• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • মাত্র ৭২ ঘণ্টা সময়, হিউস্টনের চিনা দূতাবাস বন্ধ করতে নির্দেশ আমেরিকার

মাত্র ৭২ ঘণ্টা সময়, হিউস্টনের চিনা দূতাবাস বন্ধ করতে নির্দেশ আমেরিকার

হিউস্টনের চিনা কনসুলেট।

হিউস্টনের চিনা কনসুলেট।

এদিন প্রতিরক্ষা মুখপাত্র ভিয়েনা কথাও টেনে আনেন। তার কথায় সেই চুক্তি লঙ্ঘন করেই মার্কিন অভ্যন্তরীন বিষয়ে নাক গলিয়েছে চিন যা আদৌ কাম্য নয়।

  • Share this:

    ওয়াশিংটন: প্রয়োজন মার্কিন নাগরিকদের তথ্যে সুরক্ষা নিশ্চিত করা। এই যুক্তিতেই টেক্সাসের হিউস্টন শহরের চিনা দূতাবাস ৭২ ঘণ্টার মধ্যে বন্ধ করার নির্দেশ দিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতর থেকে আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দিয়ে এই পদক্ষেপের কথা জানানো হয়েছে।

    মার্কিন প্রতিরক্ষা মুখপাত্র মর্গান ওর্তাগাস জানাচ্ছেন, মার্কিন নাগরিকদের বৌদ্ধিক সম্পত্তি তথা আমেরিকার সার্বভৌমত্ব তাদের কাছে মূল্যবান। এই কারণেই এমন সিদ্ধান্ত।

    এদিন প্রতিরক্ষা মুখপাত্র ভিয়েনা চুক্তির প্রসঙ্গও টানেন। তাঁর কথায়, সেই চুক্তি লঙ্ঘন করেই মার্কিন অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলিয়েছে চিন যা আদৌ কাম্য নয়।

    মার্কিন প্রেসিডেন্ট এদিন এমনটাও বলেন, এমন সম্ভাবনাও অদূর ভবিষ্যতে রয়েছে যে চিনা নানা প্রকল্প বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

    মঙ্গলবার হিউস্টন দূতাবাসের পিছনের একটি ডাস্টবিনে আগুন জ্বলতে দেখা য়ায়। কে বা কারা ওখানে কাগজ এনে জ্বালালেন তার কোনও ব্যাখ্যা পাওয়া যায়নি। তবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, 'ওরা জরুরি কাগজপত্র পুড়িয়ে ফেলছে।আমি অবাক হয়ে যাচ্ছি।'

    পরিস্থিতি নিয়ে মার্কিন প্রশাসনকে বিঁধছে বেজিং। চিনা দূতাবাসের মুখপাত্র হুয়াং চুনইয়াং ট্যুইটারে লিখেছেন, মার্কিন বিষোদগারের ফলে আমরা বোমা এবং খুনের হুমকি পাচ্ছি। এই ধরনের সিদ্ধান্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অবিলম্বে পরিত্যাগ করা উচিত।

    বাণিজ্যমহলের একাংশ বলছে, পাল্টা প্রত্যাঘাত এনে চিনও হংকং, সাংহাই, গুয়াংঝোউ এর মতো প্রদেশে দূতাবাস বন্ধের সিদ্ধান্ত নিতে পারে।

    প্রসঙ্গত এদিন মার্কিন গোয়েন্দা বিভাগের শীর্ষকর্তা রিচার্ড গ্রেনেল বলেন, সানফ্রান্সিসকোর চিনা দূতাবাসটিও বন্ধ করতে পারতেন তাঁরা। আপাতত হিউস্টন দিয়েই শুরু হল।

    কূটনৈতিক মহল মনে করছে, নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে চিন বিরোধিতার অস্ত্রেই দেশবাসীর থেকে ডিভিডেন্ট ঘরে তুলতে চাইছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

    Published by:Arka Deb
    First published: