Home /News /entertainment /
Rituparna Sengupta : বিমানে উঠতে না দেওয়ায় কেঁদে ফেলেছিলেন! ঋতুপর্ণা বললেন, "গোটা দেশের জন্য সরব হয়েছিলাম"

Rituparna Sengupta : বিমানে উঠতে না দেওয়ায় কেঁদে ফেলেছিলেন! ঋতুপর্ণা বললেন, "গোটা দেশের জন্য সরব হয়েছিলাম"

ঋতুপর্ণা বললেন, "গোটা দেশের জন্য সরব হয়েছিলাম"

ঋতুপর্ণা বললেন, "গোটা দেশের জন্য সরব হয়েছিলাম"

Rituparna Sengupta : ভোরের বিমানের বোর্ডিং সময় ছিল ৪.৫৫ মিনিট। ঋতুপর্ণা এদিন সকালে বিমানবন্দরে পৌঁছান ৫.১২ মিনিটে।

  • Share this:

    #কলকাতা: বিমানে উঠতে না দেওয়ায় সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত (Rituparna Sengupta)। ভোরের বিমানের বোর্ডিং সময় ছিল ৪.৫৫ মিনিট। ঋতুপর্ণা এদিন সকালে বিমানবন্দরে পৌঁছান ৫.১২ মিনিটে। এর জেরেই এদিন নায়িকাকে বিমানে উঠতে দেওয়া হয়নি বলে দাবি নায়িকার। আহমেদাবাদে শ্যুটিং করতে যাওয়ার কথা ছিল ঋতুপর্ণার। এবার সেই বিমান সংস্থা ক্ষমা চাইলেন অভিনেত্রীর কাছে।

    সেই ক্ষমা চাওয়ার পোস্টের স্ক্রিনশট সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেই শেয়ার করেছেন ঋতুপর্ণা (Rituparna Sengupta)। পাশাপাশি ফের আরও একটি লম্বা পোস্ট ফেসবুকে লিখেছেন ঋতুপর্ণা। ক্ষমা চাওয়ার জন্য বিমান সংস্থাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন অভিনেত্রী।

    ঋতুপর্ণা (Rituparna Sengupta) লিখছেন, "ধন্যবাদ ক্ষমা চাওয়ার জন্য। কিন্তু ২৫ মিনিট আগে গেট বন্ধ করে দেওয়া মোটেই ভাল ব্যাপার নয় যাত্রী ও সংস্থা উভয়ের জন্যই। কাজ শেষ করতে আমায় আরও দুটি ট্রিপ করতে হয়েছে। ঠিক সময়ে পৌঁছতে না পারায় আমার একটা কাজ বাতিল হয়েছে। আশা করছি ভবিষ্যতে এমন হবে না। আমি শুধু আমার জন্য চাইছি না। আমাদের সমস্ত নাগরিকদের জন্যই বলছি। আশা করি ভাল হবে।"

    ঋতুপর্ণা আরও লিখছেন, "সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেক নেতিবাচক মন্তব্য দেখেছি। কিন্তু আমি একার জন্য বলিনি। গোটা দেশের জন্য বলেছি। জরুরি কাজের জন্য যাত্রায় অনেক চেষ্টা ও আবেগ থাকে। আমি এই অবিচারের জন্য দুঃখিত ছিলাম। নিজের জন্য ও সকলের ন্যায়বিচারের জন্য আমি গলা তুলেছিলাম। এই একটা বিষয়ের জন্য পুরো পদ্ধতির গতিই ব্যাহত হয়েছে। কাজটি এখনও আমি শেষ করতে পারিনি। আহমেদবাদ থেকে ৩ ঘণ্টার দূরত্বে আমার কাজটি ছিল। তাই অনুরোধ করেছিলাম। কারণ সরাসরি আহমেদাবাদ যাওয়ার আর কিছু ছিল না।"

    অভিনেত্রীর এই পোস্টটিও ভাইরাল হয় সোশ্যালে। মঙ্গলবার তিনি জানিয়েছিলেন, '৫০ পা দূরেই দাঁড়িয়ে বিমান। বিমানে ওঠার সিঁড়িও খোলা হয়নি তখনও। বোর্ডিং পাস, সিট নম্বর সবই রয়েছে। ৪০ মিনিট ধরে বিমানবন্দরের কর্মীদের অনুরোধ করেও লাভ হয়নি।' অভিনেত্রীর সঙ্গে বচসা শুরু হয়ে যায় সংশ্লিষ্ট ওই বিমান সংস্থার কর্মীদের। বিমানে উঠতে না পেরে কেঁদেও ফেলেন ঋতুপর্ণা।

    আরও পড়ুন- শাঁখ বাজানো থেকে প্রদীপ দিয়ে ঘর সাজানো! বাড়ির ঠাকুর ঘরে বহু সময় কাটাতেন অভিষেক

    অন্যদিকে বিমান সংস্থার অভিযোগ ছিল, অভিনেত্রী দেরিতে পৌঁছেছেন। নির্দিষ্ট সময়ে তাঁর নাম ঘোষণা করা হলেও তাঁকে পাওয়া যায়নি। শুধু তাই নয়, ফোনে নাকি যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হয়েছিল।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published:

    Tags: Rituparna Sengupta

    পরবর্তী খবর