• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • AFGHANISTAN AFGHAN FILMMAKER WAS COMPELLED TO LEAVE AFGHANISTAN FOR TALIBAN REGIME SWD

Afghanistan: বিদায় মাতৃভূমি! তালিবানদের জন্য দেশ ছাড়তে বাধ্য আফগান মহিলা পরিচালক

Afghanistan: দেশের মাটি ছেড়েছেন আফগান মহিলা চিত্র পরিচালক রোয়া হায়দারি। দেশ ছেড়ে আবেগপ্রবণ পোস্ট করলেন রোয়া।

Afghanistan: দেশের মাটি ছেড়েছেন আফগান মহিলা চিত্র পরিচালক রোয়া হায়দারি। দেশ ছেড়ে আবেগপ্রবণ পোস্ট করলেন রোয়া।

  • Share this:

    #কাবুল: তালিবানদের (Taliban) কব্জায় আফগানিস্তান। এর মধ্যেই আইসিস-এর (ISIS) ধারাবাহিক বিস্ফোরণে রক্তাক্ত কাবুল (Kabul)। আর এই সবের মধ্যে আফগানিস্তানের মহিলাদের ভবিষ্যৎ প্রশ্নের মুখে। তাই আফগানিস্তান ছেড়ে অন্য কোথাও গিয়ে প্রাণে বাঁচতে চাইছেন অনেকেই। দেশের মাটি ছেড়েছেন আফগান মহিলা চিত্র পরিচালক রোয়া হায়দারি। দেশ ছেড়ে আবেগপ্রবণ পোস্ট করলেন রোয়া।

    রোয়ার পোস্ট দেখেই আফগানিস্তানে বর্তমানে মহিলাদের পরিস্থিতি বো‌ঝা যায়। রোয়া লিখছেন, আমি আমার গোটা জীবনটা ছেড়ে চলে এলাম। আমার ঘর ছাড়তে বাধ্য হলাম যাতে স্বাধীন ভাবে কথা বলা চালিয়ে নিয়ে যেতে পারি। ২০ বছর আগের ভয়ঙ্কর স্মৃতিও মনে রয়ে গিয়েছে মানুষের।

    ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত পর্যন্ত তালিবানদের কব্জায় ছিল আফগানিস্তান। সেই সময়ে ঘরের বাইরে বেরোনোই নিষিদ্ধ হয়ে গিয়েছিল মহিলাদের। কর্মক্ষেত্র থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সর্বত্রই বন্ধ হয়েছিল মহিলাদের যাতায়াত। আর সেই জন্যই সন্ত্রস্ত মহিলারা। যদিও তালিবানরা এবার অন্য ভাবমূর্তি তুলে ধরার চেষ্টা করছে। তারা বলছে, এবার তারা মহিলাদের কর্মক্ষেত্রে যাওয়ার অনুমতি দেবে। কিন্তু তালিবানদের উপরে বিশ্বাস করতে নারাজ আফগানিস্তানের মানুষ।

    কাবুল বিমানবন্দর থেকে দেশ ছাড়ার সময়ে রোয়া একট‌ি ছবি পোস্ট করেন টুইটারে। তিনি লিখছেন, আরও একবার মাতৃভূমি থেকে পালিয়ে যেতে হচ্ছে আমায়। আরও একবার আমায় শূন্য থেকে শুরু করতে হবে। আমি আমার সঙ্গে শুধু আমার ক্যামেরা নিয়েছি আর আমার মৃত আত্মা নিয়ে যাচ্ছি সঙ্গে করে। ভাঙা মন নিয়ে যাচ্ছি। বিদায় মাতৃভূমি যতক্ষণ না আমাদের আবার দেখা হচ্ছে।

    জানা যাচ্ছে পাঁচদিন আগেই কাবুল ছেড়ে ফ্রান্সে পৌঁছতে সক্ষম হয়েছেন রোয়া হায়দারি। বৃহস্পতিবার একাধিক আত্মঘাতী বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে আফগানিস্তানের কাবুলের হামিদ কারজাই বিমানবন্দর (Kabul Airport Blast)। এই বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করে নিয়েছে আইসিস। কাবুল থেকে মার্কিন বিমানের উড়ানের ঠিক আগে বিস্ফোরণ। বিমানবন্দরের অ্যাবে গেটের কাছে আত্মঘাতী বিস্ফোরণ হয়। এছাড়া কাবুলের ব্যারন হোটেলের সামনেও বিস্ফোরণ হয়।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: