বিনোদন

corona virus btn
corona virus btn
Loading

প্রথম ছবি ‘নিরন্তর’-এ বুম্বাদা’কে নিয়ে কাজ, তবু সিনেমাহলে মুক্তি পেল না....অকপট চন্দ্রাশিস রায়

প্রথম ছবি ‘নিরন্তর’-এ বুম্বাদা’কে নিয়ে কাজ, তবু সিনেমাহলে মুক্তি পেল না....অকপট চন্দ্রাশিস রায়

প্রথম ছবি 'নিরন্তর' এবার মুক্তির অপেক্ষায়। ছবিতে প্রধান চরিত্রে প্রসেনজিৎ চট্টেপাধ্যায়। তবে করোনার কারণে, হলে নয়, 'নিরন্তর' মুক্তি পাচ্ছে একটি বেসরকারি বাংলা চ্যানেলে। প্রথম ছবি নিয়ে News18 Bangla-র সঙ্গে অকপট আড্ডায় পরিচালক চন্দ্রাশিস রায় ।

  • Share this:

#কলকাতা: এখন বয়স ৩১। আজ থেকে ১০ বছর আগে প্রথম কোনও ছবির সেটে আসা। তাও সম্ভব হয়েছিল দাদা ইদ্রাশিসের জন্য। কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়ের 'রং মিলান্তি' ছবিতে দাদা কাজ করছিলেন। ভাইয়ের অনেক দিনের ইচ্ছে সিনেমার সেটে একবার আসবেন। টেলিভিশনে তখন চন্দ্রাশিস রায় বেশ কিছু ছোট ছোট কাজ করেছেন। অনুমতি নিয়ে দাদার সঙ্গে চলে আসা। আর ঠিক সেই দিন থেকেই কেমন ভাবে যেন পরিচালক কৌশিক গাঙ্গোপাধ্যায়ের ছায়াসঙ্গী হয়ে গেলেন চন্দ্রাশিস রায়। গত দশ বছর ধরে কৌশিক গাঙ্গোপাধ্যায়কে অ্যাসিস্ট করছেন চন্দ্রাশিস। ইতিমধ্যেই তাঁর কাজের বেশ প্রশংসা করেন ইন্ডাস্ট্রির লোকজন। তাঁরই প্রথম ছবি 'নিরন্তর' এবার মুক্তির অপেক্ষায়। ছবিতে প্রধান চরিত্রে প্রসেনজিৎ চট্টেপাধ্যায়। তবে করোনার কারণে, হলে নয়, 'নিরন্তর' মুক্তি পাচ্ছে একটি বেসরকারি বাংলা চ্যানেলে। এই মাসের ২৮ তারিখ।

প্র: গত দশ বছর ধরে কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়কে সব ছবিতে অ্যাসিস্ট করেছেন। আপনি তো তা হলে ওঁনার মতন ছবি তৈরী করে ফেলতে পারবেন ? উ: না, ওঁনার মতো পারব কিনা জানি না। তবে হ্যাঁ, ওঁনার সঙ্গে গত দশ বছর ধরে আমি সত্যি ছায়ার মতোই আছি। উনি ডেফিনিটলি একটা বড় ইনস্পিরেশনও বটে।

প্র: ওঁনার ছবিতে কখনও কোনও অংশ ডিরেক্ট করেছেন ? উ: হ্যাঁ করতে হয়েছিল। 'ধূমকেতু' ছবিতে করতে হয়েছিল। শিমলাতে শ্যুটিং করতে গিয়েছিলাম। হঠাৎ কৌশিকদা ভীষণ অসুস্থ হয়ে পড়েন। কলকাতায় ফিরে আসতে হয়। কিন্তু শ্যুটিং চালিয়ে যেতে হত। তখন দেবদা, চিরঞ্জিতদা ও রুদ্রদাকে নিয়ে ৪-৫ দিন ছবির পরিচালনার কাজ করি। তবে ছবিটা মুক্তি পায়নি।

প্র: এই ছবিটা করার সুযোগ পেলেন কী করে ? উ: আসলে এই ছবিটা বানানোর জন্য আমাকে যে খুব কষ্ট করতে হয়েছে তা নয়। আমি একটা ছোট ছবি বানাই 'দুগ্গা' বলে, ২০১৭ সালে। যেটা গোয়া'তে সিলেক্ট হয়েছিল। সেই ছবিটা বুম্বাদা দেখেছিলেন। তার আগে বুম্বাদার সঙ্গে কৌশিকদার ছবিতেই কাজ করি। পরে যখন 'নিরন্তর'-এর গল্প লিখে ওঁনাকে শোনাই উনি বলেন যে, এই ছবিতে উনি শুধু অভিনয়ই করবেন না এটার প্রযোজনাও করবেন। সে ভাবেই কাজটা এগিয়ে চলে।

প্র: আপনার ছবি নিরন্তরের গল্পটা ঠিক কী?

উ: এটা জীবনের সাধারণ গল্প। তবে এই ছবির কোনও পাঞ্চ লাইন বা ট্যাগ লাইন যদি বলতে বলেন সেটা নেই। তবে এই ছবি জীবনের অনেক গভীর বিষয় তুলে ধরে। যে গুলোর উৎপত্তি খুব সাধারণ বিষয় থেকে। ছবিটা না দেখলে বোঝানো বা বলা মুশকিল।

প্র: প্রসেনজিৎকে ডিরেক্ট করার অভিজ্ঞতা কেমন ছিল ? উ: ইন্ডাস্ট্রির সবাই এটা জানেন যে, ওঁনার সঙ্গে কাজ করা বা ওঁনাকে ডিরেক্ট করাটা সব থেকে সহজ একটা বিষয়। উনি যখন একটা ছবি করেন তাঁর পেছনে এতটাই হোমওয়ার্ক করে আসেন যে সবার জন্যই কাজ খুবই সহজ হয়ে যায়। আামার ছবির ক্ষেত্রেও তাই হয়েছে।

প্র: আপনার প্রথম ছবি। কিন্তু হলে মুক্তি পেল না। বেসরকারি চ্যানেলে দেখানো হবে। কোথাও কী একটু হলেও মন খারাপ? উ: দেখুন প্রথম ছবি হলে মুক্তি পেল না, কোথাও পোস্টার পরল না এই বিষয়েগুলো ভেবে আমার নিশ্চয়ই কোথাও খারাপ তো লাগছে । কিন্তু তার সঙ্গে সঙ্গে এটাও বলব, এই সময়ে দাঁড়িয়ে ছবিটা অলরেডি যে প্ল্যাটফর্ম পাচ্ছে বা যে ভাবে বুম্বাদা নিজে ছবিটা নিয়ে সোশ্যাল প্লাটফর্মে কথা বলছেন সেটাও অনেক। আমরা এই বিষয়টা নিয়ে অনেক দিন ধরে কথা বলেছি। এবং অনেক আলোচনা করার পরেই এই সিদ্ধান্তে এসেছি যে এখন চ্যানেল ও পরে OTT প্ল্যাটফর্মে দেখানে হবে। OTT তে ছবিটা এলে এমনিতেই ভিউয়ার বাড়বে। অনেক লোকেই দেখবেন।

লকডাউনে অনেকটা সময় হাতে পাওয়া গিয়েছে বলে বেশ খানিকটা লেখালিখির কাজ সেরে ফেলেছেন চন্দ্রাশিস। এখনও পরের ছবি নিয়ে কারও সঙ্গে কথা না হলেও নিজের ভান্ডার তৈরী করে রাখছেন চন্দ্রাশিস রায়। ছোট থেকেই সাহিত্য পড়া বা চর্চা করে এসেছেন চন্দ্রাশিস। সাহিত্য নিয়ে ছবিও বানাবেন ভবিষ্যতে সেটা তিনি খুব ভাল করেই জানেন। কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায় তাঁর জীবনের বড় ইনস্পিরেশন। তবে ইরানিয়ান পরিচালক জাফর পানাহির ছবি তাঁকে ভাবায় অনেক বেশি।

Published by: Simli Raha
First published: June 19, 2020, 9:06 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर