মাস্ক না পরলেই ৫০ বার ডন বৈঠক! বিদেশিদের জন্য নতুন নিয়ম ইন্দোনেশিয়ায়

মাস্ক না পরলেই ৫০ বার ডন বৈঠক! বিদেশিদের জন্য নতুন নিয়ম ইন্দোনেশিয়ায়

যদি কেউ ঠিক ভাবে মাস্ক না পরেন, তাহলে ১৫ বার ডন বৈঠক করতে হবে

যদি কেউ ঠিক ভাবে মাস্ক না পরেন, তাহলে ১৫ বার ডন বৈঠক করতে হবে

  • Share this:

#বালি: শিব ঠাকুরের আপন দেশে সর্বনেশে আইন কানুন ছিল, সে তো আমরা জানতাম!ইন্দোনেশিয়াও কি সে পথে হাঁটছে? তবে এই আইন যদি ভালোর জন্য হয়, তাহলে তো কোনও সমস্যা নেই! করোনাকালে মাস্ক পরা আর স্যানিটাইজার দিয়ে হাত ধোয়া এতদিন অভ্যেসে পরিণত হওয়ার কথা। হওয়ার কথা এই কারণেই বলা হচ্ছে যে অনেকেই সময়ের সঙ্গে সঙ্গে একটু ঢিলে দিয়েছেন। বেশ কিছু মাস মানুষ গৃহবন্দী ছিলেন। কোথাও বেড়ানোরও বাধা নিষেধ ছিল। এখন নতুন নর্মাল পরিস্থিতিতে কিছুটা হলেও এদিক সেদিক যাওয়া হচ্ছে। এখন বেড়ানো কোনও অপরাধ নয়। অপরাধ হচ্ছে যখন সেখানে গিয়ে কেউ নিয়ম না মানে!

অন্য দেশে এসব হলে কী হত বলা মুশকিল, তবে ইন্দোনেশিয়া সরকার এই বিষয়ে খুব কড়া পদক্ষেপ নিয়েছেন। কেউ এখানে বেড়াতে আসুন বা ব্যবসার কাজে- মাস্ক তাঁকে পরতে হবেই। আর সেটা যেমন তেমন করে পরলে, নাকের নিচে নামিয়ে রাখলে বা শুধু আলগা ভাবে মুখের কাছে আটকে রাখলেও শাস্তি নাচছে কপালে!

খবর বলছে যে, ইন্দোনেশিয়ার রিসর্ট আইল্যান্ড বলে পরিচিত বালি দ্বীপে বিদেশিদের মাস্ক না পরার জন্য ৫০ বার ডন বৈঠক করতে হচ্ছে। আর যদি কেউ ঠিক ভাবে মাস্ক না পরেন, তাহলে ১৫ বার ডন বৈঠক করতে হবে। একটি ভিডিও ফুটেজে দেখা যাচ্ছে যে টি-শার্ট আর শর্টস পরে একজন বিদেশি ক্রান্তীয় অঞ্চলের চাঁদি-ফাটা গরমে ডন বৈঠক করছেন। আর তাঁর সামনেই দাঁড়িয়ে আছেন মাস্ক-পরা একজন সিকিউরিটি অফিসার।

বালি দ্বীপ কর্তৃপক্ষ মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করেছেন কারণ গত বছর এখানে কোভিড-রোগীর সংখ্যা অত্যন্ত বেশি হয়ে গিয়েছিল। অনেক পরিশ্রমে সেই পরিস্থিতি সামলানো গিয়েছে। তাই কর্তৃপক্ষ চাইছেন না যে আগের পর্যায়ে ফিরে যেতে! একজন সিকিউরিটি অফিসার সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন যে এখনও এখানে বিদেশি পর্যটকদের আনাগোনা শুরু হয়নি। কিন্তু যেসব বিদেশি এখানেই থাকে,ন তাঁরা অনেকেই নিয়ম লঙ্ঘন করে মাস্ক পরছেন না বা পরলেও দায়সারা ভাবে পরছেন।

৭০ জনেরও বেশি পর্যটক এই জন্য জরিমানা দিয়েছেন। আর যাঁদের কাছে টাকা ছিল না তাঁরা ডন বৈঠক করেছেন।

ইন্দোনেশিয়ার বাইরের পর্যটকরা এখনও এখানে আসার অনুমতি না পেলেও যাঁরা ইন্দোনেশিয়ার অন্যান্য অঞ্চলে থাকেন, তাঁরা এখানে আসতে পারেন বলে জানা গিয়েছে খবরে।

Published by:Ananya Chakraborty
First published:

লেটেস্ট খবর