corona virus btn
corona virus btn
Loading

রাত পোহালেই শুরু বাংলা সিরিয়ালের শ্যুটিং, কিন্তু কীভাবে?

রাত পোহালেই শুরু বাংলা সিরিয়ালের শ্যুটিং, কিন্তু কীভাবে?
  • Share this:

#কলকাতা: ১০ জুন থেকে শুরু হচ্ছে বাংলা সিরিয়ালের শ্যুটিং৷ নির্দিষ্ট নিয়মাবলি মেনে শ্যুটিং করতে হবে কর্তৃপক্ষকে৷ সকলের মূল লক্ষ্যই আর্টিস্টদের সুরক্ষার বিষয়টা নিশ্চিত করা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে শ্যুটিং করা। সেখানে দাঁড়িয়ে যেমন ঠিক হয়েছে যে, আপাতত কোনও ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের শ্যুটিং হবে না । চুম্বন ও ঘনিষ্ঠ দৃশ্য বাদ রাখায় প্রত্যেকে একমত হয়েছেন। বয়স্কদের কাজ করতে হলে লিখিতভাবে জমা দিতে হবে। ১০ বছরের কম বাচ্চাদের শ্যুটিং ফ্লোরে আসার অনুমতি নেই। অর্থাৎ তাদের দিয়ে এখনই কাজ করানো যাবে না। মেক আপ কিট নিজেরা আলাদা আলাদা ব্যবহার করবেন। কস্টিউম প্রতিদিন বাড়িতে নিয়ে যেতে হবে। আপাতত এই বিধি নিষেধগুলি মেনেই কাজ শুরু হচ্ছে টলিপাড়ায়। আগামিকাল অর্থাৎ বুধবার থেকেই শুরু হচ্ছে বাংলা সিরিয়ালের শ্যুটিং৷

কীভাবে তৈরি হচ্ছে জনপ্রিয় চ্যানেলগুলি?

জি বাংলার পক্ষ থেকে সম্রাট ঘোষ জানাচ্ছেন যে আপাতত শিফট রোটেশনে কাজ হবে৷ একসঙ্গে ৩৫ জনের বেশি শিল্পী কাজ করতে পারবেন না৷ কিন্তু সিরিয়ালের গল্পের প্রয়োজনে অনেক চরিত্রে থাকেন৷ তাই তাঁদের ঘুরিয়ে ফিরিয়ে শ্যুটিং হবে৷ 'মোটের ওপর ১৪ ঘণ্টা কাজ হয়৷ সেটাকেই ৪টে শিফটে ভাগ করতে চলেছি৷ তবে তার আগে সব স্যানিটাইজ করার প্রক্রিয়া চলেছে৷ কোনও ঝুঁকি নিতে চাই না আমরা', জানাচ্ছেন সম্রাট৷ তবে অনেকক্ষেত্রে পারিবারিক গল্প বলা সিরিয়ালে একসঙ্গে অনেককে স্ক্রিনে দেখা যায়, সেটা কীভাবে শ্যুট করা হবে? তাহলে কী গল্প বদলাবে? সম্রাট বলছেন, 'খুব স্মার্টভাবে পুরো বিষয়টি সামলাতে হবে৷ আর সেই ভাবে স্ক্রিপ্টেও লিখতে হবে৷ কিন্তু বিনোদনের দিক থেকে কোনও খামতি থাকবে না৷ কন্টেন্টই তো আসল, সেটা যতটা সম্ভব আকর্ষণীয় রাখতে হবে যাতে অন্যান্য খামতিগুলোকে কাটিয়েও তা দর্শকদের আনন্দ দিতে পারে৷ এর পাশাপাশি লকডাউনের সময় এবং লকডাউনকে কেন্দ্র করে যেসব ধারাবাহিক শুরু হয়েছে, সেগুলোও চালানো হবে পরিস্থিতি বুঝে'৷ তাই লকডাউন পরবর্তী সময় দর্শকদের মনোরঞ্জনের কথা মাথায় রেথে কোমর বেঁধে নামছে জি বাংলা ৷

কালার্স বাংলার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, সরকারি অনুমতি পাওয়ার পরই তারা পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ শুরু করে দিয়েছিল৷ নিয়মিত ডাবিং চলছে৷ তবে নতুন কোনও কাজ বা নিজেস্ব কোনও প্রযোজনা এখন বন্ধ রয়েছে চ্যানেলে, তাই শ্যুটিং নিয়ে আলাদা কোনও পরিকল্পনা তাদের নেই৷

অন্যদিকে শ্যুটিং শুরু হওয়ার আগের পর্যায়েও স্টার জলসার তরফ থেকে কিছু জানানো হয়নি৷ লকডাউন পেরিয়ে কীভাবে শ্যুটিং-এর প্ল্যান রয়েছে তাদের, কীভাবেই বা পুরনো ধারাবাহিকগুলো এগিয়ে যাবে চ্যানেলে, তাও জানায়নি কর্তৃপক্ষ৷

জি বাংলার সম্রাট ঘোষ বলছেন যে কয়েক মাস পর ফের শ্যুটিং শুরু হওয়া নিঃসন্দেহে খুশির খবর৷ তবে দর্শকদের মনে কিন্তু প্রশ্ন থেকে যাচ্ছে পিরিয়ড ড্রামা নির্ভর সিরিয়ালগুলি নিয়ে৷ কারণ পুরনো সময় তুলে ধরতে কস্টিউম যেমন একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ৷ তেমনই একই সঙ্গে পর্দায় অনেক মানুষেরও উপস্থিতি প্রয়োজন৷ সেগুলিকে কীভাবে করা সম্ভব, সেটাই এখন ভাবাচ্ছে সবাইকে৷ আপাতত অপেক্ষা ১৫ জুনের, কারণ সেদিন থেকেই ফিরবে বাংলা সিরিয়ালের নতুন এপিসোড৷

এরই মধ্যে আবার জটিলতা তৈরি হয়েছে সিনে ভিডিও অ্যান্ড স্টেজ সাপ্লায়ার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে আপত্তি তোলায়৷ মূলত শ্যুটিংয়ের ক্যামেরা, লাইট জেনারেটর, পোশাক, গয়না, স্পেশাল এফেক্ট, রেন মেশিন, খাবার সাপ্লাই করার কাজ এরা করে থাকেন।তাঁদের সংগঠনের পক্ষ থেকে নীত পল, অর্ঘ্য মিত্ররা জানিয়েছেন, শ্যুটিং শুরুর সিদ্ধান্ত নিয়ে নেওয়ার পর তাঁদের খবর দেওয়া হয়েছে। আলোচনায় ডাকা হয়নি। সেই কারণে তাঁদের সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত, তাঁরা ‌কেয়ার টেকার পাঠাবেন না। তবে তাঁরা আশাবাদী, রাতের মধ্যে এই সমস্যার সমাধান হবে।

Published by: Pooja Basu
First published: June 9, 2020, 9:35 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर