corona virus btn
corona virus btn
Loading

ধ্বংস করা হবে রণতরী, হুমকি চিনের! পাত্তাই দিল না মার্কিন নৌসেনা

ধ্বংস করা হবে রণতরী, হুমকি চিনের! পাত্তাই দিল না মার্কিন নৌসেনা
প্রতীকী চিত্র৷

এই মুহূর্তে দক্ষিণ চিন সাগরের একাংশ জুড়ে সামরিক মহড়া চালাচ্ছে চিনের নৌবাহিনীও৷ প্রায় গোটা চিন সাগরের উপরেই নিজেদের আধিপত্য বজায় রাখতে চায় বেজিং৷

  • Share this:
#বেজিং: দক্ষিণ চিন সাগরের গোটাটাই চিনা সেনার দখলে রয়েছে৷ সেখানে কোনও মার্কিন নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজের গতিবিধি চিনের ইচ্ছের উপরে নির্ভরশীল৷ আমেরিকাকে হুমকি দিয়ে এমনই দাবি সহ ট্যুইট করেছিল চিনের সরকারি মুখপত্র গ্লোবাল টাইমস৷চিনের এই চোখরাঙানিকে কার্যত আমলই দিল না মার্কিন নৌসেনা৷ ট্যুইটের জবাব দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হল, এখনও দক্ষিণ চিন সাগরে দু'টি মার্কিন রণতরী রয়েছে৷ চিনের ভয়ে ওই যুদ্ধজাহাজগুলি প্রত্যাহারের কোনও সম্ভাবনাই নেই বলেও জানিয়ে দিয়েছে মার্কিন নৌসেনা৷
দক্ষিণ চিন সাগরে পরমাণু জ্বালানিতে চলা যুদ্ধবিমান বহনে সক্ষম দু'টি রণতরী মোতায়েন করেছে আমেরিকা৷ সেখানেই সামরিক মহড়া চালাচ্ছে মার্কিন নৌবাহিনী৷ এর পরই রবিবার গ্লোবাল টাইমস-এর মাধ্যমে মার্কিন নৌবাহিনীকে হুমকি দেয় চিনা সেনা৷ দাবি করা হয়, DF-21D এবং DF-26-এর মতো অ্যান্টি এয়ারক্র্যাফ্ট কেরিয়ার কিলার মিসাইলের নাগালের মধ্যেই রয়েছে মার্কিন যুদ্ধজাহাজ দু'টি৷ চাইলেই চিন মার্কিন রণতরীগুলিকে ধ্বংস করতে পারে বলেও প্রচ্ছন্ন হুঁশিয়ারি দেয় চিন৷   যদিও চিনের এই দাবিতে বিশেষ আমল দেয়নি মার্কিন নৌবাহিনী৷ তারা গ্লোবাল টাইমস-এর ট্যুইটের জবাব দিয়ে জানায়, তাদের দু'টি রণতরী USS Nimitz এবং USS RonaldReagan এখনও দক্ষিণ চিন সাগরেই রয়েছে৷ সেখান থেকে সরে আসারও কোনও পরিকল্পনা নেই৷ চিনের হুঁশিয়ারির জবাবে মার্কিন নৌবাহিনীও জানিয়ে দিয়েছে, তারা যা করবে নিজেদের ইচ্ছেতেই করবে৷
এই মুহূর্তে দক্ষিণ চিন সাগরের একাংশ জুড়ে সামরিক মহড়া চালাচ্ছে চিনের নৌবাহিনীও৷ প্রায় গোটা চিন সাগরের উপরেই নিজেদের আধিপত্য বজায় রাখতে চায় বেজিং৷ তাই নিয়ে তাইওয়ানের মতো প্রতিবেশী দেশগুলির সঙ্গে চিনের বিবাদও রয়েছে৷ চিন বাদে ভিয়েতনাম, মালয়েশিয়া, ব্রুনেই, তাইওয়ান, ফিলিপিনসের মতো বিভিন্ন দেশ দক্ষিণ চিন সাগরের বিভিন্ন অংশকে নিজেদের বলে দাবি করে৷ কিন্তু বেজিংয়ের দাবি, দক্ষিণ চিন সাগরের ৯০ শতাংশই চিনের অধীনে পড়ে৷
যেহেতু আন্তর্জাতিক বাণিজ্যপথ হিসেবে দক্ষিণ চিন সাগর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, তাই সেখানে চিনের একাধিপত্য মানতে নারাজ আমেরিকাও৷ তাই দক্ষিণ চিন সাগরে নিজেদের রণতরী পাঠিয়ে চিনের উপরে চাপ বাড়াচ্ছে আমেরিকা৷ অন্যদিকে উত্তর চিন সাগর নিয়েও জাপানের সঙ্গে বিবাদ রয়েছে চিনের৷ সবমিলিয়ে জলে, স্থলে সর্বত্রই বিভিন্ন দেশের সঙ্গে বিবাদে জড়িয়ে যথেষ্টই চাপে রয়েছে বেজিং৷
Published by: Debamoy Ghosh
First published: July 6, 2020, 2:41 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर