Football World Cup 2018

বাড়িতেই তৈরি করুন বিজয়ার মিষ্টি, রইল রেসিপি

Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Sep 29, 2017 05:12 PM IST
বাড়িতেই তৈরি করুন বিজয়ার মিষ্টি, রইল রেসিপি
How to make sweet at home
Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Sep 29, 2017 05:12 PM IST

#কলকাতা: পুজো প্রায় শেষ ৷ নবমীর পরই বিজয়া ৷ তবে উৎসবের শেষ হয় না ৷ যেন নতুন করে শুরু৷ তাই প্রতিবারের নিয়মকে একটু পালটে এবার নতুন কিছু ৷ প্রতিবারই দোকান থেকে মিষ্টি এনে বিজয়ার উৎসবে মেতে ওঠেন ৷ বাড়িতে লোকজন এলে প্লেটে সাজিয়ে দেন নানা ধরণের মিষ্টি ৷ এবার না হয় নিয়মটা একটু পাল্টে ফেলুন ৷ বাড়িতেই করে নিন, বিজয়ার মিষ্টি ৷

পান্তুয়া

পান্তুয়া উপকরণ: শিরার জন্য: জল দেড় কাপ, চিনি দেড় কাপ। মিষ্টির জন্য: ক্রিম আধা কাপ, গুঁড়ো দুধ ১ কাপ, ময়দা ২ চা-চামচ, ঘি দেড় কাপ ও ১ টেবিল চামচ। প্রণালি: চিনি ও জল একত্রে জ্বাল দিয়ে শিরা তৈরি করুন। গুঁড়ো দুধ ও ময়দা মিশিয়ে ক্রিম দিয়ে ছেনে মসৃণ ডো তৈরি করুন। ১ টেবিল চামচ ঘি মিশিয়ে আরেকটু মসৃণ করে ছেনে নিন। ১০-১২টি ভাগ করুন। হাতের তালুতে একেকটি ভাগ ডো নিয়ে গোল গোল মিষ্টি তৈরি করুন। কড়াইয়ে ঘি অল্প আঁচে গলিয়ে গরম করুন। এবার মাঝারি আঁচে মিষ্টিগুলো ঘিয়ে ঢেলে লালচে রং করে ভেজে নিন। সঙ্গে সঙ্গে শিরায় ছেড়ে দিন। ৩-৪ মিনিট মিষ্টিসহ শিরা জ্বাল দিন। নামিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

ছানার সন্দেশ

উপকরণ: ছানা ৪ কাপ, ক্রিম ১৭০ গ্রাম, চিনি ২ কাপ মাওয়া (গ্রেটেড) দেড় কাপ, এলাচ গুঁড়ো দেড় চা-চামচ, মাখন ১ টেবিল চামচ। প্রণালি: ছানা তিন ভাগের দু’ভাগ চুলায় দিয়ে মাঝারি আঁচে অল্প অল্প করে চিনি দিয়ে রান্না করুন। চিনি ও ছানা মিশে গেলে বাকি এক ভাগ ছানা দিয়ে নাড়ুন। এবার জল টেনে ছানা চিনিতে মিশে পাক ধরলে ক্রিম ও মাওয়া মিশিয়ে গ্যাস ওভেন বন্ধ করে নিন। মাখন ব্রাশ করে ছানা ঢেলে খুন্তি দিয়ে চেপে সমান করুন। ঠান্ডা হলে ফ্রিজে ৪-৫ ঘণ্টা রাখুন। এবারে স্কয়ার বা বরফির আকারে কেটে ওপরে পেস্তা কুচি দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

কমলাভোগ

কমলাভোগ উপকরণ: (মিষ্টির জন্য): দুধ (স্কিম মিল্ক বা ফ্যাট ফ্রি হলে ভালো হয়) ২ লিটার, কমলার রস ২ কাপ, সিরকার ও পানির মিশ্রণ ১ কাপ (প্রয়োজন হলে), জাফরান প্রয়োজন অনুযায়ী, বেকিং পাউডার আধা টেবিল চামচ, আইসিং সুগার ২ টেবিল চামচ, সুজি ১ টেবিল চামচ, অরেঞ্জ এসেন্স ২ ফোঁটা (না দিলেও চলবে), জাফরানি রং সোয়া চা-চামচ, লবঙ্গ (প্রতিটি মিষ্টির জন্য) ১টি করে। (শিরার জন্য): চিনি ৩ কাপ, জল ৫ কাপ, এলাচ গুঁড়া ১ চা-চামচ। প্রণালি: ৪ কাপ জলের সঙ্গে চিনি মিশিয়ে জ্বাল দিন। ঘন হয়ে এলে আরও ১ কাপ জল দিয়ে জ্বাল দিন। শিরার ঘনত্ব বুঝে গ্যাস ওভেন বন্ধ করে দিন। একটি প্যান বা হাঁড়িতে দুধ জ্বাল দিন। কয়েকবার ফুটে উঠলে চুলা বন্ধ করে দিন। দুধের হাঁড়ি আর নাড়াবেন না। পুরু সর পড়লে তা সাবধানে দুধ থেকে উঠিয়ে ফেলুন। পুনরায় মাঝারি আঁচে দুধ জ্বাল দিন। একবার ফুটে উঠলে ওভেন বন্ধ করে অল্প অল্প করে কমলার রস দিন। দুধে দই বা ছানা ভাব এলে বুঝবেন সিরার মিশ্রণ দেওয়ার প্রয়োজন নেই। কিন্তু ছানা দুধ থেকে আলাদা না হলে সিরা দিতে হবে এবং দুধ ও ছানার জল আলাদা হয়ে গেলে ঝাঝরিতে ছেঁকে নিতে হবে। সুতি বা মসলিন কাপড়ে ছানা নিয়ে গিঁট মেরে ঝুলিয়ে রেখে জল ঝরিয়ে নিন। খেয়াল রাখবেন ছানা যেন বেশি শক্ত হয়ে না যায়। এবারে একটি ট্রেতে ছানা নিয়ে ২০ থেকে ৩০ মিনিট মথে মসৃণ করে নিন। ছানার মধ্যে একটা ভেজা ভেজা ভাব থাকবে। আরও মসৃণ করতে চাইলে একটু ব্লেন্ড করে নিতে পারেন। তারপর এটি ১০-১৫ মিনিট ঢেকে রেখে দিন। অতিরিক্ত তৈলাক্ত ভাব মনে হলে দুই-এক চা-চামচ ময়দা দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এই ডো থেকে ছোট ছোট গোলা তৈরি করুন। গোল আকৃতির মিষ্টি তৈরি করে তার মাঝখানে আঙুল চেপে একটু ছোট গর্তের মত তৈরি করুন। প্রতিটি মিষ্টির গর্তে একটি করে লবঙ্গ গেঁথে দিন। কয়েকটি পেস্তা কুচি লবঙ্গের চারপাশে দিয়ে ফুলের মতো তৈরি করুন। মিষ্টির চারপাশে একটু একটু করে জাফরানের রেণু ছিটিয়ে দিন। সাবধানে সাজাতে হবে যেন ফেটে না যায়। এবার কিচেন টাওয়েল দিয়ে কয়েক মিনিট ঢেকে রাখুন। চিনির শিরায় এলাচ গুঁড়ো দিয়ে অল্প কিছুক্ষণ জ্বাল দিয়ে এই শিরাতে একটি একটি করে কমলাভোগ ছেড়ে দিন। কড়াই বা হাঁড়ি আলতোভাবে এ পাশে ওপাশে ঘুরিয়ে ভারি ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিন। কিছুক্ষণ পর ঢাকনা খুলে কড়া আঁচে ১০ মিনিট জ্বাল দিন। আরও ৫-১০ মিনিট জ্বাল দিয়ে চুলা বন্ধ করে ৩০ মিনিট ঢেকে রাখুন। এবার ঢাকনা খুলে ঠান্ডা হতে দিন। সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

First published: 05:12:39 PM Sep 29, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर