corona virus btn
corona virus btn
Loading

টলিপাড়ায় 'অজয়'-এর জয় ! 'জখম' স্টারের জন্মদিনে কী বললেন রুক্মিণী থেকে রুদ্রনীল ?

টলিপাড়ায় 'অজয়'-এর জয় ! 'জখম' স্টারের জন্মদিনে কী বললেন রুক্মিণী থেকে রুদ্রনীল ?

টলিপাড়াতেও অজয়ের ফ্যান কিছু কম নয়...

  • Share this:

#কলকাতা: ২ এপ্রিল। তাঁর জন্মদিন। অমৃতসরের পঞ্জাবি পরিবারে জন্ম তাঁর। বাবা স্টান্ট মাস্টার। মা-ও যুক্ত শোবিজ বিজনেসের সঙ্গে । তিনি ছোট থেকেই ঠিক করেছিলেন অভিনয় করবেন। তা তিনি করলেনও। এমনভাবে করলেন, যে তাঁর ভক্ত হয়ে গেল গোটা দেশ।  অজয় দেবগণ। 'ফুল অউর কাঁটে' ছবি দিয়ে টিনসেল টাউনে পা রেখেছিলেন অজয়। চকলেট বয় কখনোই ছিলেন না, কেরিয়ারের গোড়ার দিকে নিন্দুকেরা বলতেন, এই চেহারা নিয়ে নায়ক হওয়া সম্ভব নয়। সেসব কথা অতীত করতে বেশি সময় লাগেনি অজয়ের। একশোরও বেশি ছবিতে অভিনয় করে ফেলেছেন নায়ক। অ্যাকশন-কমেডির পাশাপাশি অন্য ধারার ছবিতেও কাজ করেছেন চুটিয়ে। 'জখম', 'কম্পানি', 'রেনকোট'- এর মতো ছবিতে নিজের অভিনয়ের ছাপ ফেলেছেন ।

টলিপাড়াতেও তাঁর ফ্যান কিছু কম নয়। অজয় দেবগণ অভিনীত ছবির মধ্যে সুদীপ্তা চক্রবর্তীর পছন্দের তালিকায় রয়েছে  'ওমকারা', 'দৃশ্যম' 'রাজনীতি', 'শিবায়' ও 'রেড'। তবে  সবচেয়ে প্রিয় ছবি 'দৃশ্যম'। এই ছবিতে অজয় অসাধারণ, বলে মনে করেন সুদীপ্তা। টলিউডের অ্যাকশন হিরো বনির 'রেড' ছবিটি সবচেয়ে পছন্দের। অজয়ের রাফ অ্যান্ড টাফ অ্যাটিটিউড ভাল লেগেছিল বনির। তনুশ্রী চক্রবর্তী পছন্দ একটু হটকে। তাঁর মতে অজয় দেবগণ অভিনীত সবচেয়ে ভালো ছবি 'হম দিল দে চুকে সানম'। নায়িকার কথায়, 'এই ছবিতে অজয় টু গুড'। রুক্মিণী মৈত্রর 'ওমকারা', 'গোলমাল' সিরিজ এবং 'দে দে প্যায়ার দে'... এই তিনটে ছবি বেশ ভাল লাগে। অজয়ের অ্যাকশন হিরো অবতারই সবচেয়ে পছন্দ সাহেব ভট্টাচার্যর, 'ওমকারা', 'গঙ্গাজল' এবং 'সিংহম' এই তিনটি ছবি তাঁর ফেভারেট।

সম্প্রতি 'ময়দান' ছবিতে অজয় দেবগণের সঙ্গে কাজ করেছেন রুদ্রনীল ঘোষ। অজয় অভিনীত রুদ্রনীলের সবথেকে প্রিয় ছবি 'গঙ্গাজল'। অজয় দেবগণের প্রসঙ্গ উঠতে রুদ্রনীল প্রথমেই যেটা বললেন, তা হল, 'অজয় একজন অসাধারণ সহ-অভিনেতা।'  রুদ্রনীল আরও বলেন, 'একজন তখনই ভাল অভিনেতা হতে পারেন, যখন তিনি তাঁর সঙ্গে অভিনয় করা অন্য অভিনেতাদের সহজ ভাবে অভিনয় করার সুযোগ দেন। অজয়ের মধ্যে সেই গুণটা রয়েছে। অভিনয়টা তো একা করা যায় না না। সেটা দেওয়া- নেওয়ার ওপর নির্ভর করে। এই কথাটা খুব ভালভাবে বোঝেন তিনি। ছবিতে গড়গড় করে হিন্দি সংলাপ বলতে হয়েছে আমাকে। বেশ কয়েকবার হোঁচট খেয়েছি। তার জন্য রিটেক  হয়েছে। অজয় বিরক্ত হননি। বরং বলেছেন খুব ভাল হচ্ছে। আমার এর চেয়েও বেশি রিটেক হয়। আমার একটা ঘটনা মনের আছে। শট চলাকালীন একবার একটা মাছি এসে আমার গায়ে বসে। অজয় সঙ্গে সঙ্গে স্প্রে নিয়ে এসে আমাকে বলে, 'রুদ্রনীল আপ থোরা রুকিয়ে। ম্যায় কর দেতা হু।' পারস্পরিক সম্মানবোধই একজনকে বড় অভিনেতা বানায়।'  রুদ্রনীল আরও বললেন, 'অজয় নিঃসন্দেহে খুব ভাল মানুষ। একজন ভাল অভিনেতা। তবে তিনি স্বল্পভাষী। নিজের সঙ্গে থাকতেই বেশি ভালোবাসেন।'

চৈতি ঘোষালের ছেলে অমর্ত্যও 'ময়দান' ছবিতে অজয়ের সঙ্গে অভিনয় করেছেন। অজয় দেবগণ অভিনীত 'গঙ্গাজল' ছবিটি অমর্ত্যর অল টাইম ফেভারিট। তবে তাঁর মনে দাগ কেটেছিল 'জখম' এর অজয় দেবগণ। অমর্ত্যর কথায়, 'অজয় স্যর ব্যক্তিত্ব নিয়ে চলেন সবসময়। তাঁর শরীরী ভাষা, কথা বলার ধরন, ব্যক্তিত্ব... যেন সম্মান দাবি দাবি করে। তাঁকে দেখলেই সম্মান করতে ইচ্ছে করে। আমি অজয় দেবগণের সঙ্গে কাজ করছিলাম, এত বড় অভিনেতা তিনি। বরফ গলাতে অনেক সাহায্য করেছেন অজয় স্যাৱর। মাঝেমধ্যে আমাদের সঙ্গে বেশ মজা করতেন। একদিনের ঘটনা আমার মনে আছে। আমি বসে প্রোটিন বার খাচ্ছিলাম। আমায় এসে জিজ্ঞেস করলেন , 'ক্যায়া খা রোহে হো তুম'? আমি বললাম, 'স্যর প্রোটিন বার।' শুনে বললেন, 'আরে এসব মাত খা। বচপন মে বহত খা চুকা হু ম্যায়। আন্ডা খা, চিকেন খা, ইয়ে সব মত খা।'

ARUNIMA DEY

Published by: Rukmini Mazumder
First published: April 3, 2020, 12:16 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर