বিদেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

কী সাংঘাতিক! টিভি দেখতে দেখতে ১২৩টা ম্যাগনেটিক বিডস গিলে ফেলল ৫ বছরের শিশু! তারপর?

কী সাংঘাতিক! টিভি দেখতে দেখতে ১২৩টা ম্যাগনেটিক বিডস গিলে ফেলল ৫ বছরের শিশু! তারপর?
Photo Courtesy: Guiyang Evening News

জানা গিয়েছে, যে ঘটনার দিন ওই ছেলেটির মা-বাবা, মিস্টার অ্যান্ড মিসেস ইয়ু বাড়িতে ছিলেন না। তাঁরা দু'জনেই ছিলেন তাঁদের কর্মক্ষেত্রে ৷ বাড়িতে ছিল কেবল খুদে আর তার ১২ বছরের দিদি।

  • Share this:

Photo Courtesy: Guiyang Evening News

#বেজিং: যদি এই খবর পড়ে আপনি আঁতকে ওঠেন, তা হলে এতটুকুও দোষ দেওয়া যাবে না! ব্যাপারটা নিঃসন্দেহেই সব প্রশ্নের অতীত!

কথা হল, বাচ্চারা অনেক সময়েই অনেক কিছু মুখে পুরে দেয়! তা নিয়ে যেমন ভুগতে হয় তাদের, তার চেয়েও বেশি ভুগতে হয় মা-বাবাকে। সৌভাগ্যের কথা, দক্ষিণ-পশ্চিম চিনের গুইঝোই প্রদেশে যে ৫ বছরের খুদেটি ১২৩টি ম্যাগনেটিক বিডস বা পুঁতি টিভি দেতে দেখতে মুখে পুরে দিয়েছিল, সে সম্পূর্ণ সুস্থ আছে সার্জারির পরে। ভোগান্তি যা, তা কেবল হয়েছে বাড়ির লোকের!

জানা গিয়েছে, যে ঘটনার দিন ওই ছেলেটির মা-বাবা, মিস্টার অ্যান্ড মিসেস ইয়ু বাড়িতে ছিলেন না। তাঁরা দু'জনেই ছিলেন তাঁদের কর্মক্ষেত্রে ৷ বাড়িতে ছিল কেবল খুদে আর তার ১২ বছরের দিদি। দু'জনে মিলে টিভি দেখছিল। দিদি খেয়ালই করেনি যে ওই টিভি দেখার ফাঁকে ফাঁকে একটা-দু'টো করে পাক্কা ১২৩টা ম্যাগনেটিক বিডস মুখে পুরে দিয়েছে ভাই! সে কেবল আচমকা আবিষ্কার করে যে ভাই শ্বাসকষ্টে ছটফট করছে, তার গলায় একটা কিছু আটকে আছে! উপস্থিত বুদ্ধি কাজে লাগিয়ে সে ভাইকে জল খেতে দেয়। কাজ হয় তাতেই, গলায় আটকে থাকা শেষ ম্যাগনেটিক বিড পেটে পেটে চলে যায়। সুস্থ হয়ে ছেলে আবার টিভি দেখতে থাকে দিদির সঙ্গে।

Photo Courtesy: Guiyang Evening News Photo Courtesy: Guiyang Evening News

এর পর যখন সন্ধেবেলা শিশুটির বাবা-মা বাড়িতে ফেরেন, মেয়ে তাদের ঘটনার কথা জানায়। জেরার মুখে স্বীকার করে নেয় খুদে ম্যাগনেটিক বিড গিলে ফেলার কথা। তবে সে কেবল একটা বিড গেলার কথা কবুল করেছিল। এর পর সঙ্গে সঙ্গে শিশুটিকে স্থানীয় ডাক্তারের চেম্বারে নিয়ে যান মা-বাবা। ডাক্তার ওষুধপত্র দিয়ে বলেন যে বড় জোর সপ্তাহখানেকের পেট থেকে বিড বেরিয়ে আসবে মলত্যাগের সময়ে।

কিন্তু এর পর যখন বাড়িতে ম্যাগনেটিক বিডসের একটাও খুঁজে পাওয়া যায়নি, তখন আতঙ্কে অস্থির হয়ে ছেলেকে নিয়ে হাসপাতালে ছুটে যান দম্পতি। সেখানে এক্স-রে করা হলে খুদের পেটের ভিতরে জমে থাকা ম্যাগনেটিক বিডগুলোর খোঁজ মেলে। এর পর সার্জারির মাধ্যমে এক এক করে তা বের করা হয়।

তবে কাজটা মোটেও সহজ ছিল না! এই সার্জারি করতে সময় লেগেছে ৪ ঘণ্টা এবং করতে গিয়ে দু'টো ইক্যুইপমেন্ট ভেঙেও গিয়েছে বলে জানিয়েছেন গুইঝোউ হাসপাতালের ডাক্তার চেন ওয়ানওয়েই। পাশাপাশি এটাও জানাতে ভোলেননি যে একসঙ্গে এতগুলো বিড গিলে ফেলার ঘটনা তিনি এই প্রথম দেখলেন তাঁর কেরিয়ারে!

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: November 6, 2020, 11:34 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर