'রাজলক্ষ্মী ও শ্রীকান্ত'র মুক্তি পিছোলো ! প্রদীপ্ত ভট্টাচার্যের ছবির জন্য নেই হল

'রাজলক্ষ্মী ও শ্রীকান্ত'র মুক্তি পিছোলো ! প্রদীপ্ত ভট্টাচার্যের ছবির জন্য নেই হল
photo source collected

জাতীয় পুরষ্কার প্রাপ্ত পরিচালকের ছবি হল না পাওয়া তো আমাদের সকলের কাছে লজ্জার বিষয়।

  • Share this:

#কলকাতা: প্রদীপ্ত ভট্টাচার্য। তিনিই বানিয়েছিলেন 'বাকিটা ব্যক্তিগত'। প্রথম বড় পর্দার ছবিতেই সকলের নজরে পড়েছিলেন এই পরিচালক। পেয়েছিলেন জাতীয় পুরষ্কার। তারপর বেশ কতগুলি বছর কেটে গিয়েছে। সোশাল মিডিয়ায় নিজের পছন্দের ভিডিও বানিয়ে পোস্ট করেন তিনি। প্রত্যেকটি ভিডিও-ই ক্রিয়েটিভ। তিনি যে ছবিটাই বানান সেটা মন থেকে বানান। তাঁর প্রত্যেকটি ছবিতে থাকে মাটির গন্ধ। আর যতক্ষণ মন মত বিষয় তিনি ভাবতে পারছেন ততক্ষণ তিন ছবি বানান না। একটি ছবি আছে তাঁর 'পিঙ্কি আই লাভ ইউ'। ছবিটি ইউটিউবে পাওয়া যায়। অসাধারণ কাজ। পরিচালকের খুব ভাল বন্ধু অপরাজিতা ও ঋত্বিক চক্রবর্তী। তাই তাঁর ছবিতে এই দুই অভিনেতা থাকবেনই। এবার তিনি অনেক দিন পর যে ছবিটি বানালেন তাঁর নাম 'রাজলক্ষ্মী ও শ্রীকান্ত। এই ছবিটিতেও আছেন ঋত্বিক-অপরাজিতা-রাহুল। এছাড়াও রাজলক্ষ্মীর চরিত্রে অভিনয় করছেন বাংলাদেশের অভিনেত্রী জ্যোতিকা জ্যোতি। এই কাজটা করার জন্য বেশ কিছুদিন অন্য কাজ করেননি এই অভিনেত্রী। ছবির বাজেট আহামরি কিছু না। কিন্তু ছবিতে যা আছে তা হল, বুননশৈলী, অভিনয় আর একটা ছবি ভাল হতে গেলে ঠিক যা যা উপাদান দরকার হয় সব থাকছে এই ছবিতে। কিন্তু আমাদের দূর্ভাগ্য নাকি পরিচালকের কপাল জানা নেই এই ছবি মুক্তির জন্য শহরের নামি জায়গায় বা আইনক্সে পাচ্ছেন না হল। সত্যিই কী পরিচালকের কপাল নাকি সবটাই সিনেমা নিয়ে লবি। এই লবি বা চক্রান্তের জন্যই অনেক ভাল পরিচালকই বাংলা থেকে হারিয়ে গিয়েছেন। কিন্তু প্রদীপ্ত দমে যাওয়ার মানুষ নন। লড়াই করতে তিনি জানেন।

প্রদীপ্ত তাঁর যেকোনও ভাল কাজ তাঁর সোশাল মিডিয়ার বন্ধুদের সঙ্গে ভাগ করে নেন। এবার তিনি প্রতিবাদ এবং তাঁর মনের কথা তুলে ধরলেন সোশাল মিডিয়ার বন্ধুদের কাছে। তিনি ফেসবুকে লিখেছেন,"অনেকে আমাদের ছবি 'রাজলক্ষ্মী ও শ্রীকান্ত' র হল লিস্ট জানতে চাইছেন... আজকে এই সময় অবধি আমরা কলকাতায় একটিও হল পাইনি... কেন পাইনি জানি না... যাঁরা ছবিটা দেখব কোথায় ভাবছেন তাঁরা দয়া করে কুচবিহার বা ত্রিপুরার টিকেট কেটে সেখানে গিয়ে ছবিটি দেখতে পাবেন... বুক মাই শো তে টিকেট না কেটে আই আর সি টি সি বা মেক মাই ট্রিপে টিকেট বুক করুন... এবং বাংলা ছবির প্রতি যথেচ্ছ করুণা বর্ষণ করুন... খুবই খারাপ লাগছে... কিন্তু হাল ছাড়া যাবে না... ছবি আমরা দেখাবোই... আপনারাও দেখবেন আশা রাখি... হলের তালিকায় একবারটি চোখ বুলিয়ে নিন তাহলেই বুঝবেন এত কথা কেন বলছি... ঘটনাচক্রে আমাদের রিলিজ ডেট 20 সেপ্টেম্বর..." তিনি এই পোস্ট কেন করেছেন তা এতক্ষণে স্পষ্ট। এই পোস্টের পর সোশাল মিডিয়ায় কথা উঠেছে। কিন্তু প্রদীপ্তর ছবি হল কেন পাবে না? এ এক বড় প্রশ্ন ! একজন জাতীয় পুরষ্কার প্রাপ্ত পরিচালকের ছবি হল না পাওয়া তো আমাদের সকলের কাছে লজ্জার বিষয়।

মাত্র এই কটি হলই পেয়েছিল তাঁর ছবি। photo source facebook মাত্র এই কটি হলই পেয়েছিল তাঁর ছবি।
photo source facebook

তবে শোনা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই যে বাংলা ছবিগুলি হলে মুক্তি পেয়েছে সেগুলো ভালো চলায় এবং সামনেই আরও বেশ কয়েকটি হিন্দি-বাংলা ছবির মুক্তি থাকায় রাজলক্ষ্মী ও শ্রীকান্ত-কে হল দিতে অক্ষম নাকি হলমালিকরা। তাই শেষ পর্যন্ত পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে নির্মাতাদেরই পিছিয়ে দিতে হল ‘রাজলক্ষ্মী ও শ্রীকান্ত’-র মুক্তির তারিখ। আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর, মহালয়া-র আগের দিন মুক্তি পাবে এই ছবি। সত্যিই এখনও ঋত্বিক ঘটকের সময়ের পরিবর্তন হয়নি। এখনও ভাল পরিচালককে একটা ভাল ছবি বানানো এবং সেটা সকলকে দেখার সুযোগ করে দিতে সত্যিই বেগ পেতে হয়। প্রদীপ্ত তাঁর সবচেয়ে বড় প্রমান।

First published: 04:58:48 PM Sep 19, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर