বিনোদন

corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘আত্মহত্যা নয়, সুশান্তকে খুন করা হয়েছে...!’ দাবি অভিনেতার পরিবারের

‘আত্মহত্যা নয়, সুশান্তকে খুন করা হয়েছে...!’ দাবি অভিনেতার পরিবারের

সুশান্তের ঘরে কোনও সুইসাইড নোট না মেলায় বাড়ছে রহস্য ৷

  • Share this:

#মুম্বই: উত্তর খুঁজছে গোটা দেশ। রাতে দূরবীন নিয়ে আকাশ দেখা যাঁর নেশা, তিনি এত তাড়াতাড়ি তারার দেশে চলে গেলেন কেন? ৩৪ বছরে কেরিয়ারের মধ্যগগনে, চরম সিদ্ধান্ত কেন নিতে হল সুশান্ত সিং রাজপুতকে? এই প্রশ্নগুলিই এখন ঘুরপাক খাচ্ছে সবার মনে ৷

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু নিয়ে নতুন রহস্য! রবিবার সুশান্তের মৃত্যুসংবাদ যখন সারা দেশকে স্তম্ভিত করে দিয়েছে, বলিউড তারকারা শোকাচ্ছন্ন, পটনার বাড়িতে মানুষের ভিড়, ভক্তদের শোকবার্তায় উপচে পড়ছে সোশ্যাল মিডিয়া, তখনই এক বিস্ফোরক দাবি করে বসলেন সুশান্ত সিংয়ের মামা! তাঁর দাবি, ”সুশান্ত আত্মহত্যা করেনি। ওঁকে মেরে ফেলা হয়েছে। আমরা চাই পুলিশ এই ঘটনার যথাযথ তদন্ত করুক।” ২১ জানুয়ারি জন্মদিন ছিল তাঁর। ১৪ জুন আচমকা দাঁড়ি ৩৪ বছরের টগবগে জীবনে। বন্ধু, বলিউড, পড়শি ভেবেই উঠতে পারছেন না, সুশান্ত সিং রাজপুত  আর নেই!

রবিবার সকালে বেডরুমের ভেতর থেকে সুশান্তের কোনও সাড়া না মেলায় বেলা ১২টা নাগাদ তালাওয়ালা ডেকে যখন দরজা খোলা হয়, দেখা যায় নিজের কুর্তা দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে সিলিং ফ্যান থেকে ঝুলছে সুশান্তের দেহ। ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টে গলায় ফাঁস লাগিয়ে সুশান্ত আত্মহত্যা করেছেন বলে জানানো হলেও, তা মানতে চায় না তাঁর পরিবার ৷ সুশান্ত কোনওমতেই আত্মহত্যা করতে পারেন না ৷ এমনটাই দাবি তাঁদের ৷ সুশান্তের মামার মতে, আত্মহত্যা করার মতো ছেলে সুশান্ত নয় ৷ তবে কী কারণে তাঁকে কেউ খুন করে থাকবেন, সে সম্পর্কেও কিছু বলতে পারেননি সুশান্তের মামা ৷ সংবাদসংস্থা এএনআই-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পটনার জন অধিকার পার্টির প্রধান পাপ্পু যাদবও সুশান্তের মৃত্যুতে সিবিআই তদন্তের দাবি তুলেছেন ৷

সুশান্তের মামার এই অভিযোগের পাশাপাশি, সুশান্তের ঘর থেকে কোনও সুইসাইড নোট উদ্ধার না হওয়ায় রহস‍্য আরও বেড়ে গিয়েছে। কেরিয়ারে যথেষ্ট সাফল্য ৷ টাকা পয়সার অভাব নেই ৷ ছবির অফারও সুশান্তের কাছে ছিল ৷ তাহলে সেই ছেলে কেন আত্মহত্যা করতে যাবেন ৷ এমন প্রশ্নই তুলছেন এখন অনেকেই ৷

তবে মাঝেমধ্যেই ‘ডিপ্রেশন’ সুশান্তের জন্য কোনও নতুন ঘটনা নয় ৷ ২০১৬ সালের মার্চ মাস। সুশান্ত সিং রাজপুতের সঙ্গে অঙ্কিতা লোখান্ডের দীর্ঘদিনের প্রেম তখন ভেঙে গিয়েছে। সেই সময়েই একদিন সুশান্তের ট্যুইট ছিল, ‘‘বড্ড একা লাগছে। মনে হচ্ছে, যেন কেউই পাশে নেই।’’ প্রাক্তন বয়ফ্রেন্ডকে ট্যাগ করে কিছুক্ষণের মধ্যেই অঙ্কিতা লোখান্ডের বার্তা, ‘‘তুমি একা কোথায়? আমি সবসময় তোমার সঙ্গে আছি ৷’’

দু’জনের সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ায় অনেকেই অবাক হয়েছিলেন। কারণ মনে হত, এ সম্পর্ক ভাঙার নয়। এখানেই বিভ্রান্তি। কারণ গ্ল্যামার দুনিয়ায় সাফল্য-ব্যর্থতা - সম্পর্ক, বন্ধুত্ব, প্রেম, শক্রতা - কিছুই স্থায়ী নয়। এই বলিউডকে চিনতে সুশান্ত সিং রাজপুতের কি দেরি হয়ে গেল ? তারই পরিণতিতে আত্মহত্যার পথ বেছে নেওয়া?

বলিউডকে যাঁরা কাছ থেকে দেখেছেন, তাঁরা সবাই বলেন, সেলিব্রিটিদের সাফল্য-ব্যর্থতা, ব্যক্তিগত জীবনে আলোড়নের খবর হয়তো পাওয়া যায়। কিন্তু ৪ দেওয়ালের মধ্যে থেকে যায় তার চেয়েও অনেক বেশি কিছু। মনোচিকিৎসকরা বলছেন, শুধু সেলিব্রিটি কেন, সাধারণ মানুষও তো একই ভাবে লুকিয়ে রাখেন নিজেকে।

মাত্র ৩৪ বছরে, চূড়ান্ত সফল এক অভিনেতা জীবনে কী এমন হতাশা, যা তাঁকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিল? কোনওভাবে কি একে ব্যাখ্যা করা যায়? নাসিরুদ্দিন শাহ আত্মজীবনীতে বলেছেন, অভিনেতা মাত্রেই সে বড় একা। এটা যে কতটা সত্যি, গ্ল্যামার দুনিয়ার মানুষ হাড়ে হাড়ে বোঝেন।

প্রথমে গ্ল্যামার দুনিয়ায় জায়গা করে নেওয়ার লড়াই, তারপর জায়গা টিকিয়ে রাখার লড়াই। সঙ্গে সাফল্য-ব্যর্থতা - সম্পর্ক, বন্ধুত্ব, প্রেম, শক্রতা । সুশান্ত সিং রাজপুতের ক্ষেত্রে কোন ফ্যাক্টর বড় হয়ে উঠল? কোনওদিনই হয়তো উত্তর মিলবে না ।

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: June 15, 2020, 12:28 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर