Afghanistan | Afghan woman: মাঝ আকাশেই প্রবল প্রসব যন্ত্রণা! চিকিৎসক ছাড়াই সন্তান জন্ম দিলেন আফগান মহিলা

Afghanistan: সন্তান জন্ম দিতে বিমানের কেবিনের কর্মীরা সোমান নুরি নামে ওই গর্ভবতী মহিলাকে সহায়তা করেন।

Afghanistan: সন্তান জন্ম দিতে বিমানের কেবিনের কর্মীরা সোমান নুরি নামে ওই গর্ভবতী মহিলাকে সহায়তা করেন।

  • Share this:

    #কাবুল: বিমানের মধ্যেই কন্যা সন্তানের জন্ম দিলেন এক আফগান মহিলা (Afghan woman)। তালিবানরা (Taliban) আফগানিস্তান (Afghanistan) দখল নেওয়ার পর থেকেই দেশের পরিস্থিতি অশান্ত। বিশেষ করে মহিলাদের নিরাপত্তা প্রশ্নের মুখে। তাই প্রাণে বাঁচতে আফগানিস্তানের মানুষ দেশ ছাড়ছেন। বিমানে চেপে দেশ ছাড়ছিলেন এই আফগান মহিলাও। কিন্তু যাওয়ার পথেই প্রসব যন্ত্রণা ওঠে তাঁর। আর বিমানেই তিনি সন্তানের জন্ম দেন।

    সন্তান জন্ম দিতে বিমানের কেবিনের কর্মীরা সোমান নুরি নামে ওই গর্ভবতী মহিলাকে সহায়তা করেন। সন্তান জন্ম দেওয়ার বিষয়টি তুরস্কের এয়ারলাইনস নিশ্চিত করেন। ২৬ বছরের ওই মহিলার যাত্রার সময়েই প্রসব যন্ত্রণা ওঠে। বিমানটি সেই সময়ে দুবাই থেরে ব্রিটেন যাচ্ছিল। মহিলা প্রসব বেদনার কথা জানান কর্মীদের। বিমান যখন ভূপৃষ্ঠ থেকে ৩৩ হাজার ফুট উপরে তখনই সেই মহিলা সন্তানের জন্ম দেন। এয়ারলাইনস জানিয়েছে মা ও সদ্যজাত দুজনেই সুস্থ আছেন। নুরির মেয়ের নাম রাখা হয়েছে হাভা। কেবিনেরই এক কর্মী সেই নাম রেখেছেন।

    জানা যাচ্ছে. মহিলার যখন প্রসব যন্ত্রণা ওঠে তখন সেই সময়ে বিমানে কোনও চিকিৎসক ছিলেন না। তখন বিমানের কর্মীরাই নিজেদের যতটুকু প্রশিক্ষণ রয়েছে তা কাজে লাগিয়ে সন্তান প্রসবে সাহায্য করেন।

    আফগানিস্তানের যে সমস্ত মানু‌ষ ব্রিটেনের সঙ্গে কাজ করেছেন, তাঁদের উদ্ধার করা হয় বিমানে। সেই বিমানটি ল্যান্ড করে কুয়েতে। তার পর কুয়েত থেকে বিমানটি ব্রিটেনের দিকে রওনা দেয়।

    তবে এই প্রথম নয়। সপ্তাহ খানেক আগে আরও এক আফগান মহিলা দেশ ছাড়ার সময়ে উদ্ধারকারী বিমানে সন্তান প্রসব করেন। মাঝা আকাশেই প্রবল প্রসব যন্ত্রণা শুরু হয়েছিল সেই মহিলার। বিমান অনেক উঁচুতে ছিল বলে সমস্যাও দেখা দিয়েছিল। তখন পাইলট বায়ুচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে বিমান কিছুটা নীচে নামান। অবশেষে জার্মানির রামস্টেইন এয়ার বেসে জন্ম হয় শিশুর। সেই বিমানে উপস্থিত মার্কিন সেনারাই প্রসবে সাহায্য করেন। সুস্থ শিশুর জন্ম দেন সেই মা।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: