লকডাউনে ‘গলদা চিংড়ি’, ক্লিক করলেই পাবেন স্বাদ ! চেখে দেখবেন নাকি?

করোনার কারণে এখন আমরা সকলেই গৃহবন্দি।এই অবস্থাতেও পরিচালক থেকে অভিনেতা সবাই নিজেদের মতন যেভাবে সমাজের নানা প্রয়োজনে এগিয়ে এসেছেন তাকে সাধুবাদ জানাতেই হয়।

করোনার কারণে এখন আমরা সকলেই গৃহবন্দি।এই অবস্থাতেও পরিচালক থেকে অভিনেতা সবাই নিজেদের মতন যেভাবে সমাজের নানা প্রয়োজনে এগিয়ে এসেছেন তাকে সাধুবাদ জানাতেই হয়।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনার কারণে এখন আমরা সকলেই গৃহবন্দি।এই অবস্থাতেও পরিচালক থেকে অভিনেতা সবাই নিজেদের মতন যেভাবে সমাজের নানা প্রয়োজনে এগিয়ে এসেছেন তাকে সাধুবাদ জানাতেই হয়। শুধু অর্থ বা খাদ্যসামগ্রী নয়,মানুষের সচেতনতার জন্য ছোট ছবি বানিয়েও সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করছেন অনেকেই। সেরকমই একটি ছোট ছবি 'গলদা চিংড়ি'। অভিনয়ে অম্বরীশ ভট্টাচার্য। পরিচালনায় দেবেশ চট্টোপাধ্যায়। বাড়িতে বসে নিজেই ছবি শুট করেছেন অম্বরীশ। ডিউরেশন মাত্র ১ মিনিট। কিন্তু তাতেও কোথাও যেন সমাজের আসল নগ্ন সত্যটা এখানে তুলে ধরা হয়েছে। "এখানে মূলত বুদ্ধিজীবী সমাজকে টার্গেট করা হয়েছে। যারা সারাদিন অনেক জ্ঞানের কথা মানুষকে বলে থাকেন কিন্তু আদতে নিজেরা সেটা মেনে চলেন কী? আসলে চলেন না। এই ছোট ছবিতে আমাকে দেখানো হয়েছে একজন নাট্য ব্যাক্তির চরিত্রে। যিনি নিজে অনেক জ্ঞান দিচ্ছেন আবার গলদা চিংড়িটা শেষ হয়ে যাবে বলে বড় ব্যাগ নিয়ে ছুটছেন বাজারে। আসলে এটাই তো হচ্ছে।" জানান অম্বরীশ।

অম্বরীশের মতে, পরিস্থিতি সত্যি কঠিন। সরকার যে গাইডলাইন দিয়েছেন বা যা করছেন তার থেকে বেশি আর কী বা করতে পারেন। মিলিটারি শাসন তো আর করা যায়না। "আমরা অনেক ভালো আছি।আমাদের টিভি আছে, ফ্যান আছে, এসি আছে, একটা ছাদ আছে। যারা একটা ঘরে থাকেন পরিবারের সকলে মিলে তাঁদের এখন কি করুন অবস্থা। রোজগারটাও বন্ধ।এই মানুষগুলোর কথা ভাবলেই মনটা খারাপ হয়ে যায়" জানান অম্বরীশ ৷

এমনিতে ভোজনরসিক হলেও, মন খারাপ থাকলে খাবার ইচ্ছে একেবারেই থাকে না তাঁর। যাকে বলে 'লস অফ আ্যপেটাইট'। সেটাই হয়েছে অম্বরীশের। প্রকৃতির ওপরে ক্রমাগত ধর্ষণ আর অত্যাচারের ফল এখন ভুগতে হচ্ছে মানব জাতিকে। আরও ঘোর বিপদ করোনা পরবর্তী সময়ে। সব ওলটপালট করে দিয়ে যাবে করোনা, ভেবেই শিউরে ওঠেন অম্বরীশ।

দেখুন ছোট্ট ছবিটি---

Published by:Akash Misra
First published: