পুজোর বাকি মাত্র ৮৩ দিন, দেবী দুর্গার আবাহনে মা গঙ্গার সাজে হাজির প্রিয়াঙ্কা সরকার

Amrit Halder | News18 Bangla
Updated:Jul 13, 2019 03:56 PM IST
পুজোর বাকি মাত্র ৮৩ দিন, দেবী দুর্গার আবাহনে মা গঙ্গার সাজে হাজির প্রিয়াঙ্কা সরকার
মা গঙ্গার সাজে প্রিয়াঙ্কা সরকার ৷ ছবি: তথাগত ঘোষ ৷
Amrit Halder | News18 Bangla
Updated:Jul 13, 2019 03:56 PM IST

#কলকাতা: হাতে আর মাত্র ৮৩ দিন ৷ এরপরেই গোটা বিশ্বের বাঙালি মেতে উঠবে বাঙালির সেরা উৎসব দুর্গাপুজোতে ৷ বাঙালি জীবনে দুর্গাপুজোর মাহাত্ম্যের কথা একমাত্র বাঙালিরাই বুঝতে পারবেন ৷ দুর্গাপুজো শুধুই পুজো নয় ৷ দুর্গাপুজো একটা মিলনোৎসব একটা আবেগ ৷ যে চারদিনের অভিজ্ঞতা নিয়ে গোটা বছরটা কাটিয়ে দেয় বাঙালি ৷ আর সেই দুর্গাপুজোক জাঁকজমকে কোনও কসুর করেন না বড় বড় পুজোর উদ্যোক্তারা ৷ একটা পুজো শেষ হওয়ার পর থেকেই শুরু হয়ে পরবর্তী বছরের পুজোর পরিকল্পনা ৷

হাতে সময় একদমই কম ৷ জোরদার প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে সর্বত্রই ৷ পিছিয়ে নেই বাঘাযতীন তরুণ সংঘ ক্লাব ৷ এ বছর তাদের দুর্গোৎসবের ৭০তম বর্ষ ৷ তাই একটু বাড়তি উদ্দীপনা পেয়েছেন ক্লাবের সদস্যরা ৷ উল্টোরথের দিন হয়ে গেল বাঘাযতীন তরুণ সংঘের দুর্গোৎসবের খুঁটিপুজোর অনুষ্ঠান ৷ অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা সরকার।

আসলে তিনিই বেশ কয়েকবছর ধরে এই পুজোর মুখ ৷ এ বছর বাঘাযতীন তরুণ সংঘের দুর্গাপুজোর থিম 'এসো মুক্ত করো' ৷ থিমের মাধ্যমে দেবী গঙ্গাকে তুলে ধরা হবে ৷ শাস্ত্রে বলা হয় পতিতকে উদ্ধার করতে, বিশ্বের সমস্ত কালিমাকে মুছে দিতেই ধরণীর বুকে দেবী গঙ্গার আগমন ঘটেছিল ৷ আর সেই কথা মাথায় রেখেই বিশ্বের সমস্ত কালিমা দূর করতেই এই থিম বেছে নিয়েছেন তাঁরা ৷ এ বছর বাঘাযতীন তরুণ সংঘের প্রতিমা নির্মাণ করেছেন দীপ্তরেখ ভড়। এই পুজোর থিম শিল্পী হলেন পার্থ ঘোষ, সিদ্ধার্থ ঘোষ।

IMG_4238

বাঘাযতীন তরুণ সংঘের দুর্গোৎসবের খুঁটিপুজোর অনুষ্ঠানে প্রিয়াঙ্কা সরকার ৷

Loading...

ইতিমধ্যেই এই পুজোর থিম নিয়ে একটি ব্যানার সামনে এসেছে ৷ যেখানে অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা সরকারকে মা গঙ্গার সাজে দেখা গিয়েছে ৷ এই সাজের মেকআপের দায়িত্বে ছিলেন সুমন গঙ্গোপাধ্যায় ৷ স্টাইলিংয়ের দায়িত্ব সামলেছেন ঐন্দ্রিলা বসু ৷ এবং ছবি তুলেছেন প্রিয়াঙ্কার বিশেষ বন্ধু তথা সেলেব্রিট্রি ফোটোগ্রাফার তথাগত ঘোষ ৷

First published: 03:56:43 PM Jul 13, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर