উত্তমের কোলে ছোট্ট বুম্বা ! মহানায়কের ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা জানালেন প্রসেনজিৎ

উত্তমের কোলে ছোট্ট বুম্বা ! মহানায়কের ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা জানালেন প্রসেনজিৎ

১৯৮০-র ২৪ জুলাই প্রয়াত হয়েছিলেন মহানায়ক। আজ উত্তমের মৃত্যুদিন।

১৯৮০-র ২৪ জুলাই প্রয়াত হয়েছিলেন মহানায়ক। আজ উত্তমের মৃত্যুদিন।

  • Share this:

    #কলকাতা: উত্তমকুমার এক দিন হঠাৎ কথাপ্রসঙ্গে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে বলে ছিলেন, ‘দূর আর ভাল লাগছে না!’ শুনে খুব কষ্ট পেয়েছিলেন সৌমিত্র। তাঁকে ঠাট্টা করে বলেছিলেন ‘‘বুড়োর রোলগুলো করতে হবে না? কোত্থেকে হবে, এখন থেকেই ভাল না লাগলে? আপনি আর আমি বুড়ো না হলে ইন্ডাস্ট্রিতে ভাল বুড়ো পাওয়া যাবে না!’’ শুনে হাসতে শুরু করেছিলেন উত্তম। না! উত্তমের আর বুড়ো হয়ে ওঠা হয়নি। ১৯৮০-র ২৪ জুলাই প্রয়াত হয়েছিলেন মহানায়ক। আজ উত্তমের মৃত্যুদিন। আজ তাঁর ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকী। এই দিনটি এলেই মানুষ উত্তমের স্মৃতিতেই ভাসতে শুরু করেন।

    আজ তাঁর মৃত্যুবার্ষিকীতে অনেকেই তাঁকে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। টলিউডের অন্যতম অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ও তাঁর সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন তাঁর প্রিয় উত্তম জেঠুকে। প্রসেনজিতের বাবা বিশ্বজিৎও জনপ্রিয় অভিনেতা ছিলেন। টলিউড ও বলিউডে কাজ করেছেন তিনি। বাবার সূত্রেই উত্তমের সঙ্গে পরিচয় প্রসেনজিতের। আজ তাঁর মৃত্যুদিনে পুরনো একটি ছবি শেয়ার করে ইনস্টাগ্রামে প্রসেনজিৎ লিখলেন, " উত্তমজেঠু, তোমার রেখে যাওয়া কাজ আজও আমার কাছে অভিনয় শেখার ব্যাকরণের বই। তোমার এমন ভুবনভোলানো হাসি ও মনমুগ্ধ করা চোখের চাহনি বাঙালি সিনেপ্রেমীর কাছে আজও এক এবং অদ্বিতীয়।প্রয়াণদিবসে তোমাকে স্মরণ করে জানাই আমার অন্তরের প্রণাম।" উত্তমকুমার অনেকের জীবনেই ইন্সপিরেশন। তাঁকে দেখেই আজও বাঙালি অভিনয় শেখে। তাঁর হাসি, তাঁর চাহনি সে যে ভোলার নয়। তিনিই সর্বকালের সর্বসেরা মহানায়ক। তিনি সত্যজিতের 'নায়ক'।

    Published by:Piya Banerjee
    First published: