• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • BOY DOZES OFF ON LIZARD WHILE DOING HOMEWORK WAKES UP WITH REPTILE IMPRESSION ON HIS FACE TC RM

পড়তে পড়তে টিকটিকির উপরে ঘুমিয়ে পড়ল খুদে, তারপর যা হল...

ঘুম থেকে ওঠার পর খুদের অবস্থা যা হয়েছিল,তা দেখে অবাক নেটিজেনদের একাংশ...

ঘুম থেকে ওঠার পর খুদের অবস্থা যা হয়েছিল,তা দেখে অবাক নেটিজেনদের একাংশ...

  • Share this:

#তাইওয়ান: করোনার জেরে বেশ কয়েক মাস বন্ধ ছিল স্কুল-কলেজের পঠনপাঠন। অনলাইনে পড়াশোনা সে ভাবে হয়নি বললেই চলে। কিন্তু সংক্রমণ কমতে থাকায় আবার আগের পরিস্থিতিতে ফিরতে শুরু করেছে স্কুল-কলেজগুলি। পড়াশোনাও শুরু হয়েছে পুরো দমে। প্রত্যেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানই বর্তমানে পরীক্ষা নিতে ব্যস্ত। এই পরিস্থিতিতে নিজের পড়া শেষ করতে গিয়ে ক্লান্ত হয়ে টিকটিকির উপরে ঘুমিয়ে পড়ল এক খুদে। তার পর?

পড়তে পড়তে বইয়ের উপরে ঘুমিয়ে পড়ার ইতিহাস অনেকেরই রয়েছে। খুব ক্লান্ত থাকলে অনেক সময়ে স্কুলে ক্লাস চলাকালীনও এমন ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু তাইওয়ানের এই খুদে ঘুমিয়ে পড়ল একেবারে টিকটিকির উপরে। ঘুম থেকে ওঠার পর তার অবস্থা যা হয়েছিল,তা দেখে অবাক নেটিজেনদের একাংশ। শুধু তাই নয়, অনেকেই তার ক্লান্তির পরিমাণ ও শারীরিক অবস্থা নিয়েও কথা বলেছেন।

সম্প্রতি জ্যাকসন লু (Jackson Lu) নামের একটি Twitter প্রোফাইল থেকে দু'টি ছবি কোলাজ করে পোস্ট করা হয় যাতে দেখা যায়, একটিতে একটি বাচ্চার মুখে টিকটিকির ছাপ। অন্য দিকে দাগ টানা বাচ্চাদের খাতায় অক্ষর লেখা। যার ক্যাপশন পড়ে বোঝা যায়, বাচ্চাটি পড়তে পড়তে ক্লান্ত হয়ে মরা টিকটিকির উপরে ঘুমিয়ে পড়ে ও ওঠার পর দেখা যায়, তার গালে টিকটিকির ছাপ।

https://twitter.com/menlin_fitri/status/1363480031767367686

কোলাজটি পোস্টের সঙ্গে সঙ্গেই কার্যত ভাইরাল হয়। প্রায় পাঁচ হাজার বার রিট্যুইট হয় সেটি। অনেকেই বলতে থাকেন, যদি টিকটিকিটি বেঁচে থাকত, তাহলে কী হত! অবশ্য জানা যায়, সেটি আগেই মরে গিয়েছিল এবং খাতায় পড়েছিল। কিন্তু তা খেয়াল করেনি বাচ্চাটি। সে এতই ক্লান্ত ছিল যে ঘুমিয়ে পড়ে।

এই ছবি দেখার পরে অনেকেই অনেক রকম মন্তব্য করেন। কেউ শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। কেনই বা বাচ্চাটি পড়তে বসে এত ক্লান্ত হবে যে সে কার উপরে ঘুমোচ্ছে হুঁশ থাকবে না, সেই নিয়ে কথা হয়। পাশাপাশি অনেকেই কোভিড পরিস্থিতিতে বাচ্চাদের পড়াশোনার অভ্যাস নষ্ট হয়ে যাওয়া এবং একটা বড় গ্যাপের পর এই অভ্যাস আবার ফিরিয়ে আনতে সমস্যা হওয়ার কথাও উল্লেখ করেন।

এছাড়াও পোস্টটিতে একাধিক উদ্ভট মন্তব্য আসে। অনেকে লেখেন, তাঁদের গালে এমন  হলে কী যে করতেন, তা তিনি ভেবে উঠতেও পারছেন না। অনেকে আবার লেখেন যে তাঁরা গালটাই কেটে ফেলতেন!

https://twitter.com/eniwayy/status/1364057606168305670 https://twitter.com/kh4irulnzm/status/1363855774657646594

টিকটিকির প্রতি অনেকেরই ভয় ও ঘৃণা থাকে, ফলে সেখান থেকেও অনেকে অনেক কমেন্ট করেন।

Published by:Rukmini Mazumder
First published: