• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • ওঁরা বড় ভালো! ট্যুইটে হৃতিক রোশন, আদিত্য পাঞ্চোলিকে ফের একহাত নিলেন কঙ্গনা !

ওঁরা বড় ভালো! ট্যুইটে হৃতিক রোশন, আদিত্য পাঞ্চোলিকে ফের একহাত নিলেন কঙ্গনা !

তবে এর আগে অন্যদের নিয়ে এই রকম অসম্মানজনক আলটপকা মন্তব্য কঙ্গনাও করেছেন। কখনও কখনও বিনা কারণেই করেছেন।

তবে এর আগে অন্যদের নিয়ে এই রকম অসম্মানজনক আলটপকা মন্তব্য কঙ্গনাও করেছেন। কখনও কখনও বিনা কারণেই করেছেন।

তবে এর আগে অন্যদের নিয়ে এই রকম অসম্মানজনক আলটপকা মন্তব্য কঙ্গনাও করেছেন। কখনও কখনও বিনা কারণেই করেছেন।

  • Share this:

#মুম্বই:বেশ কিছুদিন ধরেই মহারাষ্ট্র সরকার এবং মুম্বই পুরসভা রীতিমতো সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে কঙ্গনা রানাউতের পিছনে পড়ে আছে। না, তাতে যে ঝাঁসির রানি খুব ভেঙে পড়েছেন তা নয়। উনি সেই ধাতের মেয়েই নন!

অনেকে বলছেন, ঝামেলা শুরু করেছেন নায়িকাই! বলা নেই কওয়া নেই, দুম করে বলে বসলেন যে মুম্বই এখন পাক-অধিকৃত কাশ্মীর হয়ে গিয়েছে। ব্যস, আর যায় কোথায়! মরাঠি জাত্যভিমানে কুটুস করে পিঁপড়ে দিল কামড়ে। কঙ্গনা মুম্বইয়ের খাবেন, মুম্বইয়ের পরবেন আর সেই শহরকেই তুলোধোনা করবেন, সেটা মুম্বইয়ের মানুষ মেনে নেননি। তাতে বয়েই গেল কঙ্গনার! তিনি ওয়াই ক্যাটাগোরির নিরাপত্তা নিয়ে ড্যাং-ড্যাং করে মুম্বই ফিরলেন। মুম্বই পুরসভাও কিসিসে কম নেহি! তাঁরাও দমাদ্দম হাতুড়ি মেরে কঙ্গনার অফিস গুঁড়িয়ে দিয়ে বললেন, এ সব বেআইনি ইমারত এখানে চলবে না।

মোটামুটি ভাবে কঙ্গনা বনাম মহারাষ্ট্র সরকারের ইঁদুর-বিড়াল খেলার এটাই সারাংশ। তবে কঙ্গনা নিজেই যেচে পড়ে কাঁটার মুকুট মাথায় পড়েছেন। ফলে, আপাতত হয় ইন্টারভিউ, নয় সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডল মারফত তিনি মুম্বই পুরসভা এবং শহরের অনেক বাসিন্দাদেরই একহাত নিচ্ছেন!

এই মুম্বইয়ের অধিবাসী বলতে তাঁর প্রাক্তন আদিত্য পাঞ্চোলি আর হৃতিক রোশনের কথাই ধরতে হবে আর কী! এমনিতেই দু'বেলা আদিত্য আর হৃতিককে গাল না পেড়ে কঙ্গনা খেতে বসেন না। তবে এ বার তিনি যা লিখেছেন, তা পড়ে অনেকেই বেশ চমকে গিয়েছেন। অনেকে আবার মুখ টিপে হেসেছেন। কারণ তাঁরা মনে করছেন যেন-তেন প্রকারেণ লাইম লাইটে থাকার এটা আরও একটা মাস্টার স্ট্রোক বই কিছু নয়। কঙ্গনা তাঁর সাম্প্রতিক ট্যুইটে বলেছেন, যে ভাবে মহারাষ্ট্র সরকার তাঁর পিছনে লেগেছে, তাতে এই মুহূর্তে হৃতিক রোশন আর আদিত্য পাঞ্চোলিকে তাঁর দেবদূতের মতো মনে হচ্ছে। তাঁকে নিয়ে সবার এত সমস্যা কেন, সেই প্রশ্নও করেছেন ‘ক্যুইন’ কঙ্গনা।

কঙ্গনার চটে যাওয়ার পিছনে রয়েছে মুম্বইয়ের বর্তমান পুরপ্রধান ও শিবসেনা-কর্মী কিশোরী পেড়নেকরের একটি মন্তব্য। তিনি কঙ্গনাকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন যে হিমাচলের একটি মেয়ে মুম্বইকে পাক-অধিকৃত কাশ্মীর বলার সাহস পায় কী ভাবে? এই মন্তব্যে কঙ্গনাকে 'দো টাকে কে লোগ' বা দু’টাকার মানুষ বলে ব্যঙ্গও করেন কিশোরী। তবে এর আগে অন্যদের নিয়ে এই রকম অসম্মানজনক আলটপকা মন্তব্য কঙ্গনাও করেছেন। কখনও কখনও বিনা কারণেই করেছেন। টুকটাক ঢিল ছুঁড়তে গিয়ে উনি যে মোক্ষম একটা পাটকেল খাবেন, সেটা বোধহয় পাহাড়ি কন্যে এ বার বুঝতে পারেননি। দেখা যাক, শেষ পর্যন্ত জল কত দূর গড়ায়!

Published by:Piya Banerjee
First published: