পাঁচজন পুরুষকে সিডিউস করতে বলা হয় ঐশ্বর্যকে ! বিজ্ঞাপনের শ্যুটে নাজেহাল নায়িকা ! ভাইরাল ভিডিও

জনপ্রিয়তার মাঝেও এমনকিছু ঘটনা ঘটেছিল যা ঐশ্বর্যকে আজও ভাবিয়ে তোলে।

জনপ্রিয়তার মাঝেও এমনকিছু ঘটনা ঘটেছিল যা ঐশ্বর্যকে আজও ভাবিয়ে তোলে।

  • Share this:

#মুম্বই: তাঁর নীল চোখের জাদুতে কাবু হয়ে যায় আসুমদ্র হিমাচল। সিনেমায় তাঁর ঝলক পাওয়ার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে দর্শক। তাঁর সৌন্দর্য এক আলাদা মাত্রা পেয়েছিল যখন তিনি মিস ওয়ার্ল্ডের (Miss World) খেতাব জেতেন। কথা হচ্ছে ঐশ্বর্য রাই বচ্চনকে (Aishwarya Rai Bachchan) নিয়ে। ঐশ্বর্য চলচ্চিত্রে জগতে পা দেওয়ার আগে বেশকিছু নামী দামী বি়জ্ঞাপন ব্র্যান্ডের সঙ্গে কাজ করেছেন। যার দারুন ভারত সহ বিদেশের মাটিতেও তাঁর জনপ্রিয়তা তুঙ্গে পৌঁছায়। ঐশ্বর্যের করা পেপসির কর্মাসিয়াল বিজ্ঞাপনটি দারুন জনপ্রিয় হয়েছিল। যেখানে আমির খান (Aamir Khan) ও মহিমা চৌধুরীকেও (Mahima Chaudhary) দেখা গিয়েছিল।

কিন্তু, এত জনপ্রিয়তার মাঝেও এমনকিছু ঘটনা ঘটেছিল যা ঐশ্বর্যকে আজও ভাবিয়ে তোলে। অভিনেত্রীকে ফারুক শেখের (Faroque Sekhar) শো জিনা ইসি কা নাম হ্যায়তে (Jeena Isi Ka Naam Hai) দেখা যায়, যেখানে ঐশ্বর্যের পার্সোনাল এবং প্রফেশনাল জীবন থেকে বহু মানুষ উপস্থিত ছিলেন। তাঁদের মধ্যে একজন হলেন অ্যাড গুরু প্রহ্লাদ কক্কর (Prahlad Kakkar)। তিনি তখন বলেন পেপসির ওই বি়জ্ঞাপনটি নিয়ে রীতিমতো চিন্তিত ছিলেন ঐশ্বর্য। বি়জ্ঞাপনটিতে তাঁর চরিত্রের নাম ছিল সঞ্জনা/ সঞ্জু। প্রহ্লাদ বলেন, “যখন এই বিজ্ঞাপনটি টেলিকাস্ট হয়। তারপর থেকে আমি যেখানেই গিয়েছি মানুষ আমাকে শুধু একটা কথায় জিজ্ঞেস করেছে, সঞ্জু কে?” এই বিজ্ঞাপনের প্রেক্ষিতে ঐশ্বর্য বলেছিলেন, “আমি ওঁকে ক্ষমা করতে পারি না, আমাকে ওঁর জন্য লাল ঠোঁট ও ভেজা চুল নিয়ে লুক দিতে হয়েছিল। শুটিংয়ের সময় আমি বহু রিটেকও নিয়েছিলাম।”

এরপর প্রহ্লাদ বলেন, “ঐশ্বর্যের বয়স তখন খুবই কম। আমি তাঁকে বোঝাচ্ছিলাম কীভাবে পোজ দিতে হবে। কিন্তু কিছুতেই সেই মাফিক পোজ দিতে পারছিল না ঐশ্বর্য। এরপরই ঐশ্বর্য খুবই ইতস্তত বোধ করে বলে আমার এগুলো একদম পছন্দ নয়, আমাকে দিয়ে তুমি কী করাতে চাইছো। আমি তখন বললাম তোমাকে পাঁচজন পুরুষকে সিডিউস করতে হবে।”

ফের প্রহ্লাদ কিছু বলার আগে ঐশ্বর্য বলে ওঠেন, “আমি এই বিষয়টি নিয়ে বিব্রত হয়েছিলাম। উল্টোদিকে ছিল আমির। যিনি একজন দক্ষ অভিনেতা। এইসবের মাঝে আমির ক্যামেরার পিছনে দাঁড়িয়ে লুক দিতে থাকে আর সেই সব দেখে আমি তখন পুরোপুরি ঘাবড়ে গিয়েছিলাম। তার মধ্যে প্রহ্লাদ আমাকে সকলের সামনে বলছিল আমাকে পাঁচজন ছেলেক সিডিউস করতে হবে। যেটা আমার খুব খারাপ লেগেছিল। আমি তখন ভাবছিলাম আমি সকলের সময় নষ্ট করছি”। পরে প্রহ্লাদ জানিয়েছিলেন ঐশ্বর্য মোট ২১ টি রিটেক নিয়েছিল এই শুটের জন্য। আজ থেকে প্রায় ৩০ বছর আগে এই শুট হয়েছিল। যা আজও মানুষের কাছে জনপ্রিয় হয়ে রয়েছে।

Published by:Piya Banerjee
First published: