বিনোদন

corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউনে আটকে পড়া জীবনে সত্যিই কি ফুরলো সব আশার আলো? নাকি...

লকডাউনে আটকে পড়া জীবনে সত্যিই কি ফুরলো সব আশার আলো? নাকি...

বহুদিন ছবির প্রচারধর্মী কাজের সঙ্গে যুক্ত দুই তরুণ লকডাউনে বানিয়ে ফেললেন ছবি! তাদের জন্য লকডাউন নিয়ে এল এক নতুন পরিচিতি৷

  • Share this:

#কলকাতা: লকডাউনে কী হতে পারে, আন্দাজ ছিল না কারও৷ করোনা হলে কী হবে? কখনও তো এমন সময়ের সামনে দাঁড়তে হয়নি৷ তাই শুরু থেকেই একটা আশঙ্কা তৈরি হয়েছিল৷ একদিকে করোনার ভয়, অন্যদিকে লকডাউনে দমবন্ধ হওয়া লকডাউন৷ দুয়ে মিলে নাজেহাল দশা হয়েছিল অনেকের৷ এখনও করোনার সেই ভয় মন থেকে দূর হয়নি ঠিকই৷ তবে সেই সময়টা অনেকটা অতিবাহিত৷ কিন্তু সেই গৃহবন্দি দশায় দুই যুবক-যুবতীর গল্প তুলে ধরলেন রণজিৎ৷ তাঁকে যোগ্য সঙ্গত দিলেন সুদীপ৷

মৃত্যুর দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে এক যুবক৷ তাঁর পাশের ফ্ল্যাটে একজনের করোনা আক্রান্ত৷ তাই নিয়ম করেই সেই যুবকও কোয়ারেন্টাইনে৷ জীবন-মৃত্যুর দোলাচলে কাটছে তাঁর সময়৷ মৃত্যু যেন রোজ তাঁকে হাতছানি দেয়৷ এই মুহূর্তে প্রাক্তন প্রেমিকাকে ফোন করে ক্ষমা চাইতে চায় সে৷ এমন একটি অনিশ্চিত সময়ে দাঁড়িয়ে কথা শুরু হয় তাদের৷ এর মধ্যে দিয়ে নিজের অভিব্যক্তি তুলে ধরেছেন পরিচালক রণজিৎ৷ সঙ্গে পয়েছেন সুদীপকে৷

বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে রণজিৎ ও সুদীপ খুবই পরিচিত নাম৷ পিআর হিসেবে তাঁরা সফল এবং রণজিৎ হাত পাকালেন ছবিতে৷ তাঁর লকডাউ শর্টস এবং আমি৷ সহ পরিচালকের দায়িত্বে সুদীপ যাদব৷

রণজিৎ দের কথায় ‘এবং আমি ’ একটা ‘লক ডাউন শর্টস’ এই যে একটা ‘টার্ম’ তৈরি হল “লক ডাউন শর্টস ” যার নিজস্ব একটা মেকিং, একটা ভাষা তৈরি হল ,এই মুভমেন্ট সিনেমার ইতিহাসে নতুন কিছু নয়। আমারা ‘নিউ ওয়েভ মুভমেন্ট’, ‘আভ গার্ড" মুভমেন্ট’, দেখেছি। সামাজিক , রাজনৈতিক পরিস্থিতি সবকিছুর প্রভাব সিনেমায় পড়ে। যেমন এখন। একটা খারাপ অবস্থার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি আমারা। আমাদের পুরো পরিস্থিতি বদলে গেছে । সামাজিক রাজনৈতিক অর্থনৈতিক সব কিছুই প্রভাবিত। তার প্রভাব সিনেমাতেও পড়তে বাধ্য এবং সেই প্রভাব পড়েছে বলেই আমাদের সিনেমার ভাষা, পদ্ধতি বদলে গেছে। এই বদল এই মুভমেন্টের নাম এখন “লক ডাউন শর্টস ” । ‘এবং আমি’ সেই “লক ডাউন শর্টস ”এর একটি ছোট ছবি-শর্ট ফিল্ম। শর্ট ফিল্মে গল্পের বাড়াবাড়ি না থাকাই বাঞ্ছনীয়। এই ছবিতেও নেই। আমার মনে হয় ছোটগল্পে বা ছোট ছবিতে ইঙ্গিতময়তাই একটা ভাষা হয়ে ওঠা উচিত। ‘এবং আমি’তেও তাই আছে ।

এই ছবিতে অভিনয় করেছেন অভিনব কাঞ্জিলাল ও পূজারিণী৷ এই দু’জন অভিনেতা অসম্ভব সাহায্য করেছেন ছবি তৈরিতে৷ কারণ বাড়িতে বসেই হয়েছে শ্যুটিং৷ তাই সেভাবে পরিচালককে সাহায্য করেছেন দু’জনেই৷ সমস্ত প্রতিকূলতা কাটিয়ে দু’জনেই যা যা প্রয়োজন সবটাই করেছে নিপুণভাবে৷ তাই শুধু অভিনয় নয়, এই ছবি তৈরিতেও তাঁদের অবদান অনেক, বলছেন সুদীপ৷

এবং আমি মুক্তি পাবে অনলাইনে৷ আপাতত ঘরে বসে এই ছবি দেখার জন্য উন্মুখ সকলেই৷

Published by: Pooja Basu
First published: June 19, 2020, 4:04 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर