ইলিশ-চিংড়ির স্বাদ আর গানের সুরে নতুন বছরে এক হয়ে যাবে দুই বাংলা

ইলিশ-চিংড়ির স্বাদ আর গানের সুরে নতুন বছরে এক হয়ে যাবে দুই বাংলা
পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তী ৷ -নিজস্ব চিত্র ৷

  • Share this:

    #কলকাতা: কাঁটাতারের বেড়াও যে বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতিকে ভাগ করতে পারেনি, তা যুগ যুগ ধরে প্রমাণিত ৷ কলকাতা ও বাংলাদেশ আলাদা ভূখণ্ড হলেও বাংলা চলচ্চিত্র, নাটক, সংগীত, এমনকr খাবারদাবার মিলেমিশে একাকার। এই ধারা অব্যাহত রাখতে এবারও শুরু হচ্ছে দুই বাংলার সাংস্কৃতিক উৎসব।

    নতুন বছর উপলক্ষে কলকাতায় আয়োজিত হচ্ছে ‘বাংলা উৎসব ২০১৯’ শিরোনামে সাংস্কৃতিক উৎসব। বাংলাদেশ ও কলকাতার যৌথ উদ্যোগে এই উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। থাকবে দুই বাংলার সঙ্গীত ও ঐতিহ্যবাহী খাবারের নানা আয়োজন।

    ইন্দো-বাংলাদেশের যৌথ উদ্দোগে সিনেমা হয়ে থাকেই, তবে এবার সুর থেকে খাওয়া-দাওয়া— সব মিলিয়ে সব মিলিয়ে জমজমাট উৎসবের আয়োজন হচ্ছে কলকাতার নজরুল মঞ্চে। শহরের এক সাংবাদিক সন্মেলনে জানালেন এই অনুষ্ঠানের অন্যতম উদ্দোগক্তা ও পরিচালক অরিন্দম শীল। তিন দিনব্যাপী এই উৎসব চলবে ৪ থেকে ৬ জানুয়ারি পর্যন্ত। উৎসবের নাম ‘বাংলা উৎসব’ ৷


    4

    উৎসবে বাংলাদেশ থেকে থাকছেন সংগীতশিল্পী বুলবুল ইসলাম, রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, ফাহমিদা নবী, বাপ্পা মজুমদার, অদিতি মহসিন, খায়রুল আনাম শাকিল ও ব্যান্ড ‘চিরকুট’। অন্যদিকে কলকাতার নচিকেতা চক্রবর্তী, অনুপম রায়, লোপামুদ্রা মিত্র, শুভমিতা বন্দ্যোপাধ্যায়, অজয় চক্রবর্তী, ইমন চক্রবর্তী ও ব্যান্ড ‘চন্দ্রবিন্দু’সহ অনেকে। সঙ্গীত ছাড়াও ঐতিহ্যবাহী সব খাবার নিয়ে হাজির হবেন দুই বাংলার রন্ধনশিল্পীরা। উৎসবে বাংলাদেশের কিংবদন্তী সংগীতশিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন ও কলকাতার আরতি মুখোপাধ্যায়কে আজীবন সম্মাননা দেওয়া হবে। কলকাতার নজরুল মঞ্চে হওয়া এই উৎসবের আয়োজক জনপ্রিয় অভিনেতা ও পরিচালক অরিন্দম শীল।

    First published:

    লেটেস্ট খবর