corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘সবটা ঘেটে গেল’, বলিউড ছবির অনিশ্চয়তার কথা জানালেন রুদ্রনীল ঘোষ

‘সবটা ঘেটে গেল’, বলিউড ছবির অনিশ্চয়তার কথা জানালেন রুদ্রনীল ঘোষ

সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে একটা পোস্ট যেখানে রুদ্রনীল লিখেছেন... বলিউডের ভাল, বড় কাজটাও অনিশ্চয়তার মুখে। পোস্ট দেখে ফোন করি রুদ্রকে।

  • Share this:

#কলকাতা: সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে একটা পোস্ট যেখানে রুদ্রনীল লিখেছেন... বলিউডের ভাল, বড় কাজটাও অনিশ্চয়তার মুখে। পোস্ট  দেখে ফোন করি রুদ্রকে। প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই কলকাতায় বেশ কয়েকদিন ধরে  শুটিং চলছিল হিন্দি ছবি 'ময়দান'-এর । যেখানে প্রধান চরিত্রে অজয় দেবগণ। সঙ্গে আরও যে চারটে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র তার মধ্যে একটিতে রুদ্র। এর আগেও একটা সাক্ষাৎকারে রুদ্র বলেছিলেন তাঁর কাজের ভাল প্রশংসা করেছে সবাই ছবির সেটে। মানে এই ছবি মুক্তি পাওয়ার পরে আরও ভাল সুযোগ.... সব কিছুই প্ল্যানিংয়ে ছিল.... ফোন করতেই রুদ্র জানালেন "মুম্বাইতে ১৬ একর জমির ওপরে ছ-কোটি টাকার সেট তৈরি হয়েছিল। পুরোটাই ভেঙে দিতে হল। কারণ আড়াই মাস ধরে পুরো সেট পরে থেকে থেকে নষ্ট হল। এই সেট পুরোটা বানানো না হলেও খানিকটাও যদি বানাতে হয় তার জন্য অন্তত প্রয়োজন তিন কোটি টাকা। আার অনেকটা সময়। এখন এই সব করে কতদিনে এই ছবি তৈরি হবে আর কতদিনে মুক্তি পাবে বলা মুশকিল। সবটা ঘেটে গেল ৷ " ছবির প্রযোজকের অফিস থেকে সব সময়ই অবশ্য যোগাযোগ রাখছেন তারা রুদ্রর সঙ্গে। পঁচানব্বই শতাংশ ইতিমধ্যেই শ্যুটিং হয়ে গেছে। পড়ে রয়েছে পাঁচ শতাংশ... কিন্তু সেটাও যে কবে  হবে বলা খুবই মুশকিল। এই ছবির থেকে বলিউডে ভালো জায়গা হওয়ার সুযোগ আছে রুদ্রনীল। ময়দান রিলিজ হওয়ার কথা ছিল এই বছরের ডিসেম্বর মাসে। সেই মতো কাজ দেখার পরে বলিউডে অন্য হাউস থেকে ডাক পাওয়ারও সম্ভাবনা ছিল। যা সাধারণত হয়ে থাকে। এদিকে সেই সুযোগ নিতে হলে আর কোনও কাজের অফার আগাম নেওয়া যাবে না। কারণ হিন্দি ছবির যদি ভালো অফার আসে আর বাংলার কাজ করতে গিয়ে ডেট ক্ল্যাশ হয় তাহলে হিন্দি ছবি ছাড়তে হবে তাঁকে। এই সাংঘাতিক হিসেবের যে রিস্ক সেটা নিতেও রাজি ছিলেন অভিনেতা। কিন্তু ওই করোনা এসে যেন সব গণ্ডগোল করে দিল। এদিকে কলকাতায় জুন থেকে সবই নাকি স্বাভাবিক হয়ে যাবে... ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি কী তাহলে স্বাভাবিক ভাবেই কাজ করবে আবার? "দেখো বলাটা যতটা সহজ করাটা ততটা নয়। আগামী মাসে চার তারিখ ফেডারেশনের ইন্টারনাল  মিটিং। তার পরে সেটা সরকারি ভাবে আলোচনা হবে। প্রযোজকরা এই মুহূর্তে শুটিং শুরু করে দেওয়ার পক্ষে কতটা হ্যাঁ বলবেন সেটাও একটা বিষয়। কারণ এখনও মানুষ আতঙ্কে। তার ওপরে যা নিয়ম বেঁধে দেয়া হয়েছে সেই মতন কাজ করতে হলে পার ডে তার পেছনে একটা বিশাল খরচ আছে। সব মিলিয়ে আগস্ট এর আগে কোনও সম্ভাবনা অন্তত আমি দেখতে পাচ্ছি না।"বলে জানান রুদ্র। টালিগঞ্জের বিশাল ফ্ল্যাটে একাই থাকেন রুদ্রনীল। গৃহবন্দী অবস্থায় অনেকদিন থাকার পরে এখন মাঝেই মধ্যে বের হন । দুস্থ মানুষগুলোর খাবারের ব্যবস্থা করেছেন সেই জন্য। এখন আর করোনা বিশেষ ভয়ে দেখতে পারেনা রুদ্রকে।

Published by: Akash Misra
First published: May 31, 2020, 10:37 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर