বিদেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

জিন্নাহর নামে বিদ্রুপ করে রাখা হল পানীয়র নাম! ছবি মুহূর্তেই ভাইরাল

জিন্নাহর নামে বিদ্রুপ করে রাখা হল পানীয়র নাম! ছবি মুহূর্তেই ভাইরাল
The name of the drink seems to be an amalgamation of gin and MA Jinnah. (Credit: Twitter)

লেবেলে আরও উল্লেখ করা হয়েছে যে জিন্নাহ কীভাবে জিয়া-উল-হকের মতামতকে কখনই গ্রহণ করতেন না কারণ তিনি ছিলেন এমন এক ব্যক্তি যিনি জীবনজুড়ে পুল বিলিয়ার্ডস, সিগার, সসেজের পাশাপাশি স্কচ, হুইস্কি এবং জিন সবই উপভোগ করেছিলেন।

  • Share this:

Photo: The name of the drink seems to be an amalgamation of gin and MA Jinnah. (Credit: Twitter)

#লন্ডন: জীবনটা উপভোগ করতেন তিনি। ইসলামে গ্রহণযোগ্য নয় যে জিনিসগুলি, ঠিক সেইসব জিনিসের প্রতি ছিল তাঁর আকর্ষণ । ছিলেন বিলেত ফেরত ব্যারিস্টার। মসজিদে গিয়ে নামাজ পড়তে কেউ দেখেনি তাঁকে। পাকিস্তানের কায়েদে আজম তথা প্রতিষ্ঠাতা মহম্মদ আলি জিন্নাহর নাম অনুসারে একটি অ্যালকোহলযুক্ত পানীয়র নামকরণ করা হয়েছে।

সম্প্রতি একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। আশ্চর্যরকম ভাবেই 'জিন্নাহ' নামকরণ করা হয়েছে পানীয়টির ৷ জিন্নাহ এবং 'জিন' এই দুই শব্দ মিলিয়ে নামকরণ হয়েছে বলে মনে করা হয়। যদিও ছবিগুলির সত্যতা যাচাই করা যায়নি, তবে পানীয়টির অস্বাভাবিক নাম হওয়ায় ছবিগুলি ইতিমধ্যে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

বোতলটির লেবেলে লেখা যে এটি পাকিস্তান থেকে তৈরি এবং এর পিছনে জিন্নাহর অবদান সম্পর্কে আরও বিশদ ব্যাখ্যা রয়েছে। বোতলটির লেবেলটিতে উল্লেখ করা হয়েছে যে জিন্নাহ কীভাবে পাকিস্তানে থেকেও স্বাধীনচেতা জীবনযাপন করতেন ৷ লেবেলে উল্লেখ করা হয়েছে যে কীভাবে জিন্নাহ পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা হন যা ১৯৪৭ সালে একটি ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৭৭ সালে সামরিক শাসন ঘোষণার পরে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী জুলফিকার আলি ভুট্টোর কাছ থেকে ক্ষমতা ছিনিয়ে নেওয়া পাকিস্তানি তারকা জেনারেল জিয়া-উল-হকের বিষয়েও উল্লেখ  রয়েছে সেখানে।

লেবেলে আরও উল্লেখ করা হয়েছে যে জিন্নাহ কীভাবে জিয়া-উল-হকের মতামতকে কখনই গ্রহণ করতেন না কারণ তিনি ছিলেন এমন এক ব্যক্তি যিনি জীবনজুড়ে পুল বিলিয়ার্ডস, সিগার, সসেজের পাশাপাশি স্কচ, হুইস্কি এবং জিন সবই উপভোগ করেছিলেন। তাঁর নামে একটি অ্যালকোহলযুক্ত পানীয় রয়েছে দেখে নেটিজেনরাও অবাক ।

Simli Dasgupta

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: December 2, 2020, 9:41 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर