Afghanistan Director : 'এখনও বেঁচে আছি', কাবুল থেকে বার্তা! চিঠিতে আকুল আর্তি পরিচালকের, 'আমাদের বাঁচান'...

আফগান পরিচালকের কাতর আর্জি

Afghanistan Director : করিমি তাঁর চিঠিতে লেখেন, "আপনাদের এই চুপ করে থাকা কেন, আমরা লড়তে চাই তবে একা আমরা কী করে পারব? এভাবে মুখ ফিরিয়ে থাকবেন না।"

  • Share this:

#আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে (Kabul) গত সপ্তাহেই চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজন করা হয়েছিল। কিন্তু তালিবান অধিগ্রহণের পর, সেই অনুষ্ঠান থেকে প্রাণ হাতে করে নিয়ে পালিয়ে বাঁচলেন চিত্র পরিচালক সাহারা করিমি (Sahraa Karimi)। স্যোশাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে তাঁর সেই ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতার ভাইরাল ভিডিও (viral video)। এরপরেই একটি চিঠিতে প্রাণ বাঁচানোর প্রার্থনা জানিয়েছেন এই পরিচালক (Afghanistan Director)।

চিঠিতে তিনি লেখেন, "আমার নাম সাহারা করিমি আমি একজন পরিচালক। আমি এই আশা নিয়ে এই লেখা লিখছি যাতে আপনারা আমাদের তালিবানের হাত থেকে বাঁচাতে পারেন। ওরা আমাদের মানুষকে খুন করেছে, মেয়েদের বিক্রী করে দিয়েছে। নেৎেদের খুন করছে তাদের বেশভূষার জন্য। ইতিহাসবিদ শিল্পী সাহিত্যিক কেউ বাদ যাচ্ছে না ওদের নৃশংসতার হাত থেকে।নির্মম ভাবে সরকারের লোকদের মেরে ঝুলিয়ে দিচ্ছে ওরা। কত হাজার মানুষকে ঘরছাড়া করছে তার ঠিক নেই।"

একইসঙ্গে পরিচালকের ক্ষোভ, "এত সব কিছু হচ্ছে কিন্তু গোটা পৃথিবী আশ্চর্যভাবে চুপ করে আছে। আমাদের এভাবে ফেলে দেবার অর্থ কী? বাহিনী সরিয়ে নেওয়া হল কেন? এটা সম্পূর্ণ বিশ্বাসঘাতকতা আমাদের সঙ্গে। কোল্ড ওয়ার জেতার পর আমাদের সবাই ভুলে গিয়েছিল। তালিবান শাসনের কালো দিক দেখার পর ওদের থেকে মুক্ত হবার পর সব ঠিক থাকার পর আবার সেই অন্ধকারে আমরা।" করিমি তাঁর চিঠিতে লেখেন, "আপনাদের এই চুপ করে থাকা কেন, আমরা লড়তে চাই তবে একা আমরা কী করে পারব? এভাবে মুখ ফিরিয়ে থাকবেন না।"

সাহারা করিমের মতো অসহায় আরও অনেকে আটকে পড়েছেন কাবুলে। কিছুদিন আগেই নেটওয়ার্ক 18 এর সঙ্গে কথা বলেছিলেন আফগানিস্তানের উওমেন সিভিল সোসাইটির প্রধান (Women civil society), মেরি আকরামি। মঙ্গলবার সারাদিন যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি। এই লেখা চলাকালীনই এল তাঁর বার্তা। "এখনও বেঁচে আছি। বেঁচে থাকতে পারাটাই এখন সবচেয়ে বড় যুদ্ধ।"

প্রসঙ্গত, দেশটা তালিবানদের দখলে চলে যাওয়ার পর থেকেই আতঙ্কে রয়েছে আফগানবাসী। প্রতিটা মুহূর্ত তাঁরা যেন মৃত্যু ভয়ের সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। এই পরিস্থিতিতে দেখা গিয়েছিল বিমান বন্দরে কাতারে কাতারে মানুষের ভিড়। প্রাণ ভয়ে একসঙ্গে সকলেই উঠতে চাইছেন বিমানে। এমনকি আকাশপথে চলতি বিমান থেকে মানুষও পড়তে দেখা গিয়েছিল যে দৃশ্য দেখে স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে গোটা বিশ্ব।

Published by:Sanjukta Sarkar
First published: