মিমির সন্তানসম পোষ্যের শরীরে ক্যানসার! আরোগ্য কামনা করে টুইট রাজের

মিমির সন্তানসম পোষ্যের শরীরে ক্যানসার! আরোগ্য কামনা করে টুইট রাজের

মিমির সন্তানসম পোষ্যের শরীরে ক্যানসার! আরোগ্য কামনা করে টুইট রাজের

সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট করে জানিয়েছেন সন্তানসম পোষ্যের শরীরে বাসা বেঁধেছে ক্যানসার। সেই চিকুর আরোগ্য কামনা করেই এবার পোস্ট করলেন পরিচালক রাজ চক্রবর্তী।

  • Share this:

    #কলকাতা: অসুস্থ অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীর পোষ্য কুকুর চিকু। নিজেই সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট করে জানিয়েছেন সন্তানসম পোষ্যের শরীরে বাসা বেঁধেছে ক্যানসার। সেই চিকুর আরোগ্য কামনা করেই এবার পোস্ট করলেন পরিচালক রাজ চক্রবর্তী।

    মিমি যে পশুপ্রেমী তা সকলেরই জানা। বাড়িতে রয়েছে দুই সারমেয় যাদেরকে সন্তানের মতোই লালন করেন অভিনেত্রী। সেই দুই পোষ্য কুকুরের মধ্যে একজন অসুস্থ। মারণ রোগ ক্যানসার বাসা বেঁধেছে তার শরীরে। পোষ্যের নাম চিকু। চিকুর একটি ছবি শেয়ার করে মিমি একটি লেখেন, "বন্ধুরা, আমি খুব ভেঙে পড়েছি ও দুঃখে আছি। এটা লেখার সময় আমার দম বন্ধ হয়ে আসছে। কিন্তু আমায় লড়তেই হবে। আপনাদের সাহায্য চাই আমার। তোমরা নিশ্চই জানো ছবির এই বাচ্চাটি আমার কে হয়। আমার বড় ছেলে চিকু। ও ৮ বছর বয়সি একটি ল্যাব্রেডর। ওর ক্যানসার ধরা পড়েছে এবং সেটি ছড়িয়ে পড়ছে। চিকিৎসকরা আশা ছেড়ে দিয়েছে। কোনও অস্ত্রপোচার করা যাবে না। আমার চেন্নাই ভেট (পশুচিকিৎসালয়) এর সঙ্গে যোগাযোগ করা প্রয়োজন। যদি কারও জানা শোনা থাকে দয়া করে কমেন্টে বা ইনবক্সে আমায় জানান।"

    View this post on Instagram

    A post shared by Mimi (@mimichakraborty)

    এবার মিমির পোষ্যের জন্য রাজও টুইট করে লিখলেন, "আমি ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করছি যাতে চিকু দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠতে পারে।" রাজের এই টুইটের পরেই নেটিজেনদের মধ্যে জল্পনা শুরু হয়, তাহলে দুজনের পুরনো বন্ধুত্ব ঠিক হয়েছে? তবে শুধু রাজ নয়। অভিনেতা ঐন্দ্রিলা সেন ও অঙ্কুশ হাজরাও চিকুর আরোগ্য কামনা করেছেন।

    পোস্ট দেখে মিমির ভক্ত এবং পশুপ্রেমীদেরও মন খারাপ হয়ে যায়। অনেকেই চিকুর আরোগ্য কামনা করে পোস্ট করেন। মিমির জীবনের অনেকটা অংশ জুড়ে তার সন্তানসম এই দুই পোষ্য রয়েছে। তাই ওদের কিছু হলে অভিনেত্রী যে ভিতর থেকে ভেঙে পড়বেন তা যে কোনও পশুপ্রেমীই উপলব্ধি করতে পারবেন। কারণ বাড়িতে পোষ্য থাকলে, সে পরিবারেরই অন্যতম সদস্য হয়ে ওঠে। চারপেয়ে হলেও সেই-ই মনের মণিকোঠায় ঠাঁই তৈরি করে নেয়। তাকে ছাড়া এক লহমাও যেন পাষাণের মতো কঠিন। আর সেই প্রিয় পোষ্য যখন অসুস্থ হয় বা কষ্ট পায়, তখন একই রকম যন্ত্রণা পান সেই পোষ্যের অভিভাবক।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: