প্রবল চাপে পাক প্রধানমন্ত্রী ও সেনাপ্রধানও। ফাইনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্সের মতো সংস্থার আর্থিক নিষেধাজ্ঞার খাঁড়া ঝুলছে। তাই মুখরক্ষাতেই এই গ্রেফতারি বলেও অভিযোগ।

পাকিস্তানে এখন জামাত-উদ-দাওয়া নামে এক স্বেচ্ছাবেসী সংগঠনের কর্তা হিসাবেই পরিচিত সইদ। লস্কর-ই-তৈবার মাস্টারমাইন্ড হাফিজ সইদ এখন সংগঠনের নাম বদলে নেটওয়ার্ক চালান। তবে পাকিস্তানের দাবি, প্রতিনিয়ত সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াই চালাতে তারা বদ্ধপরিকর। এর আগেও বেশ কয়েকবার গ্রেফতার হয়েছিলেন হাফিজ সইদ। তবে খুব বেশিদিন জঙ্গিনেতাকে জেলে রাখা যায়নি। এবারও হয়তো একই ঘটনা ঘটবে। গত কয়েক বছর ধরে হাফিজ সইদ নিয়ে লাগাতার পাকিস্তানের ওপর চাপ বাড়াচ্ছিল কেন্দ্র। তাই হাফিজের গ্রেফতারিতে কিছুটা হলেও স্বস্তিতে মোদি সরকার।

First published: July 17, 2019, 9:16 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर