জঙ্গলে ভূত খুঁজতে গিয়ে দম্পতি পেলেন নরকঙ্কাল, তারপর যা হল...

জঙ্গলে ভূত খুঁজতে গিয়ে দম্পতি পেলেন নরকঙ্কাল, তারপর যা হল...

জঙ্গলের মধ্যে আচমকাই চোখের সামনে দেখা মিলল মরার মাথার খুলি...

জঙ্গলের মধ্যে আচমকাই চোখের সামনে দেখা মিলল মরার মাথার খুলি...

  • Share this:

    #ম্যানচেস্টার: YouTube চ্যানেলটার নাম এক্সপ্লোরিং উইথ ড্যানি। আদতে ড্যানি একা নন, ভূত খোঁজার পালায় সঙ্গে থাকেন তাঁর সুযোগ্য সহধর্মিণী ফেলিসিটি ডাফিও আর তাঁদের হরেক প্যারানর্ম্যাল অ্যাক্টিভিটির তত্ত্বতালাস চ্যানেলের পর্দায় আচকে রাখে দর্শকদের।

    তারই নয়া পর্বে দর্শকদের নতুন রসদ জোগানোর জন্য ইউনাইটেড কিংডমের গ্রেটার ম্যানচেস্টারের বলটনে হাজির হয়েছিলেন ড্যানি আর ফেলিসিটি। ওই এলাকার ইগারটন পার্কে একটা পরিত্যক্ত পাব আছে। তাঁরা সেই পাবে অলৌকিক কিছু ঘটে কি না, তা পরখ করে দেখতে গিয়েছিলেন। ক্যামেরা অন করে ভূতের খোঁজ জারি ছিল জঙ্গুলে পথে। এমন সময়ে পথের মাঝে একটা কিছু পড়ে থাকতে দেখেন ড্যানি। স্ত্রীকে প্রশ্নও করেন ,জিনিসটা আদতে কী ? উত্তর যা পেলেন তাতে ড্যানির আত্মারাম খাঁচাছাড়া অবস্থা! স্ত্রী জানান যে জিনিসটা আর কিছুই নয়, একটা মড়ার খুলি!

    নিজেদের ইউটিউব চ্যানেলে তাঁরা এই ঘটনার যে ভিডিও আপলোড করেছেন, সেখান থেকেই জানা গিয়েছে বাকিটা! মড়ার খুলির কথা শুনে ড্যানি স্ত্রীকে ওই জায়গা থেকে একটু পিছিয়ে দাঁড়াতে বলেন। হাতে পরে নেন গ্লাভস। তার পর চারপাশটা খুঁড়তে শুরু করেন। খুঁড়তে খুঁড়তে উঠে আসে একটা আস্ত কঙ্কাল! এর পর আর দেরি করেননি দম্পতি, তাঁরা সোজাসুজি খবর দেন পুলিশে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায় পুলিশ বাহিনী!

    গ্রেট ম্যানচেস্টার পুলিশের তরফে ডিটেকটিভ ইন্সপেক্টর ডেবি হার্স্ট জানিয়েছেন, তাঁরাও ঘটনায় আমূল চমকে গিয়েছেন! জায়গাটা পরিত্যক্ত ঠিকই, কিন্তু তা বলে ওখান থেকে যে নরকঙ্কাল উদ্ধার হতে পারে, এটা তাঁরা কল্পনা করে উঠতে পারেননি। তবে এই মানুষের দেহের অবশেষ মেলার ঘটনার নেপথ্যে ভুতুড়ে কোনও যোগসাজশের কথা স্বীকার করতে চাননি ডেবি। তিনি জানিয়েছেন,  যতক্ষণ পর্যন্ত ফরেনসিক রিপোর্ট না আসছে, এই নিয়ে কিছুই বলা সম্ভব নয়। প্রাথিক জেরার পর পুলিশ ভোর সাড়ে তিনটে নাগাদ দম্পতিকে বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। পাশাপাশি, এই বিষয়ে অবহিত করার জন্য তারা ধন্যবাদও জানিয়েছে দম্পতিকে।

    Published by:Rukmini Mazumder
    First published: