'হিন্দু ধর্মকে আক্রমণ'! দেবলীনার বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ বিজেপি নেতার

'হিন্দু ধর্মকে আক্রমণ'! দেবলীনার বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ বিজেপি নেতার
গোমাংস খাওয়া নিয়ে কথা বলায় এবার দেবলীনার বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ করলেন বিজেপি নেতা। ঘটনাকে কেন্দ্র করে সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোড়ন।

গোমাংস খাওয়া নিয়ে কথা বলায় এবার দেবলীনার বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ করলেন বিজেপি নেতা। ঘটনাকে কেন্দ্র করে সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোড়ন।

  • Share this:

    #কলকাতা: অভিনেত্রী দেবলীনা দত্তের বিরুদ্ধে এবার আইনি পদক্ষেপ করলেন আইনজীবী তথা বিজেপি নেতা তরুণজ্যোতি তিওয়ারি। বাগুইআটি থানায় অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি। সোশ্য়াল মিডিয়া পোস্টের মাধ্যমে সেই খবর জানিয়েছেন আইনজীবী।

    সম্প্রতি গোমাংস রান্না করার কথা বলায় সোশ্যাল মিডিয়ায় আক্রমণের শিকার হয়েছেন দেবলীনা দত্ত। গায়ক-পরিচালক অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়ের কথার প্রসঙ্গ টেনে তিনি জানান যে, তিনি নিজে নিরামিষাশী হলেও প্রয়োজনে নবমীর দিন অনিন্দ্যর বাড়ি গিয়ে বিফ রান্না করে দিতে পারেন। কারণ রান্না তিনি ভালই করেন। আর খাওয়া নিয়ে তাঁর কোনও ছুতমার্গ নেই। এই মন্তব্যের পরেই আক্রমণের মুখে পড়েন দেবলীনা।

    হিন্দু ধর্মের ভাবাবেগে আঘাত হয়েছে এই অভিযোগে সরব হয়ে ট্রোল করা হয় দেবলীনাকে। এমনকি কদর্য ভাষাতেও তাঁকে আক্রমণ করা হয়। এই প্রসঙ্গেই অন্য আর একটি বৈদ্যুতিন চ্যানেল আয়োজিত টক শোয়ে এসে বিজেপি কর্মী তথা আইনজীবী তরুনজ্যোতি তিওয়ারি দেবলীনাকে এ বিষয়ে কথা বলার জন্য হুমকি দেন এবং আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন। এর পরে নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে পোস্ট করে দেবলীনার বিরুদ্ধে সামাজিক হিংসা ছড়ানোর প্রস্তাবনাও করেন।


    মঙ্গলবার তিনি বাগুইআটি থানায় দেবলীনার বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ করেছেন বলে জানান। তিনি লেখেন, "তরুণজ্যোতি কথা রাখে। অনিন্দ্য দা এবং দেবলীনা দিদি কে একটাই অনুরোধ করবো পরেরবার হিন্দু ধর্ম নিয়ে কথা বলার আগে একবার ভাববেন। বলেছিলাম আইনি ব্যবস্থা হবে এবং এটা তার প্রথম পদক্ষেপ। দেখা যাক পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য পুলিশ পদক্ষেপ নেয় কিনা। আইনের ছাত্র হিসেবে আইনি পথে প্রতিবাদ করতে ভালোবাসি। সেটা চালিয়ে যাব। সবাইকে অনুরোধ করবো শালীনতার মাত্রা রেখে আইনি পথে পদক্ষেপ নেওয়ার । পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ পদক্ষেপ না নিলে বুঝতে হবে তারাও দুর্গা পুজোর সময় বিফ খাওয়া প্রোমোট করে। সকল হিন্দুত্ববাদী বন্ধুকে অনুরোধ করবো তাদের লোকাল থানায় অভিযোগ জানাতে। বুদ্ধিজীবী হওয়া মানে হিন্দু ধর্মকে আক্রমন করার লাইসেন্স পাওয়া না। এটা মনে হয় বোঝানোর সময় এসেছে।"
    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: