• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • AN ARTIFICIAL INTELLIGENCE ROBOT HAS BEEN TAUGHT TO MAKE BANKSY INSPIRED ARTWORK TC SDG

যন্ত্র টেক্কা দিচ্ছে মানুষকেই! ব্রিটিশ শিল্পীর স্ট্রিট-আর্টের হুবহু অনুকরণ করছে আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স

গ্যান্ক্সি নামের আর্টিফিসিয়াল ইনটেলিজেন্স যা করে দেখাচ্ছে, তা একই সঙ্গে যেমন বিস্ময়ের উদ্রেক করছে, তেমনই মনে জাগাচ্ছে ভয়।

গ্যান্ক্সি নামের আর্টিফিসিয়াল ইনটেলিজেন্স যা করে দেখাচ্ছে, তা একই সঙ্গে যেমন বিস্ময়ের উদ্রেক করছে, তেমনই মনে জাগাচ্ছে ভয়।

  • Share this:

#যন্ত্র যে মানুষের চেয়ে কাজ করতে পারে অনেক বেশি নিখুঁত ভাবে, সে খুব নতুন কোনও ব্যাপার নয়! এই যেমন ওয়াশিং মেশিনের ব্যাপারটাই ধরা যাক না কেন! মানুষ কি চাইলেও এত নিখুঁত ভাবে কাপড় কাচতে পারে?

কিন্তু সে বিষয়টা সীমাবদ্ধ তাকে পেশিশক্তির মধ্যে। মানে, মানুষের শারীরিক পরিশ্রমের একটা নির্দিষ্ট আওতা আছে। তার বাইরে চেষ্টা করতে গেলে ক্লান্তি আসাই স্বাভাবিক! ও দিকে যন্ত্রের ক্লান্তি বলে কিছু নেই, তাই কাজও সে যখন খুশি করতে পারে একই রকম দক্ষতার সঙ্গে প্রত্যেক দফাতেই!

কিন্তু এখানে গ্যান্ক্সি নামের আর্টিফিসিয়াল ইনটেলিজেন্স যা করে দেখাচ্ছে, তা একই সঙ্গে যেমন বিস্ময়ের উদ্রেক করে, তেমনই মনে জাগায় ভয়। তা যেন অনেকটা অ্যারিস্টটলের ক্যাথারসিস থিওরির মতো! এমন একটা ভুল হল মানুষের তরফে যা ডেকে আনল ট্র্যাজেডি, পরিণামে অনুকম্পা, বিস্ময় আর ভীতি জন্ম নিল অন্যদের জগতে।

এখানে খুব সম্ভবত সেই ভুল এই আর্টিফিসিয়াল ইনটেলিজেন্স নির্মাতাসংস্থা রাউন্ডের। তাদের তৈরি এই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রায় সমানে সমানে টেক্কা দিচ্ছে বিখ্যাত ব্রিটিশ শিল্পী ব্যান্ক্সির ছবির সঙ্গে। সেই ১৯৯০ সাল থেকে ইংলন্ডের রাস্তাকে নিজের যে ছবি দিয়ে সাজিয়েছিলেন শিল্পী, যা বর্তমানে সারা পৃথিবীতেই স্ট্রিট আর্টের পরাকাষ্ঠা, তাকেই নকল করছে গ্যান্ক্সি!

লক্ষ্য করার মতো ব্যাপার, শুধু শিল্পের দিক থেকেই নয়, নামের দিক থেকেও শিল্পীকে অনুসরণ করছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা! রাউন্ড জানিয়েছে যে চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে প্রকাশ্যে আসা এই গ্যান্ক্সি ব্রিটিশ শিল্পীর আঁকার ধরন, রেখার কাজ, রঙের ব্যবহার- সব কিছুকেই অত্যন্ত খুঁটিয়ে পর্যবেক্ষণ করছে। তার পর এমন ছবি আঁকছে যা দেখে আসলে-নকলে তফাত করা দায় হয়ে পড়ছে!

খবর এও বলছে যে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার আঁকা এমন একেকটি ছবির আপাতত দাম ধার্য করা হয়েছে মাত্র ১ ইউরো! যদিও প্রতি বার বিক্রির সঙ্গে ১ ইউরো করে দাম বৃদ্ধি পাবে, সেটাও জানাতে ভোলেনি সংস্থা। খবর মোতাবেকে, এখনও পর্যন্ত গ্যান্ক্সির ৮৩টি ছবি বিক্রির ক্রেতা জোগাড় হয়ে গিয়েছে। সন্দেহ নেই, ভবিষ্যতে তা আরও বাড়বে!

কাজেই শিল্পের দিক থেকে দেখলে তা একটা হুমকি তো বটেই! মানুষ তার শৈল্পিক সত্তা আর বুদ্ধির দিক থেকেই সেরা জগতে। এ বার যদি সেই জায়গাটা হারাতে হয়, তা হলে সভ্যতার পক্ষে বিপদ আছে বইকি!

Published by:Shubhagata Dey
First published: