বিখ্যাত প্রসাধনী সংস্থার অ্যাকাউন্টে ভুল করে ১ বিলিয়ন টাকা পাঠিয়েছিল Citibank, ফেরত পাবেনা, বলছে আদালত

বিখ্যাত প্রসাধনী সংস্থার অ্যাকাউন্টে ভুল করে ১ বিলিয়ন টাকা পাঠিয়েছিল Citibank, ফেরত পাবেনা, বলছে আদালত
প্রসাধনী সংস্থার দাবি- একটা লোন হিসেবে ব্যাঙ্কের কাছ থেকে তাদের ৫০০ মিলিয়ন ডলার পাওনা ছিল। ফলে, তাদের মনে হয়েছে যে এটা সেই টাকা এবং তারা অঙ্কটা খরচ করে ফেলেছে।

প্রসাধনী সংস্থার দাবি- একটা লোন হিসেবে ব্যাঙ্কের কাছ থেকে তাদের ৫০০ মিলিয়ন ডলার পাওনা ছিল। ফলে, তাদের মনে হয়েছে যে এটা সেই টাকা এবং তারা অঙ্কটা খরচ করে ফেলেছে।

  • Share this:

#ওয়াশিংটন: শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নয়, সে ভাবে দেখলে একই সঙ্গে এটা বিশ্বের ব্যাঙ্কিংয়ের ইতিহাসেও সব চেয়ে বড় ভুল! যার ফলে এখন রীতিমতো লোকসানের মুখোমুখি হয়েছে Citibank। কিন্তু সেই লোকসান যে সামলানো যাবে না, ভরাডুবি সঙ্গে করেই এগোতে হবে ভবিষ্যতের দিকে, সে মর্মে সাফ রায় দিয়েছে আদালত।

জানা গিয়েছে যে সম্প্রতি বিখ্যাত প্রসাধনী সংস্থা Revlon-এর বেশ কয়েকটি অ্যাকাউন্ট মিলিয়ে Citibank-এর তরফে ৮ মিলিয়ন ডলার ইন্টারেস্ট পেমেন্ট হিসেবে পাঠানোর কথা ছিল। কিন্তু ব্যাঙ্ক ভুল করে প্রসাধনী সংস্থাকে ১৭৫ মিলিয়ন ডলারের হেজ ফাণ্ড-সহ ৯০০ মিলিয়ন ডলার পাঠিয়ে দিয়েছে। আর এখান থেকেই দেখা দিয়েছে বিপত্তি!

ডিজিটাল লেনদেনের যুগে ব্যাঙ্ক ভুল করে গ্রাহকের অ্যাকাউন্টে বেশি টাকা পাঠিয়েছে, তেমন খবর কিন্তু মাঝে মাঝেই উঠে আসে সংবাদমাধ্যমের শিরোনামে। তেমনটা হলে গ্রাহককে সেই টাকা ফেরত দিতে হয়। খরচ করে ফেললে যে কোনও উপায়ে শোধ দিতে হয়। এই ব্যাপারে ব্যাঙ্ককে সহযোগিতা করে আদালতের নির্দেশ। কিন্তু এক্ষেত্রে খোদ আদালতের রায় চলে গিয়েছে Citibank-এর বিপক্ষে। জানা গিয়েছে যে প্রসাধনী সংস্থার কাছ থেকে কিছু পরিমাণ টাকা ফেরত পেয়েছে ব্যাঙ্ক। কিন্তু এখনও ৫০০ মিলিয়ন ডলার ফেরত পাওয়া বাকি! যেটা কিছুতেই আদায় করা যাচ্ছে না।


কেন না, আমেরিকার আইন এক্ষেত্রে প্রসাধনী সংস্থার সহায়ক হয়েছে। সেই আইন মোতাবেকে ব্যাঙ্ক যদি কোনও মার্কিন নাগরিক বা প্রতিষ্ঠানের অ্যাকাউন্টে কোনও কারণে বেশি টাকা ট্রান্সফার করে থাকে, তাহলে নাগরিক বা প্রতিষ্ঠান সেই টাকা ফেরত দিতে বাধ্য নয়, ব্যাপারটা নির্ভর করছে তার মর্জির উপরে। প্রশ্ন হল, Revlon যখন কিছু টাকা ফেরত দিয়েছে, তখন এই ৫০০ মিলিয়ন ডলারের অঙ্কটা নিয়ে ব্যাঙ্কের সঙ্গে সহযোগিতা করছে না কেন?

প্রসাধনী সংস্থার দাবি- একটা লোন হিসেবে ব্যাঙ্কের কাছ থেকে তাদের ৫০০ মিলিয়ন ডলার পাওনা ছিল। ফলে, তাদের মনে হয়েছে যে এটা সেই টাকা এবং তারা অঙ্কটা খরচ করে ফেলেছে। যদিও আদালতের রায় এবং প্রসাধনী সংস্থার বক্তব্যে সন্তুষ্ট হতে পারছে না ব্যাঙ্ক। Citigroup-এর তরফে এক উচ্চপদস্থ কর্তা জানিয়েছেন যে আদালতের এই রায় অযৌক্তিক, Revlon-ও ইচ্ছে করেই টাকাটা ফেরত দিচ্ছে না যা ব্যাঙ্কের ফিরে পাওয়ার অধিকার রয়েছে। তাই এই মর্মে ব্যাঙ্ক আবার আদালতের দ্বারস্থ হবে বলে জানা গিয়েছে।

Published by:Pooja Basu
First published: