বিনোদন

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

যশরাজ ফিল্মসের ৫০ বছর, আদিত্য চোপড়া আবেগে ভাসলেন

যশরাজ ফিল্মসের ৫০ বছর, আদিত্য চোপড়া আবেগে ভাসলেন

কোথা দিয়ে যে এতগুলো বছর পার হয়ে গেল, ভাবতেই পারছেন না আদিত্য চোপড়া। যমরাজ ফিল্মসের মালিক তিনি।

  • Share this:

শর্মিলা মাইতি

#মুম্বই: কোথা দিয়ে যে এতগুলো বছর পার হয়ে গেল, ভাবতেই পারছেন না আদিত্য চোপড়া। যমরাজ ফিল্মসের মালিক তিনি। এই মুহূর্তে বলিউডের অপ্রতিদ্বন্দ্বী প্রোডাকশন হাউস। ট্র্যাডিশন ধরে রেখেছেন নিষ্ঠার সঙ্গে। এতটুকুও ছন্দপতন ঘটেনি কখনও।

আজ যশরাজ ফিল্মস নতুন ভাবে বদলাল পরিচয়। লোগোয় স্থান পেল 50 বর্ষপূর্তির স্মারক। দেশের প্রথম একক,  স্বয়ংসম্পূর্ণ স্টুডিও গড়ে উঠেছিল যশরাজ চোপড়ার হাত ধরে। এই স্মারক লোগোয় ধরা রইল বর্ণময়, স্বর্ণোজ্জ্বল সেই অধ্যায়। প্রথম থেকেই জনসাধারণের বিনোদনের প্রতি দায়বদ্ধ ছিল যশরাজ ফিল্মস। শস্তার তাত্ক্ষণিক বিনোদন নয়, পারিবারিক ছবি বানিয়েও ব্লকবাস্টার হিট করানো যায়, সেই অটুট বিশ্বাস নিয়েই তৈরি হত পরের পর ছবি।

যশ চোপড়ার অষ্টাশিতম জন্মবার্ষিকীতে আদিত্য চোপড়া লিখলেন এক আবেগঘন চিঠি। "1970 সালে বাবা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন যা করবেন, স্বাধীনভাবে করবেন। তাঁর ভাই বি আর চোপড়ার সঙ্গে কাজ করেছিলেন দীর্ঘ সময়। সেখানে তিনি মাসমাইনে নিয়েই কাজ করছিলেন। সেই অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে গাঁথা হল যশ রাজ ফিল্মসের ভিত্তিপ্রস্তর। যদিও ব্যবসা কীভাবে করবেন, ছবি থেকে আয় কীভাবে হবে, কিছুই জানতেন না তিনি। নিজের প্রতিভার উপর অগাধ বিশ্বাস ছিল তাঁর। অসম্ভব সৃজনীশক্তি ও দূরদর্শিতাকে সম্বল করে তিনি শুরু করে দেন কোম্পানি। মনে মনে জানতেন, সিনেমার মতো সৃজনশীল মাধ্যমই এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে তাঁকে, ভবিষ্যতের দিকে। এই দৃঢ়প্রতিজ্ঞ ব্যক্তিত্বই যশরাজ ফিল্মসের মেরুদণ্ড।"
তিনি আরও লিখেছেন যে, "1995 সালে দিলওয়ালে দুলহনিয়া লে যায়েঙ্গে আমার প্রথম ছবি এই প্রোডাকশন হাউস থেকে। বাবা যে আমার কনসেপ্ট পুরোপুরি সমর্থন করেছিলেন তা নয়। নতুনদের উপর অগাধ আস্থা ছিল তাঁর। কিছুটা নিজের মূল্যবোধের সঙ্গে যুদ্ধ করেই তিনি অনুমতি দিয়েছিলেন আমায়। তার ফলাফল যে এতটা সুদূরপ্রসারী হবে, ভারতীয় ছবির সেরা ব্লকবাস্টার হয়ে উঠবে  এই ছবি, ভাবতেও পারিনি আমরা। সেই সময়ে আমার আশঙ্কা ছিল, বিদেশি স্টুডিওগুলো যে কোনও মুহূর্তে তাদের বিরাট লোকবল ও টেকনোলজি দিয়ে ভারতীয় ছবির বাজার দখল করে নিতে পারে। তাই আগে থেকে সতর্ক হয়ে নিজেদের কাঠামো আরও শক্ত করেছিলাম। আজ দেখুন কত বিদেশি স্টুডিও কাজ করছে ভারতে। তবু যশরাজ ফিল্মস একমেবাদ্বিতীয়ম।" বলেছেন আদিত্য চোপড়া।

কিন্তু এই সাফল্যের সিংহভাগ কৃতিত্ব তিনি দিয়েছেন সিনেমা তেরির কারিগরদের। যাঁরা পর্দার সামনে ও পেছনে থেকে অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেন। তাঁদের উদ্দেশ্যে প্রণাম জানিয়েছেন আদিত্য চোপড়া। যশরাজ ফিল্মসের তরফ থেকে।

Published by: Akash Misra
First published: September 28, 2020, 5:21 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर