মৃত্যু নিয়ে ব্যবসা করা যাবে না, সুশান্তের বায়োপিক বন্ধে রায় দিল্লি হাই কোর্টের!

মৃত্যু নিয়ে ব্যবসা করা যাবে না, সুশান্তের বায়োপিক বন্ধে রায় দিল্লি হাই কোর্টের!

মৃত্যু নিয়ে ব্যবসা করা যাবে না, সুশান্তের বায়োপিক বন্ধে রায় দিল্লি হাই কোর্টের!

প্রয়াত অভিনেতার নামে অথবা জীবনী নিয়ে ছবি করার কথা ভেবেছিলেন বলিউডের বহু প্রযোজক এবং পরিচালক।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: প্রয়াত প্রাক্তন অভিনেতা ও বলিউড সুপারস্টার সুশান্ত সিং রাজপুতের (Sushant Singh Rajput) নামে কোনও ছবি নয়। মঙ্গলবার এমনই রায় দিল দিল্লি হাই কোর্ট। জাস্টিস মনোজ কুমার ওহরির নেতৃত্বাধীন দিল্লি হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ মঙ্গলবার একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। যে বিজ্ঞপ্তিতে পরিষ্কার বলা হয়েছে, ভবিষ্যতে কোনও রকম ছবি, ওয়েব সিরিজ অথবা অন্য কোথাও সুশান্ত সিং রাজপুতের নাম ব্যবহার করতে পারবেন না প্রযোজক-পরিচালকেরা। এই ঘোষণার ফলে কার্যত সাড়া পড়ে গিয়েছে মুম্বইয়ের ফিল্ম-জগতে। প্রয়াত অভিনেতার নামে অথবা জীবনী নিয়ে ছবি করার কথা ভেবেছিলেন বলিউডের বহু প্রযোজক এবং পরিচালক। কিছু ছবির কাজও শুরু হয়ে গিয়েছিল ইতিমধ্যেই। যে সমস্ত প্রযোজক অথবা পরিচালক সুশান্তকে ঘিরে তাঁদের আসন্ন ছবির কথা ভেবেছিলেন বা ভাবছিলেন, তাঁদের প্রত্যেকের কাছেই দিল্লি হাই কোর্টের ঘোষণা করা ওই বিজ্ঞপ্তি পৌঁছে গিয়েছে। ফলত তাঁদের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা আপাত বিশ বাঁও জলে।

প্রয়াত অভিনেতার বাবা কৃষ্ণ কিশোর সিং-এর (Krishna Kishore Singh) দিল্লি হাই কোর্টে করা একটি ল' স্যুটের ভিত্তিতে ওই বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে দিল্লি হাই কোর্ট। সুশান্তের বাবা কৃষ্ণ কিশোর সিং-এর মতে 'সুশান্তের ঘটনাটির সুযোগ নিতে চাইছে বলিউডের একদল প্রযোজক-পরিচালক।' তাঁর ছেলের নাম ব্যবহার করে নিজেদের কেরিয়ারের গ্রাফ উর্ধ্বমুখী করে তোলাই এইসব প্রযোজক-পরিচালকের উদ্দেশ্য এমনটাই মনে করেছেন কিশোর। আর সেই হেতুই তিনি দিল্লি হাই কোর্টে ওই ল' স্যুট ফাইল করেন, যাতে বলিউডে কাজ করা প্রযোজক-পরিচালকেরা তাঁর ছেলের নাম ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকেন।

শুধু নাম ব্যবহার করাই নয়, নামের পাশাপাশি নিজের ছেলের পছন্দের কোনও কিছুও দেখাতে না দেওয়ার আর্জি করেছেন, বছর ষাটেকের কৃষ্ণ কিশোর। তাঁর মতে, 'তাঁর ছেলে ও তাঁর পরিবারের চরিত্রহনন হয়, এমন কোনও কিছুই পর্দায় আসা উচিত নয়। সে সিনেমা, ওয়েব সিরিজ বই অথবা ইন্টারভিউ যাই হোক।' চারজন নামজাদা উকিলের সাহায্যে কৃষ্ণ কিশোর ওই ল' স্যুট দিল্লি হাই কোর্টে পেশ করেন। এই চারজন উকিল হলেন অক্ষয় দেব, বরুণ সিং, অভিজিৎ পাণ্ডে এবং সমরুদ্ধি বেনেবর। এই চারজনের যৌথ প্রচেষ্টার নিরিখেই দিল্লি হাই কোর্ট কৃষ্ণ কিশোর ও তাঁর পরিবারের পক্ষে রায় দিয়েছেন বলে শোনা যাচ্ছে।

গত বছর কোভিড প্যান্ডেমিকের সময়েই আত্মহত্যা করেন তরুণ অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত। তাঁর মৃত্যুর পর বহু বিতর্ক হয়েছে। ঘটনার একবছর পেরিয়ে গেলেও বিতর্ক যে পিছু ছাড়েনি, দিল্লি হাই কোর্টের রায়ে তা ফের একবার প্রমাণিত হল।

Published by:Piya Banerjee
First published: