Home /News /international /
পরীক্ষামূলক করোনা ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু, কবে মিলতে পারে ওষুধ, আভাস দিচ্ছেন গবেষকরা

পরীক্ষামূলক করোনা ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু, কবে মিলতে পারে ওষুধ, আভাস দিচ্ছেন গবেষকরা

প্রতিষেধক দেওয়া হচ্ছে জেনিফার হেলার নামক এক মহিলাকে। ছবি: AP

প্রতিষেধক দেওয়া হচ্ছে জেনিফার হেলার নামক এক মহিলাকে। ছবি: AP

গবেষণা যদি সফল হয়, তহবে আবিশ্ব আক্রান্ত মানুষের দেহে কি এই প্রতিষেধক তড়িঘড়ি প্রবেশ করানো যাবে?মার্কিন জাতীয় স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে অ্যান্টনি ফুসি জানাচ্ছেন, রেকর্ড গতিতে এই ভ্যাকসিনের খোঁজ চলছে।

  • Share this:

    কী ভাবে যুদ্ধে হারানো যাবে করোনা ভাইরাসকে? এই প্রশ্নে ঘুম উ়ড়েছে তাবড় বিজ্ঞানীদের। অতিমারীর সঙ্গে লড়াইয়ে নেমে এই প্রথম মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পরীক্ষামূলক ভাবে করোনা প্রতিষেধক প্রয়োগ করা হল এক রোগীর শরীরে। সিয়াটেল পার্মানেন্ট ওয়াশিংটন রিসার্চ ইন্সটিটিউটের বিজ্ঞানীরা এখন এই প্রয়োগের প্রাথমিক ফল জানার জন্য অপেক্ষা করছেন।  গবেষকদের দলের নেত্রী লিসা জ্যাকসনের মত ইতিবাচক। তাঁর কথায়, 'আমরা প্রত্যেকে নিজেদের সেরাটা দিয়েছি, প্রত্যেকে চাইছেন এই জরুরি অবস্থায় নিজেদের সাধ্য অনুযায়ী কাজ করতে। কাজেই ফলের ব্যাপারে আমরা আশাবাদী।

    করোনার প্রতিষেধক নিজের শরীরে পরীক্ষা করতে এগিয়ে এসেছেন বহু সাধারণ মানুষ। আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা এপি জানাচ্ছে,প্রথম স্বেচ্ছাসেবক একজন ছোট তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থার কর্মী। এভাবে মোট ৪৫ জনের ওপর মোট দু'টি ডোজ পরীক্ষামূলক ভাবে প্রয়োগ করা হবে। অনেকেই পরীক্ষাকেন্দ্রের বাইরে অপেক্ষা করছেন সাগ্রহে। প্রতিষেধক নিলেন দুই সন্তানের মা জেনিফার হেলার। তাঁর বয়স ৪৫ বছর। জেনিফারের মুখেওএকই সুর, সারা বিশ্ব যখন সংকটে, তখন এটুকু তো করাই যায়।

    কিন্তু গবেষণা যদি সফল হয়, তহবে আবিশ্ব আক্রান্ত মানুষের দেহে কি এই প্রতিষেধক তড়িঘড়ি প্রবেশ করানো যাবে?মার্কিন জাতীয় স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে অ্যান্টনি ফুসি জানাচ্ছেন, রেকর্ড গতিতে এই ভ্যাকসিনের খোঁজ চলছে। কিন্তু পরীক্ষা সফল হলেও সব দিক খতিয়ে দেখে বাজারে এই প্রতিষেধক আনতে অন্তত ১২-১৮ মাস লেগে যাবে।

    Published by:Arka Deb
    First published:

    Tags: Corona Virus

    পরবর্তী খবর