corona virus btn
corona virus btn
Loading

রেফার করার জন্য আমার কোনও পরিচালক, প্রযোজক, হিরো বয়ফ্রেন্ড নেই : শ্রীলেখা মিত্র

রেফার করার জন্য আমার কোনও পরিচালক, প্রযোজক, হিরো বয়ফ্রেন্ড নেই : শ্রীলেখা মিত্র

'' যাঁরা রাজনীতিতে যোগ দিয়েছেন, তাঁদের এতদিন পর্যন্ত কিছু করতে দেখলাম না, হঠাৎ করে সবাই দেশোদ্ধারে নেমে পড়ল... সবার জন্য শুভেচ্ছা! ''

  • Share this:

#কলকাতা:  তিনি বরাবরই সাহসী, বরাবরই স্পষ্টবক্তা... এককথায় বরাবরই স্বতন্ত্র অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র! এবার লঞ্চ করলেন নিজের ইউটিউব চ্যানেল-- ‘আমি শ্রীলেখা'। ৩০ আগস্ট তাঁর জন্মদিন, চ্যানেল মুক্তির জন্য এই দিনটিকেই বেছে নিয়েছিলেন শ্রীলেখা। লঞ্চের দিন সঙ্গে ছিলেন বাবা ও কাছের মানুষেরা। বাবাকে সঙ্গেই নিয়েই চ্যানেলের উদ্বোধন করেন। ঘুরে ফিরে আসে মায়ের কথা। শ্রীলেখা জানান, এই মাসেই মা তাঁকে ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন। একদিকে জন্মদিনের আনন্দ, অন্যদিকে মাকে হারানোর কষ্ট... দুটো সম্পুর্ণ ভিন্নধর্মী ইমোশন মিলিয়ে অগাস্ট মাস তাঁর কাছে এক আলাদা জায়গা তৈরি করে নিয়েছে।

চ্যানেল লঞ্চের শেষে আড্ডায় বসলেন একদা আমির খানের সঙ্গে পর্দা ভাগ করে নেওয়া অভিনেত্রী--

গতমাসেই ঘোষণা হল জাতীয় পুরস্কারের তালিকা...

আমার নাম নেই! এটাই বলছেন তো ? থাকার কথাও তো নয়! কাজও তো ছিল না! একটাই ছবি করেছিলাম, সেটা হয় এ'বছর নয়তো আগামী বছর মুক্তি পাবে! তখন হয়তো তালিকায় নাম থাকবে!

আপনি ভাল ছবি করেননি এমনটা নয়, অভিনয়ের মান নিয়েও কিছু বলার অপেক্ষা রাখে না! তারপরও বড় ব্যানারে কাজ পান না! টলিউড কি আপনার সঠিক মূল্যায়ণ করতে পারল না ?

না পারেনি! ইন্ডাস্ট্রির পলিটিক্স! নির্দিষ্ট কেউ বা কারও নাম করব না, আমি কারও ব্যক্তিগত জীবনে নাক গলাই না। ওটা আমার রুচি নয়! পলিটিক্সের শিকার কম-বেশি সবাই-ই হয়, কিন্তু আমি একটু বেশি-ই হয়েছি। শুধু অভিনয় নয়, আমি কলাম, ব্লগ লিখতাম... সেগুলো নিয়েও কম রাজনীতি হয়নি! 'আশ্চর্য প্রদীপ'-এর প্রেমিয়ারের পর একজন স্বনামধন্য পরিচালক বলেছিলেন, ' ফর আ চেঞ্জ, একটু খারাপ অভিনয় করতে পার না ?' আমি উত্তর দিয়েছিলেম, ' ভাল অভিনয় করে তো তথাকথিত ভাল পরিচালকদের কাছ থেকে ডাক পাই না। খারাপ অভিনয় করলে তো ফোনটাও পাব না!'

শুধুই কি পলিটিক্স ?

জানি না! একটা সময় অনেকে বলত আমি মোটা বলে বড় ব্যানারে কাজ পাই না। অথচ বিদ্যা বালন প্রমান করে দিয়েছেন মোটা ফিগারেও দারুণ দারুন দারুন ছবি করা যায়! তাও আমি কষ্ট করে রোগা হলাম! তারপরও যে বিরাট কোনও পরিবর্তন এসেছে, এমনটা নয়। বড় ব্যানার-রা হয় আমায় ভাল অভিনেত্রী মনে করেন না, নয় স্টার মনে করেন না, নয় মনে করেন আমায় নিলে ছবি চলবে না...সত্যি বলতে কি আগে এগুলো নিয়ে ভাবতাম, এখন ভাবা ছেড়ে দিয়েছি।

সৃজিত, কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়... যাঁরা এইসময়ের নামী পরিচালক, তাঁরা আপনাকে অফার দিচ্ছে না কেন ?

সৃজিত যখন সৃজিত হয়নি, তখন আমার বন্ধু ছিল। নাম হয়ে যাওয়ার পর আমাকে কোনও ছবিতে ডাকেনি। আশা করি ভবিষ্যতে ডাকবে। টেলিভিশনের জন্য কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়ের অনেক প্রজেক্ট করেছি, কিন্তু ছবিতে নেন নি ! আশা করি ভবিষ্যতে ডাকবে। শিবপ্রসাদ ছোটবেলার বন্ধু। ওর হাত ধরেই টেলিভিশনে আসা।   কিন্তু ওর ছবিতেও ডাক পাইনি। আশা করি ভবিষ্যতে ডাকবে! আসলে প্রযোজক ধরার 'ক্রাফ্ট'টা আমার জানা নেই! একবার এক প্রযোজক এক নামী অভিনেত্রীর নাম করে বলেছিলেন, ''ওঁর মতো তুমি বশ করতে পার না ?'' আমি বলেছিলাম, ''বশীকরণ মন্ত্রটা শিখিনি, অভিনয়টা জানি!'' আমার কোনওদিনই কোনও পরিচালক, প্রযোজক, হিরো বয়ফ্রেন্ড হয়নি যে আমাকে রেকমেন্ড করবে! লড়াইটা আমি একাই লড়েছি, এখনও লড়ে চলেছি...!

ঝুলিতে কী কী ছবি রয়েছে ? 

অনীক দত্তর একটা ছবি করছি। অনেকে রয়েছেন, কাজেই বলতে পারব না এটা সম্পূর্ণ আমার ছবি! সৌমিত্র (চট্টোপাধ্যায়) কাকু প্রধান প্রোটাগনিস্ট, তাঁকে কেন্দ্র করে চিত্রনাট্য গড়িয়েছে। ভীষণভাবে মুখিয়ে রয়েছি আদিত্য বিক্রম সেনগুপ্তর 'অ্যাকুয়ারিয়াম'-এর জন্য।

টালিগঞ্জে তো রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার ঢল নেমেছে! আপনি ?

না! এমনি 'পলিটিক্স'-ই সামলাতে পারি না, তায় আবার 'পলিটিক্স'-এর 'পলিটিক্স'! যাঁরা রাজনীতিতে যোগ দিয়েছেন, তাঁদের এতদিন পর্যন্ত কিছু করতে দেখলাম না, হঠাৎ করে সবাই দেশোদ্ধারে নেমে পড়ল... সবার জন্য শুভেচ্ছা! আমি আমার মত চুপচাপ কাজ করি, ঢাকঢোল পিটিয়ে নয়। বিশেষ রং-এর পতাকারও কোনও প্রয়োজন পড়ে না!

আপনার 'ফিটনেস' মন্ত্র কী ?

একসময় ডায়েট করতাম, এখন আর করি না! গতকালই যেমন বিরিয়ানি খেলাম। তবে, রাতে স্যালাড খেয়ে ক্যালরি ব্যালেন্স করে নিলাম। নিয়মিত এক্সারসাইজ করি! ওটা আমার ভাল লাগে!

First published: September 8, 2019, 2:44 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर