কড়া জেরার মুখে রিয়া চক্রবর্তী, বয়ানে একের পর এক অসংগতি !

রবিবার রিয়াকে প্রথম জেরা করে এনসিবি। সোমবারও চলে জেরা। গতকাল পর্যন্ত রিয়া চূড়ান্ত আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে জানিয়ে এসেছিলেন, তিনি নয়, সুশান্ত মাদক নিতেন! তাঁর সঙ্গে মাদকচক্রের কোনও যোগ নেই! তিনি কোনওদিন মাদকে হাত পর্যন্ত দেননি! শুধু বারকয়েক সুশান্তের জন্য ড্রাগসের ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন। কিন্তু মঙ্গলবার আর পারেন না! এনসিবির জেরার মুখে ভেঙে পড়েন রিয়া। জানান, তিনিও ' হার্ড ড্রাগ' নিতেন, ' হার্ড ড্রাগ'-এর লেনদেনও করতেন।

রিয়া চক্রবর্তীর বয়ানে অসংগতি। দীপেশ, স্যামুয়েলের দাবি সুশান্তের সঙ্গে মাদক সেবন করতেন রিয়া।

  • Share this:

#মুম্বই: রিয়া চক্রবর্তীর বয়ানে অসংগতি। দীপেশ, স্যামুয়েলের দাবি সুশান্তের সঙ্গে মাদক সেবন করতেন রিয়া। সিবিআই জেরে মুখে একই কথা বলেছেন শ্রুতি মোদি। কিন্তু সেই কথা সম্পূর্ণ অস্বীকার করছেন রিয়া। তার দাবি তিনি মাদক সেবন কখনো করেননি। সুশান্ত ও তাঁর বন্ধুদের জন্যই মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ হয়। অন্যদিকে কিছুদিন আগে প্রকাশ্যে এসেছিল জয়া সাহা ও রিয়ার চ্যাট। যেখানে সুশান্তের পানীয়তে কিছু একটা কয়েক ফোঁটা মিশিয়ে দেওয়ার কথা বলেন জয়া। সাক্ষাৎকারে রিয়া জানান, তার ফোন থেকে সুশান্তই চ্যাট করছিলেন জয়ার সঙ্গে। অভিনেতা নিজেই নিজের পানীয়তে পদার্থ মেশাতেন। অবসাদের জন্য অন্য উপায়ের প্রয়োগ করছিলেন সুশান্ত। কিন্তু সোমবার জেরার মুখে রিয়া স্বীকার করলেন তিনিই সুশান্তের কথা মতো  অভিনেতার পানীয়তে সিবিডি অয়েল মেশাতেন। তাই এনসিবি কর্তারা, মুম্বাই পুলিশ ও সিবিআই-এর কাছে সুশান্ত কেসের সিজার মেমো চেয়ে পাঠিয়েছে। অভিনেতার বাড়ি থেকে কোনও মাদক উদ্ধার হয়েছে কি না, হলেও কী এবং কত পরিমানে তা জানতে চান এনসিবি কর্তারা।

সুশান্ত সিং রাজপুত আত্মহত্মার তদন্তে জোরদার গতিতে এগোচ্ছে সিবিআই, এনসিবি ৷ সিবিআইয়ের জেরার মাঝেই বেআইনি ড্রাগের কারবারের ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই এনসিবি জেরা করতে শুরু করে রিয়া চক্রবর্তীর ভাই সৌভিক চক্রবর্তী, সুশান্তের ঘরোয়া ম্যানেজার স্যামুয়েলা মিরান্ডাকে ৷ বয়ানে অসন্তুষ্ট হওয়ায় এই দু'জনকেই গ্রেফতার করেছে এনসিবি ৷

তারপরেই গ্রেফতার হয়েছে সুশান্তের পরিচারক ৷ গত ৩৬ ঘণ্টায় একের পর ধরা পড়েছে এনসিবির জালে, গ্রেফতার হয়েছে তারা ৷ গ্রেফতার হওয়া তিনজনকে আদালতে পেশ করে ৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এনসিবি হেফাজতে নিয়েছে ৷ দীপেশ সাওয়ান্ত ড্রাগ সিন্ডিকেটের একজন সক্রিয় সদস্য এনসিবির জেরার মুখে জানতে পারা গিয়েছে ৷ জেরায় উঠে এসেছে দীপেশ সাওয়ান্তের ড্রাগ সিন্ডিকেটের যোগ ৷ জানতে পারা গিয়েছে হাই সোসাইটির বেশ কয়েকজনকে ড্রাগ পাচার করত দীপেশ ৷ দীপেশ জেরায় জানিয়েছে তাঁকে শৌভিকের থেকে ড্রাগ নেওয়ার কথা বলা হয়েছিল, শৌভিক ও স্যামুয়েল মিরান্ডা মিলে ড্রাগ কিনেছে ৷

রিয়া চক্রবর্তী তাকে ১৭ এপ্রিল ড্রাগ নিতে বলেছিল ৷ দীপেশ এও জানিয়েছে সুশান্তকে ড্রাগ নিতে দেখা গিয়েছে ৷ রবিবার এনসিবির ম্যারাথন জেরার মুখে পড়েন রিয়া চক্রবর্তী ৷ টানা ছয় ঘণ্টা জেরা করা হয়েছে ৷ অনেকেই মনে করছেন ড্রাগ পাচারের মত অপরাধের সঙ্গে যুক্ত থাকার কারণে যে কোনও সময়ে রিয়া গ্রেফতার হতে পারেন ৷

Published by:Akash Misra
First published: