corona virus btn
corona virus btn
Loading

সোনু সুদের নামেই গ্রামের রাস্তা তৈরির কাজ শুরু করলেন আদিবাসীরা !

সোনু সুদের নামেই গ্রামের রাস্তা তৈরির কাজ শুরু করলেন আদিবাসীরা !

বহুবার সরকারকে বলেও কিছু হয়নি। কেউ এগিয়ে আসেননি। এর পর আদিবাসীরা নিজেরাই রাস্তা তৈরি করতে শুরু করেন।

  • Share this:

#মুম্বই: সোনু সুদ। এই নাম শুনলেই মানুষের মনে এখন অন্য ছবি ভেসে ওঠে। সোনু সুদ এখন শুধু আর বলিউড অভিনেতা নন, তিনি বাস্তব জীবনের নায়ক। দেশে করোনা ভাইরাসের থাবা বসার সঙ্গে সঙ্গে মানুষের পাশে দাঁড়াতে শুরু করেন তিনি। লকডাউনে বিভিন্ন জায়গায় আটকে পড়েন পরিযায়ী শ্রকিমরা। তাঁরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে হেঁটে বাড়ির পথে রওনা হন। এই ছবি দেখার পর ঠিক থাকতে পারেননি, সোনু সুদ। সরকার কিছু করার অনেক আগেই তিনি নিজের চেষ্টায় বাড়ি পৌঁছে দিতে শুরু করেন শ্রমিকদের। হাজার হাজার মানুষকে তিনি বাড়ি পৌঁছে দিয়েছেন।

ট্যুইটারে তাঁকে একবার জানালেই সঙ্গে সঙ্গে সাহায্যের জন্য হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। এমকি করোনা যোদ্ধাদের ২৫ হাজার ফেস মাস্ক দিয়েছেন তিনি। তবে শুধু এটুকুই নয়। গরীব বাচ্চাদের পড়াশুনোর জন্য পৌঁছে দিয়েছেন স্মার্ট ফোন। নতুন বাড়ি বানিয়ে দিয়েছেন বন্যা কবলিত পরিবারকে। এসব কিছুই তিনি একা করেছেন। তাঁকে দেখে উৎসাহিত হয়েছেন মানুষ। সেই উৎসাহ থেকেই অন্ধ্রপ্রদেশের কোদমা-বাড়ি গ্রামের আদিবাসীবৃন্দও নতুন কিছু করার উদ্যোগ নিয়েছেন।

তাঁদের গ্রাম থেকে প্রধান শহরে যাওয়ার চার কিলোমিটার রাস্তা ভেঙে গিয়েছিল। কাঁচা রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করা মুশকিল ছিল। এর ফলে রাত বিরেতে সমস্যায় পড়তে হত মানুষকে। গর্ভবতী মহিলা থেকে অসুস্থ রোগীকে ওই রাস্তা দিয়ে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া খুবই মুশকিল ছিল। কিন্তু সোনু সুদের কাজ দেখে ওই গ্রামের আদিবাসীরা ঠিক করেন তাঁরা নিজেরাই এই রাস্তা তৈরি করবেন। বহুবার সরকারকে বলেও কিছু হয়নি। কেউ এগিয়ে আসেননি। এর পর আদিবাসীরা নিজেরাই রাস্তা তৈরি করতে শুরু করেন। এই খবর ট্যুইটারে সোনুকে জানান তাঁরা। খবর পাওয়া মাত্র সোনু বলেন, টাকা দিয়ে সাহায্যের কথা। কাজও করেন। এবং ওই গ্রামের বাসিন্দাদের কথা দেন রাস্তা হয়ে গেলেই তিনি দেখা করতে আসবেন ওই গ্রামে। এর পর ওই গ্রামের বাসিন্দারা সোনু সুদকে ধন্যবাদ জানিয়ে বিশাল এক পোস্টার টানান। এই রাস্তা সোনু সুদের নামেই উৎসর্গ করতে চান তাঁরা।

Published by: Piya Banerjee
First published: August 28, 2020, 11:07 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर