Viral Video: জ্বলন্ত আগ্নেয়গিরির ভিতরে প্রতিনিয়ত কী ঘটে দেখেছেন কখনও? ড্রোন ব্যবহারে তোলা ভিডিও ভয়ঙ্কর সুন্দর...

Viral Video: জ্বলন্ত আগ্নেয়গিরির ভিতরে প্রতিনিয়ত কী ঘটে দেখেছেন কখনও? ড্রোন ব্যবহারে তোলা ভিডিও ভয়ঙ্কর সুন্দর...

জ্বলন্ত আগ্নেয়গিরি।

ফ্রাগরাদালসফল দ্বীপে অবস্থিত এই আগ্নেয়গিরি বিগত ৬ হাজার বছর ধরে নিশ্চুপ ছিল, আচমকাই জেগে উঠেছে সম্প্রতি।

  • Share this:

#আইসল্যান্ড: একটা আগ্নেয়গিরির মুখ খুলে যাওয়ার পরে যখন তীব্র স্রোত নিয়ে লাভা বেরিয়ে আসে, তখন সেই দৃশ্যটা ঠিক কী রকম হতে পারে, তা কিছু মাত্রায় হলেও কল্পনা করে নেওয়া যায়। কিন্তু ওই একই সময়ে আগ্নেয়গিরির ভিতরে কী ঘটে চলেছে, সেই দৃশ্যের কল্পনা করা বেশ শক্ত ব্যাপার। ফলে হাতের কাছে এক আগ্নেয়গিরি জেগে উঠতে দেখে আর লোভ সামলাতে পারেননি ট্র্যাভেল ব্লগার বর্ন স্টেইনবেক (Bjorn Steinbekk)। একটা ড্রোন উড়িয়ে দেওয়ার ঝুঁকি তিনি নিয়েছিলেন। আর তা সার্থক হল বলে গায়ে শিহরণ জাগানো এক প্রাকৃতিক ঘটনার সাক্ষী রইল বিশ্ব।

সম্প্রতি আইসল্যান্ডের ফ্রাগরাদালস পাহাড়ে জেগে উঠেছে এক ঘুমন্ত আগ্নেয়গিরি। জানা গিয়েছে যে ফ্রাগরাদালসফল দ্বীপে অবস্থিত এই আগ্নেয়গিরি বিগত ৬ হাজার বছর ধরে নিশ্চুপ ছিল, আচমকাই জেগে উঠেছে সে সম্প্রতি। তার মুখ খুলে গিয়েছে। এবং এক বিস্ফোরণের পর ধীরে ধীরে সবাইকে সচকিত করে দিয়ে নেমে এসেছে লাভার বন্যা পাহাড়ের গা বেয়ে। তা এতটাই সক্রিয় যে ঘটনাস্থল থেকে ৩২ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত রেইকাভিক সীমান্ত থেকেও তার ঔজ্জ্বল্য স্পষ্ট প্রতিভাত হয়েছে।

যেহেতু ড্রোন দিয়ে তোলা হয়েছে এই ভিডিওগুলো, সেই জন্য তা দর্শককে ঠিক ওই ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকার রোমাঞ্চ অনুভব করাবে। মনে হবে যে ঠিক যেন ওই লাভার স্রোতের উপর দিয়ে উড়ে চলেছি আমরা। তার পর ড্রোন যখন আগ্নেয়গিরির মুখের কাছাকাছি পৌঁছে যাবে, নজরে আসবে ভিতর থেকে ছলকে উঠছে গলানো আগুনের স্রোত। মনে হবে যে তার কয়েক বিন্দু ছিটকে এসে পড়ল শরীরে!

সঙ্গত কারণেই স্টেইনবেকের Facebook এবং Instagram হ্যান্ডেলে আপলোড করা এই ভিডিওগুলো ভীষণ ভাবে জনপ্রিয় হয়েছে। আগ্নেয়গিরির অভ্যন্তরের বিধ্বংসী রূপ দেখে বিস্ময়বিমুগ্ধ হয়েছে দুনিয়া। আপলোড করার পরে এক দিনও কাটেনি, কিন্তু তার মধ্যেই ভিডিও পেয়েছে ৯২৬ হাজার ভিউয়িং আর ৬৩ হাজার লাইক। তবে শুধুই মুগ্ধতা নয়, পাশাপাশি ড্রোনটা ঠিক আছে কি না, তা নিয়েও কৌতূহল প্রকাশ করেছেন। কেন না, ভিডিও দেখে মনে হয়েছে যে ড্রোনের গায়ে লাভার কয়েক ফোঁটা আগ্নেয়গিরির ভিতর থেকে ছিটকে এসে পড়েছে!

স্টেইনবেক জানিয়েছেন যে ড্রোনটা সৌভাগ্যবশত ঠিকঠাক আছে। পাশাপাশি আইসল্যান্ডের আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে যে এই আগ্নেয়গিরির জেগে ওঠা ভয়ানক কোনও বিপদের সামনে অধিবাসীদের দাঁড় করিয়ে দেয়নি। শুধু কিছু পরিমাণে উত্তাপ আর ধোঁয়া চার পাশে ছড়িয়ে দিয়েই এ যাত্রা মানুষের সভ্যতাকে রেহাই দিয়েছে এই আগ্নেয়গিরি।

Published by:Shubhagata Dey
First published: