মিথিলাপতি সৃজিত?

মিথিলাপতি সৃজিত?

তবে এখানে বলে রাখা ভাল। মিথিলার জীবনে সৃজিত প্রথম পুরুষ নয়। তাঁর বিয়ে হয়েছিল সংগীতশিল্পী ও অভিনেতা তাহসান রহমান খানের সঙ্গে।

  • Share this:

Debapriya Dutta Majumdar

#কলকাতা: শীতের নিজস্ব কিছু চরিত্র থাকে। এগুলোর মধ্যে বিয়ে বাড়ি নিমন্ত্রণটাও বেশ বিশেষ একটা ব্যাপার। টলিপাড়ায়ও বিয়ে বিয়ে একটা রব বেশ তুঙ্গে। এই সদ্য বিয়ের ফুল ফোটালেন জুন। সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের বিয়েও নাকি প্রায় লেগে গিয়েছে। রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। সৃজিতের রিয়েল লাইফের নায়িকা ইনি। টলিপাড়ায় কান পাতলেই শোনা যাচ্ছে এই খবর। প্রশ্ন হল কে এই মিথিলা?

Loading...

বাংলাদেশের নামী মডেল, গায়িকা, অভিনেতা, সঞ্চালিকা মিথিলা। চলতি বছরের গোড়ার দিকে প্রাইভেট এক পার্টিতে মিথিলার হাত ধরে ঢোকেন সৃজিত। তারপর থেকেই জল্পনা তুঙ্গে। মিথিলা সৃজনশীল এক মানুষ। মডেলিং, অভিনয়, ছবি আঁকা, গান গাওয়া একসঙ্গে করে থাকেন তিনি। পাশাপাশি চাইল্ড ডেভেলপমেন্ট নিয়েও প্রচুর কাজ করেন মিথিলা।

পলিটিক্যাল সায়েন্স নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স করেছেন মিথিলা। আর্লি চাইল্ড ডেভেলপমেন্ট নিয়েও ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় থেকেও মাস্টার্স করেছেন।  বর্তমানে  ব্র্যাক  এ আর্লি চাইল্ড ডেভেলপমেন্ট বিভাগের প্রধান মিথিলা। নজরুল গীতি শেখার সঙ্গে সঙ্গে, কত্থক, ভরত নাট্যম  এবং মণিপুরি নৃত্যের তালিম নেন মিথিলা। পাশাপাশি থিয়েটারে অভিনয় করার সঙ্গে সঙ্গে তাঁর করা অয়েল পেনটিং বহু একজিবিশনে জায়গা করে নিয়েছে।

২০০২ সাল থেকে পেশাদারি মডেল হিসেবে কাজ শুরু করেন মিতিলা। টিভির বিজ্ঞাপনের পাশাপাশি মিউজিক ভিডিও-র পরিচিত মুখ হয়ে ওঠেন তিনি। তারপর টেলিফিল্ম এবং ধারাবাহিকে কাজ করে বাংলাদেশের ঘরে ঘরে পৌঁছে যান মিথিলা। বাচ্চাদের নিয়ে কাজ করার পাশাপাশি দেশ বিদেশের বহু বিশ্ববিদ্যালয়ে গেস্ট লেকচারার হিসেবে পড়িয়েছেন তিনি।

এতো গেল মিথিলা কে? এবং তাঁর জীবনের বেড়ে ওঠা। এবার প্রশ্নটা হলো কীভাবে আমাদের প্রিয় পরিচালক সৃজিতের জীবনে এলেন তিনি। অনেকগুলো কানেকশন রয়েছে। প্রাথমিক ভাবে ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয় হয় তাঁদের। একে অপরের রুচি বোধে মুগ্ধ হন মিথিলা-সৃজিত।

তবে এখানে বলে রাখা ভাল। মিথিলার জীবনে সৃজিত প্রথম পুরুষ নয়। তাঁর বিয়ে হয়েছিল সংগীতশিল্পী ও অভিনেতা তাহসান রহমান খানের সঙ্গে। তাঁদের একটি কন্যা সন্তানও আছে। ২০১৭ সালে তাঁদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যায়। বিচ্ছেদের কথাও ফেসবুকে শেয়ার করেন মিথিলা। তিনি চিরকালই যে কোনো কিছুর মোকাবিলা করতে পছন্দ করেন। দিন কয়েক আগেই মিথিলার  প্রাক্তন প্রেমিক পরিচালক ফাহমির  সঙ্গে তাঁর কিছু ঘনিষ্ঠ ছবি ভাইরাল হয়েছিল। তাই নিয়ে ওঠে সমালোচনার ঝড়। বিচলিত না হয়ে এই বিষয়টা বোল্ডলি ফেস করেন মিথিলা। সেই সময় সৃজিতও দাঁড়িয়েছিলেন তাঁর পাশে।

বাংলাদেশের জনপ্রিয় গায়ক অর্ণব-এর মিউজিক ভিডিও-র শ্যুটিং করতে কলকাতায় আসেন মিথিলা। অর্ণব সম্পর্কে মিথিলার ভাই। সেই মিউজিক ভিডিও-টা সৃজিতের প্রডাকশন হাউস থেকে বানানো হয়েছিলো। আর কী চাই। কাজের বাহানায় সময় কাটানোর সুযোগ পেয়ে যায় মিথিলা-সৃজিত। বেশ কিছু মাস একে অপরকে বোঝার পর তাঁরা বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন এমনটাই খবর। মিথিলার বাবা-মায়ের সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলার জন্য কয়েক বার বাংলাদেশেও নাকি পাড়ি দিয়েছেন সৃজিত। কখনও বা এই বছর ,কখনও বা নতুন বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে নাকি বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ  হতে চলেছেন তাঁরা, এমনটা শোনা যাচ্ছে। তবে এই গোটা বিষয়টা নিয়েই কোনও কনফারমেশন দিতে নারাজ সৃজিত ও মিথিলা। দুজনেরই দাবি তাদের বর্তমান স্টাটাস ভালো বন্ধু।

First published: 12:29:10 PM Dec 04, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर