বিদেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

১০ লক্ষ ছাড়াল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, ১ মাসের জন্য ফের লকডাউন ইংল্যান্ডে

১০ লক্ষ ছাড়াল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, ১ মাসের জন্য ফের লকডাউন ইংল্যান্ডে
Photo- Reuters

করোনাভাইরাসের সেকেন্ড ওয়েভের দাপটে তছনছ ইউরোপ৷

  • Share this:

#লন্ডন : প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন নতুন করে দেশে লকডাউনের ঘোষণা করলেন৷ করোনা ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ১০ লক্ষ পেরিয়ে যাওয়া ফের একবার লকডাউনের কঠিন সিদ্ধান্ত নেওয়া হল৷ এই মুহূর্তে ইংল্যান্ডে এটা করোনা ভাইরাসের সেকেন্ড ওয়েভ বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল৷

গোটা ইউরোপের মধ্যে  ব্রিটেনেই  করোনার জেরে এখনও অবধি মৃতের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি৷ এই মুহূর্তে এক একদিনে ইংল্যান্ডে ২০ হাজার মানুষ নতুন করে করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন৷ বিশেষজ্ঞরা সতর্কবার্তা জারি করে  জানিয়েছেন খারাপভাবে  "worst case"  হলে মৃতের সংখ্যা ৮০ হাজার ছাড়িয়ে যাবে৷

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে আগেই এক মাস লম্বা দ্বিতীয় পর্বের লকডাউনের খবর প্রকাশের পরই বরিস জনসন তড়িঘড়ি সিদ্ধান্ত নেন সারা ইংল্যান্ডে দ্বিতীয় পর্বে লকডাউন ঘোষণার৷ তিনি জানিয়েছেন বৃহস্পতিবার থেকে ইংল্যান্ডে লকডাউন শুরু হয়েছে যা ডিসেম্বরের ২ তারিখ অবধি চলবে৷

ব্রিটেনের দীর্ঘ ইতিহাসে এটা অন্যতম বড় সিদ্ধান্ত৷ মানুষকে একেবারেই বিশেষ কারণ ছাড়া কোনওভাবেই বাড়ির বাইরে বেরোতে দেওয়া হবে না৷ এই কারণগুলির মধ্যে রয়েছে পড়াশুনো, কাজ, ব্যায়াম, নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস ও ওষুধপত্র কেনা৷  পাশাপাশি অথর্বদের সেবার জন্যেও ছাড় দেওয়া হবে৷

এদিনের সাংবাদিক সম্মেলনে বরিস জনসন জানান, "Now is the time to take action because there is no alternative,"-অর্থাৎ ‘‘এখন এটা পদক্ষেপ নেওয়ার সময় আর কোনও বিকল্প নেই৷ ’’ এদিনের সাংবাদিক সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সঙ্গে ছিলেন প্রধান মেডিক্যাল অফিসার ক্রিস হুয়িটি এবং প্রধান সায়েন্টিফিক অ্যাডভাইসর প্যাট্রিক ভ্যালান্সে৷

বরিস প্রশাসন জানিয়েছেন করোনা ভাইরাস আপতকালীন মজুরি ভর্তুকি স্কিম চালু করা হবে ৷ যাতে সারা ইংল্যান্ডের যে কর্মচারীরা কাজ করতে পারবেন না তারা অর্থ পান৷ তাদের মাইনের ৮০ শতাংশ তাঁদের হাতে তুলে দেওয়া হবে৷

অত্যাবশকীয় পণ্য, স্কুল, বিশ্ববিদ্যালয় খোলা থাকবে৷ জনসন জানিয়েছেন পাব ও রেস্তোঁরা বন্ধ থাকবে৷ তবে টেক অ্যাওয়ে পরিষেবা খোলা থাকবে৷ অত্যাবশকীয় নয় এরকম সমস্ত দোকান বন্ধ থাকবে৷

 বিজ্ঞানীরা ভয়াবহ দিনের পূর্বাভাস দেওয়ার পরেই  জনসন এরকম কড়া লকডাউনের কঠিনতম সিদ্ধান্ত নেন৷ জানানো হয়েছে আগেই যদি কড়া ভাবে লকডাউন পালন না করা হয় তাহলে ক্রিসমাসে কোনওভাবেই পরিবার একত্র হয়ে উৎসব পালন করতে পারবেন না৷

Published by: Debalina Datta
First published: November 1, 2020, 9:13 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर