ফের মার্কিন আদালতে মুখ পুড়ল ট্রাম্পের, নয়া অভিবাসন নীতিতেও স্থগিতাদেশ– News18 Bengali

ফের মার্কিন আদালতে মুখ পুড়ল ট্রাম্পের, নয়া অভিবাসন নীতিতেও স্থগিতাদেশ

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Mar 16, 2017 12:56 PM IST
ফের মার্কিন আদালতে মুখ পুড়ল ট্রাম্পের, নয়া অভিবাসন নীতিতেও স্থগিতাদেশ
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Mar 16, 2017 12:56 PM IST

#ওয়াশিংটন: ফের ধাক্কা খেল ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিবাসন নীতি। ছয় মুসলিম দেশের ক্ষেত্রে মার্কিন প্রেসিডেন্টের ঘোষিত ভিসা নীতির উপর সাময়িক স্থগিতাদেশ জারি করল হাওয়াইয়ের এক ফেডারেল কোর্ট।

সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের উপর ব্যান প্রত্যাহারের পর গত ৬ মার্চ নয়া অভিবাসন নীতি ঘোষণা করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ৷ নয়া নির্দেশিকা অনুযায়ী, ছ’টি দেশের উপর ৯০ দিনের জন্য ট্র্যাভেল ব্যান জারি করা হয় ৷ আগের ঘোষিত অভিবাসন নীতি অনুযায়ী সাত মুসলিম দেশের তালিকা থেকে এবারে বাদ রাখা হয় ইরাককে ৷

নতুন নির্দেশিকা অনুযায়ী ইরান, লিবিয়া, সিরিয়া, সোমালিয়া, সুদান ও ইয়েমেনের নাগরিকরা আগামী ৯০ দিনের জন্য মার্কিন মুলুকে প্রবেশ করতে পারবেন না ৷

বুধবার মার্কিন জেলা জজ ডেরিক কে ওয়াটসন ৪৩ পাতার নির্দেশিকায় বলেছেন, এই ঘোষণা মুসলিমদের বিরুদ্ধে বৈষম‍্যকেই তুলে ধরবে। এ বিষয়ে আরও যুক্তিসঙ্গত আলোচনা প্রয়োজন। এই নির্দেশের পরই আদালতের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। হোয়াইট হাউসের তরফে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, মুসলিমদের বিরুদ্ধে নয়, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধেই সক্রিয় ট্রাম্প প্রশাসন। এর আগেও আদালতে সমালোচিত হয়েছিল ট্রাম্পের অভিবাসন নীতি।

এর আগে জানুয়ারির ২৭ তারিখ বিতর্কিত ভিসা ও অভিবাসন নীতিতে সই করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এই নীতির ফলে সাত মুসলিম অধ্যুষিত দেশের নাগরিকদের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ঢোকায় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। এই ঘোষণার পর থেকে প্রায় এক লক্ষ ভিসা বাতিল করা হয়েছে বলে দাবি মার্কিন বিদেশ দফতরের। বিতর্কিত অভিবাসন নীতির জেরে ঘরে-বাইরে প্রবল সমালোচনার মুখে পড়েন ট্রাম্প। তাতে অবশ্য দমতে রাজি নন নিউ ইয়র্কের প্রাক্তন রিয়েল এস্টেট জায়েন্ট। সিয়াটেলের ফেডারেল কোর্টের সিদ্ধান্তকে হাস্যকর বলে ট্যুইট করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে জঙ্গিদের থেকে বাঁচানোর জন্য এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে ৷ তবে সমাজকর্মী ও সামাজিক অধিকার রক্ষা কমিটিগুলি এই পদক্ষেপের তীব্র নিন্দা করেছেন ৷ এই সিদ্ধান্ত নিয়ে বৈষম্যমূলক আচরণ করছেন প্রেসিডেন্ট। পেন্টাগনে ট্রাম্প জানান, ‘ইসলামিক জঙ্গিদের মার্কন যুক্তরাষ্ট্র থেকে দূরে রাখতে চাই ৷ তাদেরকে দেশে চায়না ৷ আমরা কেবল তাদের আসতে দেবে যারা আমাদের দেশকে ভালোবাসবে ও সাহায্য করবে ৷’

First published: 12:56:18 PM Mar 16, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर