corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউনে কাজ নেই, অভাব-অনটনে দিন কাটছে 'সিঙ্গল মাদার' যাত্রাশিল্পীর

লকডাউনে কাজ নেই, অভাব-অনটনে দিন কাটছে 'সিঙ্গল মাদার' যাত্রাশিল্পীর

লকডাউনে কাজ নেই, অভাবে যাত্রাশিল্পী

  • Share this:

#কলকাতা: মঞ্চে মন-কেমনকরা প্রেমের দৃশ্য, দর্শকাসনে মুগ্ধ দর্শক! দৃশ্য শেষে করতালিতে মুখর প্রেক্ষাগৃহ! নায়িকা যাত্রাশেষে সাজ ঘরের পর্দা সরিয়ে দেখছেন উচ্ছল দর্শকদের উন্মাদনা... দেখতে দেখতে তিনিও আবেগে ভাসছেন! আজ এতবছর বাদে সেই স্মৃতি বলতে বলতে চোখ ভিজে উঠছিল  যাত্রাশিল্পী রাকা সেনগুপ্তর।

না, রাকা কোনও নামীদামি সিনেমার অভিনেত্রী নন, তিনি যাত্রাশিল্পী! বছরের পর বছর হাজার হাজার মানুষকে বিনোদন জুগিয়ে আসছেন, অথচ তাঁর জীবনেই ঘোর কালো অন্ধকার! রাকা'সিঙ্গল মাদার'। ছেলে হওয়ার পর স্বামী ছেড়ে চলে গিয়েছেন। ছোট্ট ছেলেটিকে বুকে জড়িয়ে শুরু হয় জীবন সংগ্রাম! ছেলে বর্তমানে একটি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলের দশম শ্রেণীতে পড়ে। ছেলেকে ঘিরেই যত স্বপ্ন রাকার।

কোনও অপেরা পার্টিতে যাত্রা করেন না রাকা।য খন কোনও ক্লাব বা অফিসের অনুষ্ঠানের জন্য কেউ নায়িকা ভাড়া করেন ,তখন রোজগার হয়।এক রাত্রি যাত্রা পালাতে অভিনয় করলে ২-৩ হাজার টাকা পান। রাকার ভাষায়, '' অনুষ্ঠানের ৩-৪ দিন আগে রিহার্সাল শুরু হয়। তারজন্য আলাদা কোনও পারিশ্রমিক পাইনা!  শুধু গাড়ি ভাড়া দেওয়া হয়।  সারা বছরে ৬০ থেকে ৭০ টি যাত্রাতে অভিনয় করার ডাক পাই। সব মিলিয়ে এক থেকে দেড় লক্ষ টাকা বছরে রোজগার। তাতেই সংসার চালাতে হয়। মাসে চার হাজার টাকা বাড়ি ভাড়া, বিদ্যুতের বিল ,ছেলের পড়াশোনা খাওয়া-দাওয়া চিকিৎসা সমস্ত কিছুই এই টাকায় করতে হয়। লকডাউনের পাঁচ মাসে কোনও অভিনয়ের ডাক আসেনি।''

রাকার দাবি, ''' আমার মত অ্যামেচার যাত্রাশিল্পীদেরও সরকার থেকে স্বীকৃতি দেওয়া হোক।  প্রচুর বৃদ্ধ-বৃদ্ধা রয়েছেন, যাঁরা অ্যামেচার যাত্রার অভিনয় করে এসেছেন সারা জীবন ধরে। তাদের বর্তমানে কাজ প্রায় নেই বললেই চলে ।''

SHANKU SANTRA

Published by: Rukmini Mazumder
First published: August 29, 2020, 6:11 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर