corona virus btn
corona virus btn
Loading

'বলো আজ বাঁচবে কে , আমি না তুমি’, লকডাউনে গান বাঁধলেন চৈতি পুত্র অমর্ত্য

'বলো আজ বাঁচবে কে , আমি না তুমি’, লকডাউনে গান বাঁধলেন চৈতি পুত্র অমর্ত্য

লকডাউন এ নতুন গান তৈরি করে মানবতার কথা তুলে ধরলেন এই জেনারেশনের প্রতিশ্রুতিমান অভিনেতা ও চৈতি ঘোষালের পুত্র অমর্ত্য রায়। সেই সঙ্গে প্রকাশ পেল তাদের নতুন ইউটিউব চ্যানেল ' চৈতি ও অমর্ত্য'

  • Share this:

'বলো আজ বাঁচবে কে , আমি না তুমি’ বলো আজ লড়বে কে, তুমি না আমি।'

#কলকাতা: লকডাউন এ নতুন গান তৈরি করে মানবতার কথা তুলে ধরলেন এই জেনারেশনের প্রতিশ্রুতিমান অভিনেতা ও চৈতি ঘোষালের পুত্র অমর্ত্য রায়। সেই সঙ্গে প্রকাশ পেল তাদের নতুন ইউটিউব চ্যানেল  ' চৈতি ও অমর্ত্য'। ভাবনায় অমর্ত্য, তার মা চৈতি এবং সম্রাট ঘোষাল। ইংরেজিতে সিঙ্গলস বের হলেও বাংলায় এটাই অমর্ত্যর  প্রথম সিঙ্গল। এর আগে ‘22 ইয়ার্ডস’ ছবিতে দুটি গান লিখেছেন অমর্ত্য। পুনে এফ টি আই আইতে পরিচালনা নিয়ে পড়াশোনা করছেন আর তার ফাঁকে মুম্বইতে অভিনয় চালিয়ে যাচ্ছেন। অভিষেক সাহার ‘উড়নচণ্ডী’ দিয়ে অভিনয় জগতে পা রাখা  অমর্ত্য এখন ব্যস্ত অজয় দেবগনের ‘ময়দান’ ছবি নিয়ে।

কোনদিনও গান না শিখলেও অমর্ত্যর গিটার বাজানো ,গান লেখার অভ্যাসটা রয়েছে গত পাঁচ-ছয় বছর ধরেই। তখন ব্যাক ভোকাল হিসেবে ব্যান্ডে থাকলেও এখন নিজেই নিজের কথা সুরে গান গাইতে ভালোবাসেন অমর্ত্য। তাঁর কথায় '  এই প্রশ্নটা সবার জন্য , এখনো কি আমি না তুমি করবো না তা ভুলে গিয়ে আমরা একসঙ্গে লড়বো। এক সঙ্গে আমরা মানব জাতি হিসেবে লড়বো। আমি কোনদিনও রাসবিহারী মোড় এরকম ফাঁকা দেখিনি। টেলিভিশনে রোজ মৃত্যুর খবর দেখতে শুনতে আর ভাল লাগে না। তাই ইচ্ছাকৃতভাবে কোন ও বার্তা নয় গানের কথাতে স্বতঃস্ফূর্তভাবে বেরিয়ে এসেছে সেই ছবি ...

এ রাতের গন্ধ আমার অজানা, রাসবিহারী নীরবতা অচেনা লাগে রোজ দুপুরের খবর খেয়ে মাথা ধরে যায় বেঁচে থাকার গান আজ ঘরেই গেও ভাই ' ।

অমর্ত্য মনে করেন যে,  লকডাউন উঠে গেলেও বা করোনা ক্রাইসিস মিটলেও সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত হবে প্রলেতারিয়েত বা ওয়র্কিং ক্লাস,  তারপরেই মধ্যবিত্তরা। সেটাও তাঁকে ভাবিয়েছে।

মূলত তাঁর নতুন আইফোনে হয়েছে শুটিং। মা চৈতি ঘোষাল ও শুট করেছেন। বাড়িতে থাকা মইটাকেই  ফটো ফ্রেম এর ফোল্ডারের সাহায্যে ট্রাইপড তৈরি করে ফেলেছিলেন অমর্ত্য । এভাবেই মিউজিক ভিডিওর জন্য স্টেডি শট তুলতে পেরেছেন তাঁরা। মিউজিক ভিডিও অমর্ত্য ও চৈতি ছাড়াও রয়েছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত দেবলীনা দত্ত, তথাগত মুখোপাধ্যায়, সুদীপ্তা চক্রবর্তী, দেবেশ চট্টোপাধ্যায় , সৌরাশিস লাহিড়ীর মত সেলেবরা। রয়েছেন চিকিৎসক-নার্স ও  সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষ।

মা চৈতির কথায় , " করোনা শুধু মৃত্যুভয় আনেনি তার সঙ্গে আরো অনেক কিছু এনেছে। আমাদের পুরো ভাবনাচিন্তাই আলাদা হয়ে গিয়েছে। ভালোবেসে এখন জড়িয়ে ধরতে ও ভয় লাগবে করোনা শেষ হওয়ার পরেও। পৃথিবী জুড়ে ভালোবাসার প্রকাশ , রাগের প্রকাশ বদলে গিয়েছে।  সব মিলিয়ে মনে হয়েছে বাবির এই গানটা শুধু ওর এক্সপ্রেশন নয় এটা আমাদের মনের কথা। সেখান থেকে মনে হলো রান্নাবান্না, ঘর ঝাঁট দেওয়া, ঘর মোছার মধ্যেই নিজেকে আটকে রাখতে চাই না। তাই আমার ছেলের কথাতেই বলতে চাই  'দামি জীবনের বিজ্ঞাপন আজ বন্ধ রাখাই থাক।' "

চৈতি মনে করেন যে, করোনা পরবর্তী পৃথিবীতে সামাজিক-রাজনৈতিক ব্যবহার বদলে যাবে।  বিনোদনের ধারা পাল্টে যাবে। কত মানুষ মানসিক ভাবে ঠিক থাকতে পারবেন সেটা নিয়েও সংশয় রয়েছে তাঁর।  টেলিভিশন, থিয়েটার, সিনেমার মতো মেইনস্ট্রিম মিডিয়ায়  থাকতে ভালোবাসেন চৈতি। মোবাইল, ইন্টারনেট বা ইউটিউবে বুঁদ হয়ে থাকায় বিশ্বাসী তিনি নন। তবে কোয়ারেন্টাইন লাইফে থেকে তাঁর উপলব্ধি " আমার মানুষের কাছে পৌঁছনো দরকার বলে মনে হয়েছিল। আমি অভিনয় ছাড়া কিছুই করিনি । নিজের কথা নিজের এক্সপ্রেশন যা জমছে তা বার করতে চেয়েছি। সেখান থেকেই আমাদের ইউ টিউব চ্যানেল  'চৈতি ও অমর্ত্য '। " চ্যানেলের নাম যাই হোক এখানে শুধু তাঁদের দেখা যাবে এমনটা নয় বলেই জানালেন অমর্ত্যর মা । আপাতত রক্ত করবী সহ অন্যান্য নাটকের স্টেজ পারফরম্যান্স, ছোট ছবি , কবিতা , এসব কিছুই  থাকবে ইউ টিউব চ্যানেলে। চৈতি মনে করেন, ' মানুষ হয়ে  বাঁচতে গেলে মানুষ হতে হয় ' তাই মানুষ হয়ে বাঁচতে গেলে মানুষ হতেই হবে এ ছাড়া কোন ও রাস্তা নেই।  মানুষ হয়ে নতুন কিছু ভাবতেই হবে দেয়ালে পিঠ ঠেকে গিয়েছে যে।

Published by: Akash Misra
First published: April 26, 2020, 5:04 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर