Coronavirus: চিনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫৬, আক্রান্ত প্রায় ২০০০

Coronavirus: চিনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫৬, আক্রান্ত প্রায় ২০০০
Photo Courtesy: Reuters

এদের মধ্যে ৬৪৪ জনের মধ্যে এই ভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দিয়েছে এই গত একদিনে।

  • Share this:

#বেজিং: সারা বিশ্বের ঘুম উড়িয়েছে করোনা ভাইরাস। চিনে বেড়েই চলেছে করোনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৷ শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, করোনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৫৬ ৷ আর এই মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ২০০০জন ৷ এদের মধ্যে ৬৪৪ জনের মধ্যে এই ভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দিয়েছে এই গত একদিনে। মারণ ভাইরাস করোনার কারণে চিন থেকে বিচ্ছিন্ন ইউহান ৷ করোনা ভাইরাসের মূল কেন্দ্রই এই ইউহান৷ সংক্রমণ থেকে দেশের অন্যান্য জায়গাকে বাঁচানোর জন্য বন্ধ করা হয়েছে ইউহানের যাতায়াত পরিষেবা৷ ইউহানে বন্ধ ফেরি, ট্রেন, বাস পরিষেবা বন্ধ ইউহান বিমানবন্দরেও ৷ করোনার জেরে বন্ধ করা হয়েছে চিনা নববর্ষের উৎসবও ৷ করোনার জেরে ভারতেও জারি হল হাই-অ্যালার্ট। বিমানবন্দরে থার্মাল স্ক্রিনিংয়ের পাশাপাশি চূড়ান্ত সতর্কতা থাকছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দাবি, ভারতে এখনও পর্যন্ত করোনা সংক্রমণের খবর নেই। তবে বিভিন্ন হাসপাতালে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে ১১ জনকে।

প্রতিবেশী দেশ নেপালেও হাজির করোনা ভাইরাস। নেপালে এক ব্যক্তির দেহে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ মেলার পর চিন্তা বাড়ল ভারতের। করোনা নিয়ে ভারতেও হাই অ্যালার্ট জারি। বিমানবন্দরেই চিন, হংকং, ভিয়েতনামের মতো দেশ থেকে আসা যাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা হচ্ছে। সেই কাজ দেখবে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বিশেষজ্ঞ দল । আশপাশের হাসপাতালগুলির পরিকাঠামোও খতিয়ে দেখবেন তাঁরা। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দাবি, দেশে এখনও পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত রোগীর খোঁজ মেলেনি। বাছাই করা দেশ থেকে আসা যাত্রীদের ওপর নিয়মিত নজরদারি চলছে। তবে, বিভিন্ন হাসপাতালে কয়েকজনকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে । এখনও কারোর রক্তেই করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি মেলেনি । তবে নেপালে করোনা ভাইরাস আক্রান্তের খোঁজ মেলায় বাড়তি সতর্কতা নিয়েছে স্বাস্থ্যমন্ত্রক। ভারত, নেপাল সীমান্ত সংলগ্ন রাজ্যগুলিকে সতর্ক করেছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। উত্তরাখণ্ডের ক্ষেত্রে বাড়তি সতর্কতা। চিনের ইউহানে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ার পরও যথেষ্ট সতর্কতা নিতে পারেনি চিনা প্রশাসন। এ থেকে শিক্ষা নিয়ে তৈরি থাকতে চাইছে কেন্দ্র। শনিবার করোনা নিয়ে উচ্চপর্যায়ের বৈঠক করেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী । মেডিক্যাল রিসার্চ কাউন্সিল, ভাইরাল অ্যান্ড ব্যাকটেরিয়া প্রিভেনশমন কমিটির মতো বেশ কিছু সংস্থাকে নিয়ে বৈঠক হয় । বৈঠকে বিভিন্ন রাজ্যে বিশেষজ্ঞ দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়। করোনা মোকাবিলায় চালু হয়েছে ২৪ ঘণ্টার কন্ট্রোল রুম ও টোল ফ্রি নম্বর। টোল ফ্রি নম্বর +91-11-23978046 নম্বরে যোগাযোগ করতে হবে। করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় প্রস্তুতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে রিপোর্ট দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন।

First published: January 26, 2020, 10:37 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर