বাবার বিলাসবহুল জীবনযাপনের এক্সক্লুসিভ ছবি, এখানেই চলত রাম রহিমের যাবতীয় কুকর্ম

ভারতীয় টেলিভিশনে প্রথমবার কমান্ডদের কড়া নজরদারি এড়িয়ে দর্শকদের সামনে তুলে ধরা হল বাবার বিলাসবহুল জীবনযাপনের এক্সক্লুসিভ ছবি।

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Sep 02, 2017 03:28 PM IST
বাবার বিলাসবহুল জীবনযাপনের এক্সক্লুসিভ ছবি, এখানেই চলত রাম রহিমের যাবতীয় কুকর্ম
Baba Ram Rahim
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Sep 02, 2017 03:28 PM IST

#রোহতক: রাম রহিমের অন্দরমহলে ইটিভি নিউজ নেটওয়ার্কের ক্যামেরা। ভারতীয় টেলিভিশনে প্রথমবার কমান্ডদের কড়া নজরদারি এড়িয়ে দর্শকদের সামনে তুলে ধরা হল বাবার বিলাসবহুল জীবনযাপনের এক্সক্লুসিভ ছবি।

ইটিভির ইতিহাসে এই প্রথমবার। বাবার ডেরায় পৌঁছে বাবার গোপন আস্তানার ছবি তুলে আনল ইটিভি নিউজ নেটওয়ার্ক। ভালো করে দেখুন। এটাই বাবা গুরমিত রাম রহিমের সেই বিতর্কিত গুহা। পোষাকী নাম গুম্ফাঘর। গত কয়েক বছর ধরেই এটাই বাবা রাম রহিমের যাবতীয় কুকর্মের জায়গা। ইটিভি নিউজ বাংলার ক্যামেরায় দেখছেন সেই ঘরের ছবি। এখানেই ৪ টি প্রাইভেট চেম্বারে পালা করে থাকতেন রাম-রহিম। এই সেই গুম্ফা। সেখানে তাদের ধর্ষণ করা হয় বলে চিঠিতে অভিযোগ করেছিলেন সাধ্বীরা। এই প্রথম টিভি ক্যামেরায় ধরা পড়ল সেই ছবি। গত কয়েক বছরে নিজের আস্তানার ভোল বারবার বদলে ফেলেছেন বাবা। কখনো নিরাপত্তা, কখনো কুকীর্তি ঢাকতে করা হয়েছে।

ভক্তদের নিজের গুহায় ঢুকতে দেওয়াটা বাবার মোটেও পছন্দ নয়। বহু পাপের আস্তানাকে লোকচক্ষুর আড়ালেই রাখতে চান তিনি। সেইজন্যই গুহার পৌঁছনোটা একেবারেই দুঃসাধ্য ব্যাপার। সাদা কাপড় দিয়ে ঢাকা, কম্যান্ডোর ঢংয়ে বন্দুক নিয়ে পাহারায় থাকা রক্ষী। পরিচয়পত্র ও বায়োমেট্রিক কার্ড ছাড়া এখানে ঢোকা সম্ভবই নয়। দরজাই খুলবে না। এভাবেই একমাত্র প্রবেশ করা যাবে বাবার নিজস্ব এই আস্তানায়।

সাধারণ লোক বা ডেরা ভক্তদের নজরে কোনভাবেই যাতে এই গুহা না আসে, তার জন্যও হাজারো ব্যবস্থা। গুহায় বসে নিজ কুকীর্তি করা বাবার অভ্যোস, তা ঢাকা দিতেই যেন রাখা হয়েছে যাবতীয় ব্যবস্থা।

নিজের আস্তানাকে কোনভাবেই লোকচক্ষুর সামনে আসতে দিতে চান না বাবা। তাই গুহার চারদিকে উঁচু পাঁচিল। তবে ইটিভি নিউজ নেটওয়ার্কের ক্যামেরাকে ফাঁকি দেওয়া সম্ভব হয়নি। ভারতীয় টিভি চ্যানেলের ক্যামেরায় প্রথমবার উঠে এল সেই ছবি।

First published: 03:28:44 PM Sep 02, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर