Tota Roy Choudhury: প্রযোজক-ফেডারেশন দ্বন্দ্বে দ্বিখণ্ডিত টলিপাড়া, কোন পক্ষে অভিনেতা?

টোটা রায়চৌধুরী, ছবি-ফেসবুক

দু’ তরফের টানাপড়েনে ভেঙে গিয়েছে স্টুডিয়োপাড়াও ৷ এরকম এক সময়ে টোটা রায়চৌধুরী ফেসবুকে সব দ্বন্দ্ব ভুলে মীমাংসার পথে যাওয়ার বার্তা নিয়ে পোস্ট করলেন ৷

  • Share this:

    কলকাতা : কার্যত লকডাউনে একেই কাজ তলানিতে ৷ তার উপর ফেডারেশন এবং প্রযোজক শিবিরের যুযুধান অবস্থানে টালিগঞ্জ এখন দ্বিখণ্ডিত ৷ প্রথম থেকেই শ্যুট ফ্রম হোমের বিরোধী ফেডারেশন ৷ এ বার তাঁরা কলাকুশলীদের কাছে কার্যত হুমকি পাঠাচ্ছেন বলে শোনা যাচ্ছে ৷  সেখানে বলা হয়েছে, বিনা পরিশ্রমে প্রযোজকদের কাছ থেকে পারিশ্রমিক নিলে পরবর্তীতে পদক্ষেপ করা হবে ৷ এই হুমকি নিয়ে ফেডারেশনের প্রকাশ্য স্বীকৃতি না এলেও ইন্ডাস্ট্রির অনেকেই এই বার্তা নিয়ে ওয়াকিবহাল ৷

    দু’ তরফের টানাপড়েনে ভেঙে গিয়েছে স্টুডিয়োপাড়াও ৷ এরকম এক সময়ে টোটা রায়চৌধুরী ফেসবুকে সব দ্বন্দ্ব ভুলে মীমাংসার পথে যাওয়ার বার্তা নিয়ে পোস্ট করলেন ৷ অভিনেতার কথায়, ‘টেকনিশিয়ান, প্রযোজক, পরিচালক, অভিনেতা এবং বাংলা চলচ্চিত্রের সাথে জড়িত আমরা সবাই, একই পরিবারের সদস্য। তাই আমাদের মধ্যে মনোমালিন্য বা ভুল বোঝাবুঝি সৃষ্টি হলে সেটা মানসিক পীড়া দেয়।’ টোটার আশা, খুব দ্রুত এই দ্বন্দ্বের মীমাংসা বেরিয়ে আসবে ৷ পাশাপাশি, পশ্চিমবঙ্গ টেলিভিশন প্রযোজকদের তরফ থেকে তিনি একটি বার্তা দিয়েছেন কলাকুশলীদের ৷

    সেই বার্তায় প্রযোজকদের তরফে বলা হয়েছে গত বছরের মতো ৩০ বা ৪০ শতাংশ নয়, এ বছর কলাকুশলীদের পুরো পারিশ্রমিক দেওয়ার কথা ভেবেছেন প্রযোজকরা ৷ যেদিন থেকে ধারাবাহিকগুলির নতুন পর্ব সম্প্রচার করা হবে, সেদিন থেকে পুরো পারিশ্রমিক পাবেন কলাকুশলীরা ৷

    প্রযোজকদের দাবি, তাঁদের সঙ্গে কলাকুশলীদের দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক সম্পর্ক ৷ সেই সম্পর্কে ভাঙন ধরানোর চেষ্টা চলছে বলে প্রযোজকদের অভিযোগ ৷ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে শ্যুট ফ্রম হোম থাকবে না বলে বিশ্বাস প্রযোজকদের ৷ কাউকে বঞ্চিত না করে আগের মতো সকলকে নিয়ে কাজ করা হবে বলে তাঁদের আশ্বাস ৷

    প্রযোজকদের বার্তায় দাবি, শ্যুট ফ্রম হোমের জন্য কোনও কলাকুশলী ক্ষতির মুখোমুখি হবেন না ৷ তাঁদের প্রতিশ্রুতি, তাঁদের জন্য কোনও কলাকুশলীর কাজ চলে গেলে তা ফিরিয়ে দেওয়ার দায়িত্ব প্রযোজকদের ৷

    নেটিজেনরা টোটার পোস্টের প্রেক্ষিতে সমর্থন করেছেন প্রযোজকদের এই বার্তাকে ৷ দর্শকরাও চাইছেন, দ্বন্দ্ব ভুলে ছন্দে ফিরুক টলিপাড়ার পুরনো সম্পর্ক ৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: