• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • কুকুরদের জন্য কনসার্টের আয়োজন কলম্বিয়ায়, কারণ জানলে অবাক হবেন!

কুকুরদের জন্য কনসার্টের আয়োজন কলম্বিয়ায়, কারণ জানলে অবাক হবেন!

নতুন বছরকে স্বাগত জানাতেই কলম্বিয়ায় (Columbia) অনুষ্ঠিত হয়েছিল এই কনসার্ট।

নতুন বছরকে স্বাগত জানাতেই কলম্বিয়ায় (Columbia) অনুষ্ঠিত হয়েছিল এই কনসার্ট।

নতুন বছরকে স্বাগত জানাতেই কলম্বিয়ায় (Columbia) অনুষ্ঠিত হয়েছিল এই কনসার্ট।

  • Share this:

সম্প্রতি কলম্বিয়ার একটি ভিডিও মন জিতে নিয়েছে নেটিজেনদের। বোগোটা ফিলবহারমোনিক অর্কেস্ট্রা (Bogota Philharmonic Orchestra) নামে শিল্পীদের একটি দল এক কনসার্টের আয়োজন করেছে। মূলত কুকুর ও পোষ্যদের কেন্দ্র করেই এই অনুষ্ঠান। যার কারণটা সত্যিই মহৎ।

নতুন বছরকে স্বাগত জানাতেই কলম্বিয়ায় (Columbia) অনুষ্ঠিত হয়েছিল এই কনসার্ট। তবে এটি শুধুমাত্র কোনও পারফম্যান্স ছিল না। এই কনসার্টের মধ্য দিয়ে শিল্পীরা একটি সচেতনতার বার্তা দিতে চেয়েছেন। পুরো অনুষ্ঠান জুড়ে পশু-পাখি ও পোষ্যদের উপরে বাজি পোড়ানোর ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে সচেতন করার চেষ্টা হয়েছে মানুষজনকে। এর পাশাপাশি করোনা পরিস্থিতিতে সামাজিক দূরত্ব ও প্রাথমিক স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কিত বিষয়গুলি সম্পর্কেও সচেতন করা হয়েছে।

সম্প্রতি YouTube-এ বোগোটা অর্কেস্ট্রারের পারফরম্যান্সের একটি ভিডিও শেয়ার করা হয়েছে। যা রীতিমতো ভাইরাল হয়েছে। অনেকেই এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

কুকুর বা অন্যান্য পোষ্য ও পশু-পাখিদের উপরে বাজি পোড়ানোর যে কী ভয়ঙ্কর প্রভাব রয়েছে, তা আর নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না। তাই নানা ধরনের উৎসবে প্রায়শই বাজি পোড়ানোকে এড়িয়ে যাওয়ার কথা বলা হয়। এর অর্থ এই নয় যে, কোনও উৎসবের আনন্দে বাধা দেওয়া হচ্ছে। এর পিছনে একটাই লক্ষ্য থাকে, যাতে আমাদের মজা অন্যের জীবন সংশয়ের কারণ না হয়ে দাঁড়ায়। তবে নানা আবেদন, অনুরোধ, প্রচার অভিযান চালিয়েও এখনও পর্যন্ত মানুষজনকে সে ভাবে সচেতন করা যায়নি। এ বার এই কনসার্টের মধ্য দিয়ে আরও একবার সেই বার্তা দেওয়া হল।

প্রসঙ্গত, গত বছরই এক ভয়াবহ ঘটনার কথা জানিয়েছিলেন স্কটল্যান্ডের বাসিন্দা মার্গারেট অ্যাডামস। তিনি জানিয়েছিলেন, বাজি পোড়ানোর সময়ে আচমকাই অন্ধ হয়ে গিয়েছিল তাঁর কুকুর। পোষ্য সুজির সঙ্গে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনার পর ‘An End To The Sale Of Fireworks’ নামে একটি অনলাইন ক্যাম্পেইনও চালান তিনি। আশেপাশের নানা এলাকায় পোষ্যদের নিরাপত্তা ও সুরক্ষিত জীবনের স্বার্থে একাধিক প্রচার অভিযানও চালিয়েছিলেন।

তথ্য বলছে, বাজি পোড়ানোর জেরে আগুন বা বিকট শব্দে ব্যাপক ক্ষতি হতে পারে পোষ্যদের। তবে শুধু গৃহপালিত পশু নয়, রাস্তার কুকুর থেকে শুরু করে পশুপাখি সকলেই মানুষের এই নির্মম মজার শিকার। বাজি পোড়ানোর জেরে যে শব্দ, আগুন, ধোঁয়া বা বিষাক্ত গ্যাস তৈরি হয়, তাতে নানা ধরনের ক্ষতি হয় এই নিরীহ প্রাণীদের। কেউ এমন ভাবে আতঙ্কিত হয় যে, সেই ভয় থেকে আর বেরিয়ে আসতে পারে না। সারাক্ষণ ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে কাঁপতে থাকে। ধীরে ধীরে খিদে কমে যায়। ওরা হিংস্র হয়ে অদ্ভুত আচরণ করতে শুরু করে। এক সময়ে অসুস্থ হয়ে মারা যায়। অনেক কুকুরের অনবরত লালা ঝরতে থাকে। ঘন ঘন মলত্যাগ করতে থাকে তারা। মানুষের থেকে অনেক বেশি সংবেদনশীল হয় এই প্রাণীরা। এদের শোনার ক্ষমতা ও ঘ্রাণশক্তিও অনেক বেশি। তাই বাজি পোড়ানোর মতো নিছক মজার আড়ালে অনেক সময়ে প্রাণও যেতে পারে এই অবলা জীবগুলির।

কলম্বিয়ার এই কনসার্ট যেন আরও একবার মানুষজনকে জাগানোর চেষ্টা করল। পোষ্যদের প্রাণ যে মূল্যবান তা বোঝানোর চেষ্টা করল!

Published by:Elina Datta
First published: