Rishi Kapoor death anniversary: কলকাতা বড় কাছের ছিল ঋষি কাপুরের, এই শহর থেকেই মিলেছিল জীবনের প্রথম পুরস্কার

Rishi Kapoor death anniversary: কলকাতা বড় কাছের ছিল ঋষি কাপুরের, এই শহর থেকেই মিলেছিল জীবনের প্রথম পুরস্কার

'আমি আমার হাসি নিয়ে মানুষের কাছে বেঁচে থাকতে চাই। কান্না আমার পছন্দ না।' ...মারণ রোগ ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার পরও মুশরে পড়েননি, বরং তাকে বিশেষ গুরুত্ব না দিয়ে হেসে খেলেই বাকি জীবনটা কাটাতে চেয়েছিলেন রাজ কাপুরের দ্বিতীয় পুত্র ঋষি কাপুর

'আমি আমার হাসি নিয়ে মানুষের কাছে বেঁচে থাকতে চাই। কান্না আমার পছন্দ না।' ...মারণ রোগ ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার পরও মুশরে পড়েননি, বরং তাকে বিশেষ গুরুত্ব না দিয়ে হেসে খেলেই বাকি জীবনটা কাটাতে চেয়েছিলেন রাজ কাপুরের দ্বিতীয় পুত্র ঋষি কাপুর

  • Share this:

    #মুম্বই:  'আমি আমার হাসি নিয়ে মানুষের কাছে বেঁচে থাকতে চাই। কান্না আমার পছন্দ না।' ...মারণ রোগ ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার পরও মুশরে পড়েননি, বরং তাকে বিশেষ গুরুত্ব না দিয়ে হেসে খেলেই বাকি জীবনটা কাটাতে চেয়েছিলেন রাজ কাপুরের দ্বিতীয় পুত্র ঋষি কাপুর! হেসে খেলেই কাটালেন... ক্যান্সারের চিকিৎসা চলাকালীনও চিকিৎসকদের নানা ভাবে হাসি খুশিতে ভরিয়ে রাখতেন! আফটারঅল বলিটাউনের চকোলেট বয়, এভারগ্রিন সুপারস্টার, আলটিমেট প্রেমিক নায়ক... তাঁর অওরাই আলাদা...

    কলকাতার সঙ্গে ঋষি কাপুরের সম্পর্ক বহুদিনের, সেই ১৯৭০ সালের জুন মাস থেকে। ঋষির প্রথম ছবি ‘মেরা নাম জোকার’-এর প্রিমিয়ার শো অনুষ্ঠিত হয়েছিল কলকাতার জানবাজারের কাছে ‘লোটাস’ সিনেমায়। সেখানে বাবা রাজ কাপুরের সঙ্গে হাজির হয়েছিলেন ঋষি। সেই ছবিতে অভিনয়ের জন্যই তিনি বাংলার বিএফজে-র ‘বিশেষ পুরস্কার’ পান, এই ছবির জন্য সেরা শিশুশিল্পীর জাতীয় পুরস্কার পাওয়ার আগেই। কলকাতা থেকেই মিলেছিল ঋষির জীবনের প্রথম পুরস্কার।

    এরপর, প্রাপ্তবয়স্ক হিসেবে ঋষি কাপুরের প্রথম ছবি 'ববি', এককথায় হিন্দি প্রেমের ছবির মাইলস্টোন। সেই 'ববি'রও প্রিমিয়ার শো হয়েছিল কলকাতায়, ১৯৭৩ সালে, মেট্রো সিনেমায়। শোয়ে হাজির ছিলেন সত্যজিৎ রায়ও। রাজ কাপুর ঋষি কাপুরকে সত্যজিতের কাছে নিয়ে গিয়ে বলেছিলেন, 'প্রণাম করো, ইনি আমাদের সকলের গুরু।'

    Published by:Rukmini Mazumder
    First published: