‘ওটুকু সবার’, অক্সিজেন পৌঁছে দিতে উদ্যোগী সৃজিত-সহ বেশ কিছু মুখ

সৃজিত মুখোপাধ্যায়, ছবি-ফেসবুক

‘ওটুকু’-র মধ্যে ‘ওটু’ হল O2 বা অক্সিজেন৷ প্রত্যেক কোভিডরোগী কাছে অক্সিজেন সরবরাহ করতে চায় এই সংস্থা ৷ সেবাব্রতী এই দলে সৃজিত মুখোপাধ্যায়, রানা সরকার ছাড়াও আছেন অর্কদীপ মল্লিকা নাথ এবং চৈতালি বিশ্বাস৷

  • Share this:

    কলকাতা : অতিমারির দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত পরিস্থিতিতে টলিউডের মানবিক মুখ এখন উজ্জ্বল ৷ পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় অনেক দিন ধরেই তাঁর প্রোফাইলে কোভিডত্রাণ সংক্রান্ত বহু তথ্য শেয়ার করে চলেছেন৷ সম্প্রতি তিনি শেয়ার করেছেন ‘টিম ওটুকু সবার’-এর কথা ৷

    এখানে ‘ওটুকু’-র মধ্যে ‘ওটু’ হল O2  বা অক্সিজেন ৷ প্রত্যেক কোভিডরোগী কাছে অক্সিজেন সরবরাহ করতে চায় এই সংস্থা ৷ সেবাব্রতী এই দলে সৃজিত মুখোপাধ্যায়, রানা সরকার ছাড়াও আছেন অর্কদীপ মল্লিকা নাথ এবং চৈতালি বিশ্বাস  ৷

    চৈতালি বিশ্বাস ফেসবুকে জানিয়েছেন, তাঁদের উদ্যোগে কলকাতায় ১০ টা অক্সিজেন সিলিন্ডার পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন এলাকায় ৷ যাঁদের সামর্থ্য নেই, তাঁদের কাছে কোনও অর্থই চাওয়া হচ্ছে না ৷ কিন্তু সংস্থার আবেদন, যাঁরা পারবেন তাঁরা যেন রিফিল, মাস্ক এবং সিলিন্ডার পৌঁছে দেওয়ার ব্যয় বহন করেন ৷ কিন্তু তার জন্যেও কোনও নির্দিষ্ট অঙ্কের অর্থ চাওয়া হচ্ছে না৷ বরং, ছেড়ে দেওয়া হয়েছে যাঁরা অক্সিজেন নিচ্ছেন তাঁদের উপরই ৷ স্বেচ্ছায় তাঁরা যা দেবেন, তাই দিয়ে বাকিদের নিখরচায় পরিষেবা পৌঁছে দেওয়া হবে ৷

    ছবি-ফেসবুক

    পাশাপাশি, জেলা প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করে সরকারি হাসপাতাল, সেফ হোম ও ব্লক অফিসে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে অক্সিজেন কনসেনট্রেটর ৷ কলকাতায় খোলা হয়েছে অক্সিজেন হোম ৷ ব্যবস্থা করা হয়েছে ভ্রাম্যমাণ অক্সিজেন অ্যাম্বল্যান্সের ৷ কলকাতার পাশাপাশি বিভিন্ন জেলাতেও তাঁরা পরিষেবা ছড়িয়ে দিতে চান ৷ তবে সে জন্য প্রয়োজন আরও অর্থের ৷ সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন শাখায় অর্থ সংগ্রহের জন্য আবেদন করেছেন তাঁরা ৷

    করোনাত্রাণে ইতিমধ্যেই আর্তদের পাশে দাঁড়িয়েছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত৷ সেফ হোম খুলেছেন যিশু সেনগুপ্ত৷ অভিনেতা সাংসাদ দেব ঘাটালে নিজের কার্যালয়কে আইসোলেশন সেন্টারে রূপান্তরিত করেছেন ৷ এছাড়াও তিনি নিজের রেস্তরাঁ থেকে থেকে বিনামূল্যে খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন কোভিডআক্রান্তদের ৷  নিখরচায় খাবার পৌঁছে দেওয়ার একই ধরনের উদ্যোগে ব্রতী হয়েছেন গায়ক অনীক ধরও ৷ লোপামুদ্রা মিত্র উদ্যোগ নিয়েছেন নিভৃতবাসে থাকা আর্তদের গান শোনানোর ৷ জাতীয় পুরস্কারজয়ী আর এক অভিনেত্রী সুদীপ্তা চক্রবর্তী রক্তদান করেছেন থ্যালাসেমিয়া রোগীর জন্য ৷ বাকিদের কাছে তিনি আবেদন করেছেন রক্তদানের মতো উদ্যোগে সামিল হওয়ার জন্য ৷ মেদিনীপুরের বিধায়ক জুন মালিয়া মেদিনীপুরের হাসপাতালে রোগীর আত্মীয়দের খাবারের ব্যবস্থা করেছেন এবং মাস্ক বিলি করছেন। ভোটে হেরে গিয়েও মানুষের মাঝে পৌঁছে করোনাত্রাণ বিলি করছেন তৃণমূলের তারকা সদস্য সায়নী ঘোষ ৷

    অতিমারিকে হারিয়ে জীবনে জয়গান গাইতে বদ্ধপরিকর টলিউড ৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: