Mumbai 26/11: ‘এক কাপ চা আমার প্রাণ বাঁচিয়েছে সেদিন ’– News18 Bengali

Mumbai 26/11: ‘এক কাপ চা আমার প্রাণ বাঁচিয়েছে সেদিন ’

দশটা বছর পেরিয়ে গিয়েছে ৷ এখনও নভেম্বরের ২৬ তারিখ আসলেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে সেই বিভৎসতা ৷ রক্তে ভেসে যাচ্ছে মুম্বইয়ের রাজপথ ৷ গোটা এলাকায় আগুনের কালো ধোঁয়া ৷ আর্তনাদ, চিৎকার, কান্না ৷ ১০ বছর কেটে গেলেও, সেই দিনটার কথা ভেবে এখনও কেঁপে ওঠে অবিনাশের বুক

News18 Bangla
Updated:Nov 26, 2018 02:58 PM IST
Mumbai 26/11: ‘এক কাপ চা আমার প্রাণ বাঁচিয়েছে সেদিন ’
News18 Bangla
Updated:Nov 26, 2018 02:58 PM IST

প্রতিবেদন: প্রণয় ভোর

#মুম্বই: দশটা বছর পেরিয়ে গিয়েছে ৷ এখনও নভেম্বরের ২৬ তারিখ আসলেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে সেই বিভৎসতা ৷ রক্তে ভেসে যাচ্ছে মুম্বইয়ের রাজপথ ৷ গোটা এলাকায় আগুনের কালো ধোঁয়া ৷ আর্তনাদ, চিৎকার, কান্না ৷ ১০ বছর কেটে গেলেও, সেই দিনটার কথা ভেবে এখনও কেঁপে ওঠে অবিনাশের বুক ৷ অবিনাশ, মুম্বইয়ের ছত্রপতি শিবাজী টার্মিনাসের বাইরে খবরের কাগজ বিক্রি করে সে ৷ এখনও নিয়মিত সকাল থেকে বিকেল টার্মিনাসের সামনে মাটিতে বসে থাকে থাকে সাজানো খবর কাগজের মাঝে বসে রোজগার করে চলেছে অবিনাশ ৷ ২০০৮ সালের ২৬ নভেম্বরও অবিনাশ একই কাজ করছিল ৷ কিন্তু হঠাৎই যেন সব বদলে গেল নিমেশের মধ্যে ৷ সে দিনের কথা বলতে গিয়ে আজও অবিনাশ কেমন যেন থমকে যায় ৷

kash2

আর শুধুই বলে, ‘এক কাপ চা আমার প্রাণ বাঁচিয়েছে ৷ সেদিন যদি বন্ধুর কথা না শুনতাম...’ ৷ ১০ বছর আগে এদিনে ঠিক কী ঘটেছিল অবিনাশের সঙ্গে?

Loading...

একটু থমকে গেল অবিনাশ ৷ অবিনাশের চোখের ভিতর জমে উঠল জল ৷ তারপর বলতে শুরু করল,

রাত তখন সাড়ে ৯ টা ৷ অন্য দিনের মতো আমি আমার দোকান গোছাছিলাম ৷ খবরের কাগজ ও ম্যাগাজিনগুলোকে আমার ব্যাগের ভিতর ভরছিলাম ৷ গোছানো শেষে বাইরে বের হতে যাব, ঠিক এই সময়ই আমার এক বন্ধু আমাকে বলল, ‘চল একটা চা খাই ৷’ প্রথমে বন্ধুকে আমি না করি ৷ কিন্তু হঠাৎ কি মনে হল, বন্ধুর চা খাওয়ার প্রস্তাবটা নিয়েই ফেললাম ! এখন ভাবি যদি সেদিন না করতাম, তাহলে কী হতো ৷

কিছুক্ষণ যেন চুপ করে রইলেন অবিনাশ, তারপর আবার শুরু করলেন...

এখনও স্পষ্ট মনে আছে ৷ চা খেয়ে আমি আসতে আসতে এক প্ল্যাটফর্ম থেকে অন্য প্ল্যাটফর্মের দিকে হাঁটা দিলাম ৷ তখন দেখি, প্রচুর লোকজন ছোটাছুটি শুরু করে দিয়েছে ৷ চিৎকার করছে ৷ কান্নাকাটি করছে ৷ আমি কিছুই বুঝতে পারছিলাম না৷ হঠাৎ কানে আসে ফায়ারিংয়ের আওয়াজ ৷ আমি চট করে বাইরে বেরিয়ে আসি ৷ চোখের সামনে দেখি, আগুন জ্বলছে চারিদিকে৷ একের পর এক মৃতদেহ লুটিয়ে রয়েছে রাস্তায় ৷ আমি ভয় পেয়ে গেছিলাম ৷ হঠাৎ চোখের সামনে দিয়ে কাসাভ হেঁটে চলে যায় ৷ খুব কাছ থেকে দেখেছিলাম তাকে ৷  সেদিন মৃত্যুকে খুব কাছ থেকেই দেখেছিলাম ৷ এখনও ভুলতে পারেনি সেই রাত !

দীর্ঘ নিশ্বাস ফেলে অবিনাশ ৷ চোখের জল মুছে আবার বলতে থাকে...

‘আমার সেই চায়ের বন্ধুর কিন্তু প্রাণ রক্ষা হয়নি ৷ কাসবের হাতেই মারা গিয়েছে সে ৷ কিন্তু সেই বন্ধুর চায়ের প্রস্তাবেই আজ বেঁচে আছি আমি...’

বিহারের বাসিন্দা অবিনাশ, সেই ঘটনার পড়ে কিছুদিনের জন্য স্তব্ধ হয়ে গেলেও, মুম্বই ছেড়ে চলে যাননি ৷ বরং এখনও অবিনাশ সেই ছত্রপতি শিবাজী টার্মিনাসেই খবরের কাগজ বিক্রি করে চলেছেন ৷ যদিও তার বন্ধু আজ পাশে নেই !

First published: 02:51:12 PM Nov 26, 2018
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर